মুহাম্মদ আবু সিদ্দিক ওসমানী :

কক্সবাজার জেলা ইজতেমা ময়দানে আগত মুসল্লীদের জন্য নিশ্চিদ্র নিরাপত্তা ব্যবস্থা শতভাগ নিশ্চিত করা হয়েছে। সেখানে উচ্চ পদস্থ পুলিশ কর্মকর্তাদের নেতৃত্বে পুলিশের চৌকস টিম সার্বক্ষনিক দায়িত্ব পালন করবে। ইজতেমা ময়দানে পুলিশ সিসিটিভি ক্যামেরা দিয়ে পর্যবেক্ষন করবে। এছাড়াও ইজতেমা ময়দানের প্রতিটি কোনায় কোনায় পর্যবেক্ষন টাওয়ার ও মেটাল ডিটেক্টর বসানো হয়েছে। তারপরও কোন দুষ্কৃতকারী ইজতেমা ময়দানে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করতে চাইলে তাদের বিরুদ্ধে কঠোর আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

কক্সবাজার জেলার সদর মডেল থানার আওতাধীন বিমানবন্দরের পশ্চিমে সমিতি বাজার এর পাশে সমুদ্র সৈকত সংলগ্ন ডায়াবেটিক পয়েন্টের উত্তরে ঝাউবন এলাকায় ৭ নভেম্বর থেকে অনুষ্ঠানরত কক্সবাজার জেলা ইজতেমা সুষ্ঠ ও শান্তিপূর্ণভাবে সম্পন্ন করার লক্ষে সার্বিক নিরাপত্তায় নিয়োজিত পুলিশ সদস্যের উদ্দেশ্যে কক্সবাজার জেলা পুলিশ লাইন্স মাঠে ব্রিফিং প্রদানকালে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন) মোহাম্মদ ইকবাল হোসেন একথা বলেন। বৃহস্পতিবার ৭ নভেম্বর অনুষ্ঠিত ব্রিফিং এ এডিশনাল এসপি মোহাম্মদ ইকবাল হোসাইন পুলিশ সদস্যদের উদ্দেশ্যে বলেন, ইজতেমা ময়দানে আগত মুসল্লীদের সেবায় দায়িত্ব পালন করা শুধু পেশাগত কর্তব্য নয়, এটা একটা নিঃসন্দেহে বিশাল পূণ্যের কাজও। তাই সততা, নিষ্ঠা ও পেশাদারিত্বের সাথে পুলিশের দায়িত্বপ্রাপ্ত সকলকে নিজ নিজ দায়িত্ব পালন করার আহবান জানান।

ব্রিফিং এ আরো উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (ইনসার্ভিস) রেজওয়ান আহমেদ, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) আদিবুল ইসলাম, ডিআইও-১, কক্সবাজার সদর মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) সৈয়দ আবু মোঃ শাহজাহান কবির, একই থানার ইন্সপেক্টর (তদন্ত) মোঃ খায়রুজ্জামান সহ জেলা পুলিশের বিভিন্ন কর্মকর্তা এবং কর্মচারীবৃন্দ।

পরে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন) ইকবাল হোসাইনের নেতৃত্বে একদল পুলিশ ইজতেমা মাঠে গিয়ে সেখানকার সার্বিক নিরাপত্তা ব্যবস্থা তদারকি এবং উপস্থিত মুসল্লিদের সাথে কুশল বিনিময় করেন। এসময় অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন) মোহাম্মদ ইকবাল হোসাইন আইনশৃংখলা ও নিরাপত্তা সংক্রান্ত যেকোন বিষয়ে ইজতেমায় স্থাপনকৃত পুলিশের নিয়ন্ত্রণ কক্ষে যোগাযোগ করার জন্য মুসল্লীদের অনুরোধ জানান।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •