আমার ছেলে এ+ পাবে তো!

ফেসবুক বর্ণারঃ
একজন ছাত্র বেশি দুর্বল হওয়ায় ৫ম শ্রেণীতে ভর্তি না দিয়ে পরপর তিনবার ফেরত দেওয়ায় অভিভাবক অনেকটা জোর করে বললেন, ভাই দয়া করে ছেলেটাকে স্কুলে রেখে দেন। পাশ করার দরকার নেই। প্রয়োজনে ৫ম শ্রেণিতে দুই বছর থাকবে।
আমি বললাম, তা কি করে সম্ভব? দুই বছর!!!
তিনি বললেন- ভাই ছেলে যে স্কুলে পড়েছে তা অনেক নামি-দামি ও ব্যয়বহুল। সিস্টেমও খুব ভাল।
আমার কপাল খারাপ। ছেলের দুষ্টুমি, ঝগড়াঝাটি, অসৎ আচরণের কারণে বিশেষ করে খারাপ বন্ধুদের আড্ডায় পড়ে আমাদের (মা-বাবা)কথা শুনে না।
এত ছোট ছেলে মা- বাবার কথা শুনেনা? মানে বুঝলামনা?
আড্ডা বা করার সময় কোথায় তার?
তিনি বললেন, বুঝবেন না স্যার।
ভীষণ কষ্টে আছি। তার পড়ালেখা লাগবেনা। আদবকায়দা শিখিয়ে মানুষ করতে পারলে হবে।
আমি শুনেছি, আপনাদের স্কুলে নিয়মশৃঙ্খলা খুবই ভাল।
আদবকায়দা/নৈতিক শিক্ষার উপর বেশি গুরুত্ব দেওয়া হয় শুনে বার বার এসেছি। দয়াকরে ফেরত দিয়েন না। প্রয়োজনে দুই বছর পাশে রেখে ভাল কিছু শেখাতে চেষ্টা করুন। ভাল রেজাল্টের দরকার নেই।
ভর্তি কমিটিকে অনুরোধ করে ছেলেকে ভর্তি করানোর প্রায় ছয়মাস পর ছেলেটির বাবা খুশি হয়ে সবার জন্য নাস্তা নিয়ে অফিসে উপস্থিত।
আমাকে বলেন, স্যার ছেলেটার জীবনে এখন অনেক পরিবর্তন। পাঁচওয়াক্ত নামাজ নিয়মিত আদায় করে। সবাইকে সালাম করে।
সবচেয়ে খুশির খবর হল, আমাদের (মা-বাবা) সাথে খুবই ভাল আচরণ করে। কথা মেনে চলে। হোস্টেল হতে বাড়ি গেলে আগের মত আড্ডা দিতে বাড়ি হতে বের হয়না। ছেলের এই পরিবর্তনে আমি খুবই খুশি।
সেই তিনি (অভিভাবক) পিইসি পরীক্ষার একদিন আগে এসে যদি বলেন, স্যার আমার ছেলে এ+ পাবে তো!!!!
এতদিন পড়িয়ে যদি এ+ না পায় তাহলে…
সম্মানিত পাঠক,
আশ্চর্য হয়েছেন???
আমি কিন্তু আশ্চর্য হইনি।
উনাকে মনে করিয়ে দিইনি যে, ভর্তির সময়ে ওনার আকুতি ও প্রতিশ্রুতির কথা।
শুধু বলেছি, একজন ভাল/আদর্শবান ছাত্রের প্রায় গুণাবলি অতি অল্প বয়সে আপনার ছেলে রপ্ত করবে ভাবতে ও পারিনি। তাছাড়া এ+ পাওয়ার সম্ভাবনা অবশ্যই আছে।
তবে, বারবার ফেল করা, ডানপিটে, পিতার মাতার অবাধ্য ছেলেটা এতটুকু ভাল হয়ে এ/এ- পেলেও মন্দ কি!!!!!!
তিনি বিষয়টি বুঝতে পেরে বললেন, ভাই মনে কিছু নিবেন না। সরকারি স্কুলে ৬ষ্ঠ শ্রেণীতে ভর্তি করানোর দীর্ঘদিনের স্বপ্ন। তাই এ+টা জরুরী।
তাছাড়া এ+ অর্জন করতে না পারলে লেখাপড়া করিয়ে লাভ কি? জীবনে কোথাও চান্স পাবেনা।
মান সম্পন্ন শিক্ষার পাশাপাশি ভালমানুষ হওয়া, আলোকিত মানুষ বানানো আমাদের মুল উদ্দেশ্য এবং ছয়মাস আগে আপনার পক্ষ হতে স্বীকৃতিই প্রমাণ করে।
আলহামদুলিল্লাহ এক্ষেত্রে আইডিয়াল সফল।
তবে আল্লাহ আপনার আশা কবুল করুন বলে শেষ বিদায় দিলাম।
স্কুল/মাদ্রাসার সকল পরীক্ষার্থীর প্রতি আইডিয়াল শিক্ষা পরিবারের পক্ষ হতে শুভ কামনা।

(মিজানুর রহমান, অধ্যক্ষ, আইডিয়াল স্কুল, বাংলাবাজার, ঝিলংজা, সদর,  কক্সবাজার  এর ফেসবুক ওয়াল থেকে)

সর্বশেষ সংবাদ

‘অবিবাহিত যুগল হোটেলে থাকা অপরাধ নয়’

বাহারছ‍ড়া ওয়াপদা মসজিদ সংলগ্ন এতিমখানা ও মাদ্রাসার ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন

চট্টগ্রাম-৮ আসনে আওয়ামীলীগের মনোনয়ন পেলেন মোছলেম উদ্দিন

কক্সবাজার সদর থানা পুলিশের অভিযানে গ্রেফতার- ১৭

শাপলাপুর ইউপি নির্বাচনে নিয়োজিত ১৫৪ জন কর্মকর্তার প্রশিক্ষণ অনুষ্ঠিত

কক্সবাজার জেলা ফুটবল লীগ বন্ধে শেষ সময়ে বাফুফের চিঠি

চেয়ারের জন্য নয়, মানবসেবার জন্য নেতৃত্ব -মেয়র মুজিব

পশ্চিম লারপাড়ায় মাদক ও সন্ত্রাস বিরোধী আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত

এসএ গেমসে ছেলেদের ক্রিকেটেও সোনা জিতল বাংলাদেশ

ভারতীয় পাথর বহনকারী ট্রেন থে‌কে ২৩৫ বোতল ফেন‌সি‌ডিল উদ্ধার

মহান বিজয় দিবস পালনে জোয়ারিয়ানালা স্বেচ্ছাসেবক টিমের প্রস্তুতি সভা

চকরিয়ায় আন্তর্জাতিক দুর্নীতিবিরোধী দিবস পালিত

কক্সবাজার ইন্টারন্যাশনাল স্কুলে শিক্ষক নিয়োগ

ভারতের মুসলিমবিরোধী নতুন আইন ঘিরে বিতর্ক কেন?

আন্তর্জাতিক বড় ক্রীড়া আসরে ৪ বছর নিষিদ্ধ রাশিয়া

চট্টগ্রামে ছিনতাই চক্রের ৫ সদস্য গ্রেফতার

কক্সবাজারে আন্তর্জাতিক দুর্নীতি বিরোধী দিবস উদযাপন

টেকনাফে রোহিঙ্গা ক্যাম্পে আশ্রয় দাতার দুই বছরের ছেলেকে নিয়ে মহিলা উধাও

বীর বাহাদুরের আন্তরিকতায় পাল্টে যাচ্ছে বাইশারী-ঈদগড় সড়ক

বেগম রোকেয়ার স্বপ্ন আমরা বাস্তবায়ন করছি- এমপি আশেক