মুহাম্মদ আবু সিদ্দিক ওসমানী :

লোহাগাড়া আলহাজ্ব মোস্তাফিজুর রহমান কলেজের অধ্যক্ষ মোহাম্মদ ফজলুল হকের মাতা ও কক্সবাজার সিটি কলেজের পদার্থ বিজ্ঞান বিভাগের বিভাগীয় প্রধান জেবুন্নেছা বারী’র শ্বাশুড়ি জেবুন্নেছা (৭৯) ইন্তেকাল করেছেন (ইন্নালিল্লাহি ওইন্নাইলাইহি রাজিউন)। বৃহস্পতিবার ১৪ নভেম্বর মাগরিবের পর চট্টগ্রাম শহরের ম্যাক্স হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি জেবুন্নেছা মারা যান। মরহুমার জেবুন্নেছা’র স্বামী ছিলেন পটিয়া পৌরসভার ৭ নম্বর ওয়ার্ডের বাহুলী এলাকার প্রখ্যাত আইনজীবী মরহুম এডভোকেট মোহাম্মদ আবুল বশর। মরহুমা জেবুন্নেছা মৃত্যুকালে ৬ পুত্র ও ৪ কন্যা সন্তান রেখে যান। ৬ পুত্র সন্তানের মধ্যে প্রথম পুত্র এডভোকেট মাহমুদুল হক দুর্নীতি দমন কমিশনের পিপি, দ্বিতীয় পুত্র মোহাম্মদ ফজলুল হক রামু সরকারি কলেজে দীর্ঘ ১৮ বছর পদার্থ বিজ্ঞান বিষয়ের অধ্যাপক ছিলেন। এরপর তিনি চকরিয়া উপজেলার বদরখালী কলেজের অধ্যক্ষ ছিলেন সাড়ে ৩ বছর। বর্তমানে মোহাম্মদ ফজলুল হক লোহাগড়া উপজেলার আলহাজ্ব মোস্তাফিজুর রহমান কলেজের অধ্যক্ষ হিসাবে দায়িত্ব পালন করছেন। তৃতীয় পুত্র মোহাম্মদ এ.টি.এম রফিকুল হক চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের ফরেস্ট্রী বিভাগের অধ্যাপক। চতুর্থ পুত্র মোহাম্মদ রাশেদুল হক একজন সুপ্রতিষ্ঠিত ব্যবসায়ী। পঞ্চম পুত্র মোহাম্মদ জিয়াউল হক লন্ডনের বিখ্যাত একটি বিশ্ববিদ্যালয়ে পিএইচডি গবেষক। কনিষ্ঠ পুত্র মোহাম্মদ নাসিমুল হক অগ্রণী ব্যাংক চট্টগ্রাম হালিশহর শাখার ব্যাবস্থাপক। কন্যাদের মধ্যে ডা. কামরুন নাহার একজন বিশিষ্ট চিকিৎসক। বাকী ৩ কন্যাও স্নাতকোত্তর ডিগ্রি অর্জন করেছেন।

জানাজা :
মরহুমা জেবুন্নেছা’র ১ম নামাজে জানাজা পটিয়া শাহ চান্দ আউলিয়া আলিয়া মাদ্রাসা প্রাঙ্গণে শুক্রবার সকাল ১০টায় এবং ২য় নামাজে জানাজা একইদিন বাদ জুমা সাতকানিয়া উপজেলার মৌলভীর দোকান মিয়া খলিলুর রহমান জামে মসজিদ প্রাঙ্গণে অনুষ্ঠিত হবে বলে মরহুমার সন্তান অধ্যক্ষ মোহাম্মদ ফজলুল হক সিবিএন-কে জানিয়েছেন।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •