সংবাদদাতাঃ
তৃণমূল পর্যায়ে দেশের অসহায় ও দারিদ্র জনগোষ্ঠির যে কোন ব্যক্তির যখন কোন আইনগত অধিকার ক্ষুন্ন হয় তখন এর প্রতিকার পাওয়ার জন্য তাকে আইন-আদালতের আশ্রয় নিতে হয়। কিন্তু আমাদের দেশে আইন আদালতের আশ্রয় নেয়া অনেক সময় ব্যয়সাপেক্ষ হওয়ায় এই জনগোষ্ঠী তাদের নাগরিক তথা আইনগত প্রতিকার পায়না।
ফলে লঙ্ঘিত হয় এসব দরিদ্র মানুষের মৌলিক অধিকার। এরই প্রেক্ষাপটে সরকার ২০০০ সালে সম্পূর্ণ বিনা খরচে দরিদ্র মানুষের আইনের আশ্রয় লাভের অধিকার নিশ্চিত করার জন্য “আইনগত সহায়তা প্রদান আইন ২০০০ “প্রনয়ন করে এবং ২০১১সালে প্রনয়ন করা হয় এ সংক্রান্ত প্রবিধানমালা। পরবর্তীতে সরকার দেশ ব্যাপী আইনগত সহায়তা কার্যক্রম পরিচালনার জন্য” জাতীয় আইনগত সহায়তা প্রদান সংস্থা” গঠন করে এবং উচ্চ আদালতে সুপ্রীম কোর্ট লিগ্যাল এইড কমিটি, জেলা, উপজেলা ও ইউনিয়ন লিগ্যাল এইড কমিটি গঠন করে। প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর আইনগত সহায়তা প্রদানের ক্ষেত্রে ইউনিয়ন লিগ্যাল এইড কমিটি পালন করে আসছে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা।
বৃহস্পতিবার সকালে সদরের পোকখালী ইউনিয়ন পরিষদ মিলনায়তনে ইউএনডিপির সার্বিক সহযোগিতায় এবং জাতীয় ও জেলা লিগ্যাল এইড সংস্থার বাস্তবায়নে অনুষ্ঠিত হলো ইউনিয়ন লিগ্যাল এউড কমিরটির সচেতনতা মূলক সভা।
অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন ইউপি চেয়ারম্যান ও সভাপতি ইউনিয়ন লিগ্যাল এইড কমিটি রফিক আহমদ।
সভাপতির সংক্ষিপ্ত বক্তব্যে চেয়ারম্যান বলেন, গ্রামীন অসহায় ও দরিদ্র জনগোষ্ঠীর সম্পূর্ণ বিনা খরচে আইনগত সহায়তা পেতে গুরুত্বপূর্ণ ভূৃমিকা রেখে চলেছে লিগ্যাল এইড তথা জাতীয় আইনগত সহায়তা সংস্থা।
ইউএনডিপি’র ন্যাশনাল লিগ্যাল এইড অফিসার ওয়াহিদুল আলমের সঞ্চালনায় ও ইউপি সচিব ও সদস্যসচিব এম নুরুল কাদের’র স্বাগত বক্তব্যের মধ্যদিয়ে শুরু হওয়া সভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন- সাবেক চেয়ারম্যান আলহাজ্ব কবির আহমদ, এলাকার প্রবীন ব্যক্তি মাওলানা শফিউল ইসলাম, সংবাদকর্মী ওসমান গনি।
এতে সম্মানীত ইউপি সদস্য ছাড়াও বিভিন্ন ক্যাটাগরির মধ্যে শিক্ষক, ইমাম, স্বাস্থ্য, কৃষি, এনজিও প্রতিনিধিসহ শতাধিক ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •