ফাইল ছবি

ইমরান হোসাইন, পেকুয়া :

কক্সবাজারের পেকুয়ায় বন্য হাতির আক্রমণে শামশুল আলম(৬৭) নামের এক কাঠুরিয়ার মৃত্যু হয়েছে।

মঙ্গলবার (২৬ নভেম্বর) সকাল সাড়ে ১০টার দিকে উপজেলার টইটং ইউনিয়নের তারাবনিয়া নামক দুর্গম পাহাড়ি এলাকা থেকে তার মরদেহ উদ্ধার করেন স্থানীয় বাসিন্দারা। তবে সোমবার বিকেলেই বন্য হাতির আক্রমণে ওই কাঠুরিয়ার মৃত্যু হয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

নিহত শামশুল আলম টইটং ইউনিয়নের বটতলী মাদ্রাসাপাড়া এলাকার মোজাহের আহমদের ছেলে।

স্থানীয় বাসিন্দারা জানান, সোমবার সকাল ৮টার দিকে প্রতিদিনের মতো লাকড়ি কাটতে বাড়ি থেকে বের হয়ে বনে যায় শামশুল আলম। কিন্তু সোমবার সন্ধ্যা পেরিয়ে গেলেও তিনি বাড়িতে লাকড়ি নিয়ে না ফেরায় স্বজনদের মধ্যে সন্দেহ সৃষ্টি হয়। তাই সোমবার রাতে শতাধিক এলাকাবাসীদের সাথে নিয়ে ইউপি সদস্য আবুল কাসেমসহ স্বজনেরা পাহাড়ের বিভিন্নস্থানে তাকে খোঁজাখুঁজি করেন। তবে রাতে তার সন্ধান পায়নি তারা। পরে মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে গহীণ অরণ্যের হাতির ডেরা নামক স্থানে তার মরদেহ দেখতে পায় অপর কাঠুরিয়ারা।

ইউপি সদস্য আবুল কাসেম বলেন, ‘মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে গহীন পাহাড়ে শামশুল আলমের মরদেহের সন্ধান পাওয়া যায়। বন্য হাতির আক্রমণে তার মৃত্যু হয়েছে। তার কোমর এবং পেটের ডানপাশে হাতির পায়ে থেতলানোর চিহ্ন রয়েছে। ঘটনাস্থলে হাতির পায়ের চাপও দেখা গেছে। লোকটি অত্যন্ত দরিদ্র। গহীন পাহাড় থেকে লাকড়ি সংগ্রহ করে সংসার চালাতেন তিনি।’

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে পেকুয়া থানার ওসি কামরুল আজম বলেন, ‘বন্য হাতির আক্রমণে নিহত শামশুল আলমের ছেলে মোঃ সেলিমের আবেদনের প্রেক্ষিতে বিনা ময়নাতদন্তে মরদেহটি পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।’

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •