সমকাল : বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের (স্কুল ও কলেজ) জনবল কাঠামো ও এমপিও নীতিমালা-২০১৮ সংশোধন করে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় অধিভুক্ত বেসরকরি কলেজে স্নাতক-স্নাতকোত্তর কোর্সে নিয়োগকৃত শিক্ষকদের অন্তর্ভুক্তির ‌দাবি জানানো হয়েছে।

রোববার জাতীয় প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলনে বাংলাদেশ বেসরকারি কলেজ অনার্স-মাস্টার্স শিক্ষক ফোরাম এ দাবি জানায়।

সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, দাবি না মানা হলে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের সব বেসরকারি কলেজে ক্লাসসহ সব পরীক্ষা বর্জন করে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ে অবস্থান কর্মসূচি পালনের কর্মসূচি দেয়া হবে। পাশাপাশি আগামী ৪ ডিসেম্বর থেকে জেলায় জেলায় স্মারকলিপি পেশ ও মানববন্ধন কর্মসূচিও পালন করা হবে।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে সংগঠনের আহ্বায়ক নেকবর হোসাইন বলেন, বেসরকারি কলেজে কর্মরত শিক্ষকদের কোনো কোনো কলেজ বেতন হিসেবে নামমাত্র ২৫০০ টাকা থেকে ১০ হাজার টাকা সম্মানি দেয়। অনেক প্রতিষ্ঠান নিয়মিত বেতন দেয় না।

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ে ও শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মধ্যে সমন্বয়হীনতা রয়েছে অভিযোগ করে নেকবর হোসাইন বলেন, আমাদের এমপিওভুক্তির ক্ষেত্রে শিক্ষা মন্ত্রণালয় অনীহা প্রকাশ করে। আমাদের ৩৫০০ শিক্ষককে সরকারিকরণ করলে সরকারের বাৎসরিক ১০৪ কোটি ৯ লাখ টাকা প্রয়োজন। অথচ শিক্ষা মন্ত্রণালয় থেকে প্রতিবছর প্রায় ৫০০ কোটি টাকা খরচ করার খাত না থাকায় অব্যবহৃত হয়ে ফেরত যায়।

বেসরকারি কলেজ অনার্স-মাস্টার্স শিক্ষকদের এপিওভুক্তির আওতায় নিতে শিক্ষামন্ত্রণালয়ে সুপারিশ করার জন্য জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যের প্রতি আহ্বান জানান তিনি।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •