সংবাদ বিজ্ঞপ্তি:
ঐতিহ্যবাহী শিক্ষা প্রতিষ্ঠান শহীদ তিতুমীর ইনস্টিটিউটে ২০১৯ সালের পি.এস.সি পরীক্ষার্থীদের বিদায়ী সংবর্ধনা ও দোয়া মাহফিল বৃহস্পতিবার (১৪ নভেম্বর) ইনস্টিটিউটের প্রধান শাখাস্ত ক্যাম্পাসে অনুষ্ঠিত হয়।

এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের উদ্ভিদ বিজ্ঞান বিভাগের বিভাগীয় প্রধান প্রফেসর ড. মোক্তার আহমদ।

ইনস্টিটিউটের প্রতিষ্ঠাতা ও পরিচালক মুহাম্মদ শফিকুল হকের সভাপতিত্বে এতে স্বাগত বক্তব্য রাখেন প্রধান শাখার সহকারী পরিচালক নেছারুল হক।

তিনি অনুষ্ঠানে বিপুল সংখ্যক অভিভাবিকার উপস্থিত দেখে তাদের ভুঁইয়সী প্রশংসা করে প্রধান অতিথি বলেন, শিক্ষার সর্বোচ্চ আসনে পদার্পনের জন্য মায়ের ভূমিকা অনস্বীকার্য। ভালো ফলাফলের পাশাপাশি, আদর্শ মানুষ গড়ার জন্য তিনি শিক্ষক, অভিভাবক, অভিভাবিকাদের আহবান জানান।

তিনি আরও বলেন, পরিবার, সমাজ ও দেশের উন্নয়নে শিক্ষার কোনো বিকল্প নেই। আর এ উন্নয়নে দেশ গড়ার লক্ষ্যে কাজ করে যাচ্ছে শহীদ তিতুমীর ইনস্টিটিউট।

প্রধান বক্তা হিসেবে ছিলেন কক্সবাজার সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোঃ নাছির উদ্দিন।

তিনি অনুষ্ঠানে বিপুল সংখ্যক উপস্থিতি দেখে আবেগ আপ্লুত হন। তিনি ইনস্টিটিউটের প্রশংসা করে বলেন, শহীদ তিতুমীর ইনস্টিটিউট কক্সবাজার জেলার একটি শ্রেষ্ঠ প্রতিষ্ঠান। প্রতি বছর বিপুল সংখ্যক ছাত্র-ছাত্রী শীর্ষ স্থান অর্জন করে কক্সবাজার শহরের দুই সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ে ভর্তির সুযোগ পান। তিনি বলেন, আমি আমার প্রতিষ্ঠানে দেখেছি শহীদ তিতুমীর ইনস্টিটিউটের শিক্ষার্থীরা খুবই চরিত্রবান, আদর্শবান এবং নৈতিক গুণাবলী সম্পন্ন।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন অভিভাবক মাষ্টার আব্দুর রহিম সাবেক চেয়ারম্যান খুরুশকুল ইউনিয়ন পরিষদ।

বক্তব্য রাখেন ইনস্টিটিউটের শিক্ষক মাহবুবুল হক, অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন বিশিষ্ট সমাজ সেবক আল বয়ান ফাউন্ডেশনের ভাইস চেয়ারম্যান মমতাজুল ইসলাম বি.কম, ও মাম্মী এন্টারপ্রাইজের সত্বাধিকারী নুর মোহাম্মদ আলী চৌধুরী। অনুষ্ঠান শেষে বিগত ২০১৮ সালের প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষায় ট্যালেন্টপুলে বৃত্তি ও এ+ প্রাপ্তদের পুরস্কৃত করা হয়। এছাড়া ২০১৮ সালের বাংলাদেশ কিন্ডার গার্টেন এবং কক্সবাজার জেলা কিন্ডার গার্টেন বৃত্তি পরীক্ষায় বৃত্তি প্রাপ্তদের অর্থ ও সনদ বিতরণ করা হয়। বাদে যোহর পি.এস.সি পরীক্ষার্থীদের সফলতা কামনা করে মিলাদ ও দোয়া করা হয়। দোয়া পরিচালনা করেন, শহিদ তিতুমীর জামে মসজিদের খতিব, হাফেজ মৌলানা আবুল মঞ্জুর, সঞ্চালনায় ছিলেন, হাফেজ হেলাল উদ্দিন।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •