দক্ষিণ চট্টগ্রামের বিশিষ্ট আলেমেদ্বীন হযরত মাওলানা হাফেজ বশির আহমদকে নিয়ে বেশ কয়েক দিন ধরে একটি মহল সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ও প্রিন্ট মিডিয়ায় অপ-প্রচার চালাচ্ছেন। এর সত্যতা উপস্থাপন করে আম-জনতাকে বিভ্রান্ত না হওয়ার জন্য হাফেজ বশির আহমদ একটি বিবৃতি প্রদান করেছেন। বিবৃতিতে তিনি বলেন,তার বিরুদ্ধে যে অপপ্রচার চালানো হচ্ছে তা সম্পূর্ণ মিথ্যা ও ভিত্তিহীন। একটি দ্বীনি প্রতিষ্ঠান গঠনের স্বপ্ন ছিল তার অনেক দিনের। সেই স্বপ্নকে বাস্তব রূপ দিতে ২০০৫ সালে তার নিজের ৩০ শতক জমির উপর গড়ে তুলেন একটি প্রতিষ্ঠান। যেটি নানা ঘাত-প্রতিঘাত পার করে আজকের রহমানিয়া হাফেজিয়া বালক-বালিকা মাদ্রাসা ও এতিমখানা। আর,এই প্রতিষ্ঠান পরিচালনা করতে গিয়ে এখন যে হঠাৎ করে তার বিরুদ্ধে অর্থ আত্মসাৎের অভিযোগ আনা হয়েছে,সেই অভিযোগ উড়িয়ে দিয়ে তিনি বলেন,প্রতিষ্ঠান নিবন্ধন করার পর থেকে সরকারী অনুদান আসে মাসে ২২ হাজার টাকা। কিন্তু তার খরচ হয় প্রতি মাসে প্রায় দেড় লক্ষ (১৫০০০০) টাকা। সুতরাং এখানে আত্মসাৎের কোন প্রশ্নই আসে না এবং প্রতিষ্ঠান পরিচালনা করতে গিয়ে প্রতি মাসে তার প্রায় ১লক্ষ টাকা কিংবা তার চেয়ে বেশী ঘাটতি থাকে ।

হাফেজ বশির আহমদ আরো জানান ,মূলত শামসুল আলম নামের এক ব্যক্তি কিছু টাকা নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে জায়গা রেজিস্ট্রি করে দিবে বলে কালক্ষেপণ করে আসছে। কিন্তু কোনভাবেই এই ব্যক্তি টাকাও দিচ্ছে না, জায়গাও রেজিস্ট্রি দিচ্ছে না। এখন পাওনা টাকা না দিয়ে উল্টো তার বিরুদ্ধে একটি সংঘবদ্ধ ভূমিদস্যু,অসাধু,কুচক্রী মহলের ইন্ধনে নোংরামি চালিয়ে তার স্বপ্নের দ্বীনি প্রতিষ্ঠানটি ধ্বংস করার পায়তারা করছে । ইনশাআল্লাহ ষড়যন্ত্রকারীরা সফল হবে না। ইতিমধ্যেই চট্টগ্রাম বিভাগীয় সমাজসেবা অদিপ্তরের উপ-পরিচালক জনাব হাসান মাসুদ ও সহকারী পরিচালক শাহী নেওয়াজের নেতৃত্বে একটি তদন্ত টীম ২০ নভেম্বর প্রতিষ্ঠান পরিদর্শন করেন। বিবাদী হিসেবে আমি তদন্তস্থলে স্ব-শরীরে উপস্থিত হয়ে তাদেরকে আমার বিরুদ্ধে অভিযোগের সকল ডকুমেন্টপত্র উপস্থাপন করলে তারা আমার সন্তোষ প্রকাশ করেছেন।

উল্লেখ্য,অভিযোগকারীদের উপস্থিত থাকতে বলা হলেও তাদের কেহই উপস্থিত হন নি। অথচ তারা মানববন্ধন পর্যন্ত করেছে।

এ বিষয়ে চকরিয়া-পেকুয়া আসনের মাননীয় সাংসদ আলহাজ্ব জাফর আলম রহমানিয়া হাফেজিয়া বালক-বালিকা হাফেজিয়া মাদরাসা ও এতিমখানার পক্ষে সমাজসেবা অদিপ্তরের মহাপরিচালক ও চট্টগ্রাম বিভাগীয় উপ-পরিচালক বরাবরে সুপারিশ সহকারে ডিও লেটার দিয়েছেন।
একই বিবৃতিতে তিনি তার ভক্তদের বিভ্রান্ত না হওয়ার আহবান জানিয়ে ভক্তদের উদ্দেশ্য বলেন, ষড়যন্ত্রকারীরা হাজারো ষড়যন্ত্র করে তাকে দ্বীনের কাজ থেকে বিরত রাখতে পারবে না। যত ঘাত-প্রতিঘাত আসুক না কেন তিনি তার স্বপ্নের এই দ্বীনি প্রতিষ্ঠানের কাজ করে যাবেন। এ জন্য তিনি সকলের আন্তরিক দোয়া কামনা করেছেন।

  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •  
  •  
  •