মুহাম্মদ আবু সিদ্দিক ওসমানী :

প্রাথমিক (জেএসসি) ও ইবতেদায়ি শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষা রবিবার ১৭ নভেম্বর শুরু হচ্ছে। ছোটদের এ বড় পরীক্ষা শেষ হবে ২৪ নভেম্বর। এ পরীক্ষা প্রতিদিন সকাল সাড়ে ১০টায় শুরু হয়ে শেষ হবে দুপুর ১টায়।

দেশে প্রাথমিক ও ইবতেদায়ী শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষার্থীর সংখ্যা মোট ২৯ লাখ ৩ হাজার ৬৩৮ জন। সারাদেশে মোট ৭ হাজার ৪৭০টি এবং দেশের বাইরে ৮টি পরীক্ষা কেন্দ্রে এ পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষায় ২৫ লাখ ৫৩ হাজার ২৬৭ জন শিক্ষার্থী অংশ নেবে। এর মধ্যে ছাত্র ১১ লাখ ৮১ হাজার ৩০০ জন এবং ছাত্রী ১৩ লাখ ৭১ হাজার ৯৬৭ জন।
ইবতেদায়ি শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষায় অংশ নেবে ৩ লাখ ৫০ হাজার ৩৭১ জন পরীক্ষার্থী। এর মধ্যে ছাত্র ১ লাখ ৮৭ হাজার ৮২ জন এবং ছাত্রী ১ লাখ ৬৩ হাজার ২৮৯ জন। দেশের বাইরে পরীক্ষার্থীর সংখ্যা ৬১৫ জন।

এবার বিশেষ চাহিদাসম্পন্ন পরীক্ষার্থীদের জন্য নির্ধারিত সময়ের চেয়ে অতিরিক্ত ৩০ মিনিট সময় বরাদ্দ থাকবে। ৬টি বিষয়ের প্রতিটিতে ১০০ করে মোট ৬০০ নম্বরের এ পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। প্রাথমিক ও ইবতেদায়ী শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষা সুষ্ঠু ও স্বচ্ছতার সঙ্গে শেষ করতে ইতোমধ্যে সব ধরনের প্রস্তুতি সম্পন্ন করা হয়েছে। বিশেষ নিরাপত্তার সঙ্গে প্রশ্নপত্র প্রণয়ন, মুদ্রণ ও বিতরণ কাজ শেষ হয়েছে বলে সংশ্লিষ্ট সুত্র সিবিএন-কে নিশ্চিত করেছেন। দেশের দুর্গম এলাকার ১৮৪টি কেন্দ্রে বিশেষ ব্যবস্থায় প্রশ্নপত্র পাঠানো হয়েছে।

কক্সবাজার জেলা :

কক্সবাজার জেলায় এবার মোট ৫৫৪১৯ জন প্রাথমিক ও ইবতেদায়ি শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষার্থী রয়েছে। তারমধ্যে, প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষার্থী ৪১৪১৮ জন এবং ইবতেদায়ী সমাপনী পরীক্ষার্থী ১৪০০১ জন। জেলায় শিক্ষা প্রাথমিক সমাপনী পরীক্ষা কেন্দ্র মোট ১০৬ টি। ইবতেদায়ী শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষা কেন্দ্র মোট ৯৭ টি।

প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষায় কক্সবাজার সদর উপজেলায় ৭৫৫৯ জন, রামু উপজেলায় ৪৯৫৭ জন, চকরিয়া উপজেলায় ৮৩৯৮ জন, পেকুয়া উপজেলায় ২৮৬৩ জন, কুতুবদিয়া উপজেলায় ৩৮১৬ জন, মহেশখালী উপজেলায় ৫৭১৩ জন, উখিয়া উপজেলায় ৪৩৫৫ জন ও টেকনাফ উপজেলায় ৩৭৫৭ জন। অপরদিকে, ইবতেদায়ী শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষায় কক্সবাজার সদর উপজেলায় ৩৩৯১ জন, রামু উপজেলায় ১২৬৯ জন, চকরিয়া উপজেলায় ২৮০৬ জন, পেকুয়া উপজেলায় ১২৩৮ জন, কুতুবদিয়া উপজেলায় ৩৮৭ জন, মহেশখালী উপজেলায় ১৭৯৮ জন, উখিয়া উপজেলায় ১২৬৫ জন ও টেকনাফ উপজেলায় ১৮৪৭ জন। কক্সবাজার জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসের স্টাফ মোহাম্মদ ইয়াসিন সিবিএন-কে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। রোববার ১৭ নভেম্বর প্রথম দিন ইংরেজি বিষয়ে পরীক্ষার গ্রহণে মাধ্যমে ছোটদের এই বড় পরীক্ষা শুরু হবে। এটি দেশের সবচেয়ে বেশী সংখ্যক পরীক্ষার্থীর পাবলিক পরীক্ষা।

এদিকে, পিএসসি ও ইবতেদায়ী শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষা গ্রহণে সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন করা হয়েছে বলে উল্লেখ করে কক্সবাজার জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার মোঃ সফিউল আলম সিবিএন-কে বলেন কেন্দ্রে প্রশ্ন, খাতা সহ আনুষঙ্গিক সরঞ্জামদি আনা নেয়ায় প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। তিনি জানান, জেলার পরীক্ষা কেন্দ্র গুলোতে নিরাপত্তা, নিরাপদ ও সুষ্ঠু পরীক্ষা গ্রহনের জন্য প্রয়োজনীয় সংখ্যক নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট, পুলিশ সহ সমুদয় পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে। সুষ্ঠু ও সুন্দরভাবে পরীক্ষা গ্রহনে ডিপিইও মোঃ সফিউল আলম সংশ্লিষ্ট সকলের আন্তরিক সহযোগিতা কামনা করেছেন।

কক্সবাজার জব্বারিয়া একাডেমি কেন্দ্রের সচিব ও একাডেমির প্রধান শিক্ষক মোহাম্মদ ছৈয়দ করিম সিবিএন-কে জানান, তাঁর কেন্দ্রে প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষা গ্রহণের জন্য সীট বসানো সহ সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন করা হয়েছে। পরীক্ষা গ্রহনে কোন সংকট নেই বলে জানান তিনি। একই কেন্দ্রের সুপার ও ছনখোলা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আবদুল হামিদ জানান, এই কেন্দ্রে মোট ৭৪৪ জন পরীক্ষার্থী রয়েছে। পরীক্ষার্থীরা সবাই কক্সবাজার পৌরসভার ৫ ও ৭ নম্বর ওয়ার্ডের বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শিক্ষার্থী। তিনি পরীক্ষার্থীদের প্রথম দিন নিজ নিজ সিট খুঁজে নিতে কমপক্ষে এক ঘন্টা আগে পরীক্ষা কেন্দ্রে আসার জন্য পরীক্ষার্থীদের পরামর্শ দিয়েছেন। কক্সবাজার আদর্শ মহিলা কামিল মাদ্রাসা কেন্দ্রের সহ সুপার ও পশ্চিম চৌফলদন্ডী হাকিমিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক দ্বীন মুহাম্মদ সিবিএন-কে জানান, তাঁর পরীক্ষা কেন্দ্রে প্রাথমিক ও ইবতেদায়ী শিক্ষা সমাপনী উভয় ক্যাটাগরীর মোট ৭৮২ জন পরীক্ষার্থী রয়েছে। পরীক্ষা গ্রহণের যাবতীয় প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছেন বলে সহ সুপার দ্বীন মুহাম্মদ সিবিএন-কে জানিয়েছেন।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •