মুহাম্মদ আবু সিদ্দিক ওসমানী

লোহাগাড়ায় সদর ইউনিয়ন ও কলাউলাজান ইউনিয়নে পাকাধান খেতে দলে দলে হাতির পাল লোকালয়ে নেমে আসছে। বৃহস্পতিবার বন থেকে আসা পালে হাতির সংখ্যা ১৪ টি বলে জানা গেছে। বন উজাড় করে ফেলায় হাতিগুলো বনে খাদ্য সংকটে পড়ায় খাদ্যের অভাবে লোকালয়ে দিকে চলে আসছে বলে বন বিশেষজ্ঞরা ধারণা করছেন।

বৃহস্পতিবার ২১ নভেম্বর ভোরে লোহাগাড়া সদরের হাজী পাড়া এলাকায় বনের পাশে পাকা ধান ক্ষেতে বন্য হাতির পাল দেখেতে পায় স্থানীয় লোকজন। এভাবে দলে দলে পাকাধান ক্ষেতে হাতি চলে আসায় এলাকাবাসীর মধ্যে চরম আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। হাতি গুলোকে বনে ফেরাতে ও ক্ষয়ক্ষতি লোকজনকে বাঁচাতে সেখানে কাজ করছেন বন বিভাগের কর্মীরা।

বন বিভাগের চুনতি রেঞ্জ কর্মকর্তা মনজুরুল আলম সিবিএন-কে বলেন, খবর পেয়ে বৃহস্পতিবার সকাল ১১ টা থেকে উপজেলা প্রশাসনের লোকজনসহ আমরা ঘটনাস্থলে কাজ করছি। তিনি আরো বলেন, এখন পাকা ধানের মওসুম। হাতির খাবারের মধ্যে পাকাধান খুবই পছন্দ। তাই বনে খাদ্য সংকট থাকায় বন্য হাতিগুলো পাকাধান খাওয়ার জন্য রাতে লোকালয়ে চলে এসেছে। সকাল হয়ে যাওয়ায় হাতিগুলো আর বনে যেতে না পেরে একটি গাছের নিচে হাতি গুলো আশ্রয় নিয়েছে। হাতি গুলো নিয়ন্ত্রণ করতে বন বিভাগের কর্মীরা মাঠে রয়েছেন। তবে উৎসুক লোকজনের ভীড়ের জন্য তাদের কাজ করতে অসুবিধা হচ্ছে। হাতি বের হওয়ার পথও বন্ধ করে দিয়েছে লোকজন। লোকজনের ভিড় দেখে হাতি গুলো বেপরোয়া হয়ে উঠতে পারে।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে লোহাগাড়া থানার উপপরিদর্শক (এসআই) আবদুল হক সিবিএন-কে বলেন, খবর পেয়ে বন-বিভাগের লোকজন সহ আমরা ঘটনাস্থলে আছি। হাতি গুলো দেখতে বিভিন্ন এলাকা থেকে দলে দলে লোক আসছে। বন বিভাগের লোকজনকে ভিড় সামলাতে বেগ পেতে হচ্ছে। উৎসুক লোকজনকে নিয়ন্ত্রণ করতে পুলিশ কাজ করছে। সেখানে এখানো পর্যন্ত আমরা ১৪ টা হাতি দেখেতে পেয়েছি।
এই রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত হাতি গুলো ঘটনাস্থলে রয়েছে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •