মোঃ ফারুক, পেকুয়া:

কক্সবাজারের পেকুয়ায় ঘাতকের হাতে নিমর্মভাবে নিহত অায়েশার মৃত্যুতে শোকসভা করেছে শাহ রশিদিয়া অালিম মাদ্রাসার শিক্ষার্থী ও অভিভাবকরা। এসময় প্রধান ঘাতক ওমর ফারুককে দ্রুত গ্রেপ্তারের দাবী ওঠে মাদ্রাসার শিক্ষার্থী ও অভিভাবকদের পক্ষ থেকে।

রবিবার দুপুর ১টা মাদ্রাসা হল রুমে প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত হয়।

সভায় সভাপতিত্ব করেন মগনামা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মাদ্রাসা পরিচালনা কমিটির সভাপতি শরাফত উল্লাহ চৌধুরী ওয়াসিম। শান্তিপূর্ণ শোক সভায় সংহতি জানিয়ে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন পেকুয়া থানার ওসি কামরুল অাজম।

এসময় সভাপতি ওয়াসিম বলেন, একজন শিক্ষার্থীকে নিমর্মভাবে খুন করা হয়েছে। তাকে অামরা অার পাবনা। কিন্তু খুনির দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি চাই। নুসরাত হত্যা মামলার দৃষ্টান্ত নিয়ে অামাদের ওসি সাহেবকে তার দৃষ্টান্ত সৃষ্টি করতে হবে। এ হত্যাকান্ড কিছুতেই মেনে নেওয়া যায়না। তারপরও হত্যাকান্ডের থেকে অদ্যাবধি অামরা থানা প্রশাসনের সহযোগিতা পেয়েছি। ঘটনায় জড়িত দুইজনকে দ্রুত গ্রেপ্তার করা হয়েছে। প্রধান অাসামীকেও দ্রুত গ্রেপ্তার করবে বলে অামরা অাশাবাদি।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে ওসি কামরুল অাজম বলেন, অাপনাদের শান্তিপূর্ণ এ প্রতিবাদে অামি সংহতি জানায়। অামি অাপনাদের জানাতে চাই পেকুয়ায় অাপরাধীদের কোন স্থান নাই। হযতোবা অপরাধী থাকবে নয়তো পুলিশ থাকবে। ইতোমধ্যে তা অাপনারা দেখেছেন। অায়েশার হত্যার ঘটনায় দ্রুত মামলা রুজু হয়েছে। দুই অাসামী অাটক হয়েছে। প্রধান অাসামী বাংলাদেশের কোন গর্তের ভিতর লুকিয়ে থাকলেও সেখান থেকে টেনে বের করা হবে। তার পরিণতি তাকেই ভোগ করতে হবে।

এসময় মাদ্রাসার প্রাক্তণ শিক্ষার্থী, বর্তমান শিক্ষার্থী, শিক্ষক, অভিভাবক ও নিহত অায়েশার পিতা জামাল হোসেন বক্তব্য রাখেন।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •