নীতিশ বড়ুয়া, রামু:
বাংলাদেশে নিযুক্ত ভারতীয় হাইকমিশনারের রীভা গাঙ্গুলী দাসের সাথে একান্ত বৈঠক করেছেন কক্সবাজার-৩ (সদর-রামু) আসনের সংসদ সদস্য আলহাজ্ব সাইমুম সরওয়ার কমল। শনিবার (২ নভেম্বর) সকালে কক্সবাজারের একটি অভিজাত হোটেলে এ গুরুত্বপুর্ণ বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। এ সময় একান্ত আলাপকালে তথ্য মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য সাইমুম সরওয়ার কমল এমপি বর্তমান সরকারের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে পর্যটন শহর কক্সবাজারসহ বাংলাদেশের অভুতপূর্ব উন্নয়নের চিত্র তোলে ধরেন। বাংলাদেশের সাথে ভারতের সম্পর্ক ঐতিহাসিক এবং সুদৃঢ়। যাহা প্রমানিত সত্য ১৯৭১ সালে বাংলাদেশের মহান মুক্তিযুদ্ধ। স্বাধীনতা সংগ্রামে ভারতের আন্তরিকতাপুর্ণ সহযোগিতার কথা বাংলাদেশের মানুষ এখনো কৃতজ্ঞতার সাথে স্মরণ করে। ভবিষ্যতেও কৃতজ্ঞতার সাথে স্মরণ রাখবে। এমপি কমল রোহিঙ্গা সমস্যার স্থায়ী সমাধানে ভারতের সহযোগিতা কামনা করেন। বৈঠকে বাংলাদেশ ও ভারতের পানি ও স্থল সমস্যাসহ সকল প্রকার সমস্যার বিষয়ে গুরুত্বপুর্ণ আলাপ করা হয়।

“ভারত-বাংলাদেশ সম্পর্ক বিশ্বে রোল মডেল” মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার এ উক্তির কথা উল্লেখ করে এমপি কমল বৈঠকে দু’দেশের সম্পর্ক সুরক্ষিত করে পারষ্পরিক বিশ্বাসযোগ্যতার মাধ্যমে সন্ত্রাস দমন, বানিজ্য ঘাটতি কমিয়ে ঊভয় দেশের ব্যবসা-বাণিজ্যে ভারসাম্য ফিরিয়ে আনার কথা উল্লেখ করেন। আলাপকালে রামুর ঐতিহাসিক রামকোট তীর্থধামসহ সনাতন সম্প্রদায়ের তীর্থস্থানগুলোর উন্নয়নে ভারতের সরকারের সার্বিক সহযোগিতার কামনা করেন সাইমুম সরওয়ার কমল এমপি।

ভারতীয় হাইকমিশনার রীভা গাঙ্গুলী দাস অতীতের মতো ভারত সরকার কক্সবাজারসহ বাংলাদেশের উন্নয়ন অগ্রযাত্রায় মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার পাশে আছেন এবং ভবিষ্যতেও পাশে থাকবেন বলে জানান। তিনি বাংলাদেশে বিরাজমান সমস্যার কথা ভারত সরকারের কাছে তোলে ধরবেন বলেও উল্লেখ করেন। এসময় ভারতীয় ডেপুটি হাইকমিশনার (চট্টগ্রাম) অনিন্দ ব্যানার্জি উপস্থিত ছিলেন। আলহাজ্ব সাইমুম সরওয়ার কমল এমপি বাংলাদেশ-ভারত বন্ধুত্ব সংলাপ এর সফলতা কামনা করে কক্সবাজারে আগত ভারত ও বাংলাদেশের মাননীয় মন্ত্রীপরিষদ সদস্য, জাতীয় সংসদ সদস্য, রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দসহ সংশ্লিষ্টদের প্রতি কৃতজ্ঞতা ও ধন্যবাদ জানান। বিকালে আলহাজ্ব সাইমুম সরওয়ার কমল এমপি রামু উপজেলার পূর্ব রাজারকুল সদ্ধর্মোদ্বয় বৌদ্ধ বিহারে দানোত্তম শুভ কঠিন চীবর দানোৎসবে ও খুনিয়া পালং ইউনিয়নে ফুটবল টুর্ণামেন্টের ফাইনাল খেলায় প্রধান অতিথির বক্তৃতা করেন।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •