বিশেষ প্রতিনিধি :

পুলিশের অভিযানে কক্সবাজারের অনলাইন ক্যাসিনোর প্রধান মোস্তফা কামাল আটকের পর বন্ধ হয়নি কক্সবাজারের অনলাইন জুয়া।বাংলাদেশ -ভারত ক্রিকেট সিরিজকে সামনে রেখে কক্সবাজারের অনলাইন ক্যাসিনো জুয়াড়ীরা সক্রিয় হয়ে উঠেছে। ইসতিয়াক আহমেদ শিমুল ও রিশি দে নামের দুই অনলাইন ক্যাসিনো ব্যবসায়ী আবার ২ কোটি টাকার ডলার কয়েন নিয়ে মাঠে নেমেছে। খবর পেয়ে অনলাইন ক্যাসিনো ব্যবসায়ী শীমুলের সাহিত্যিকা পল্লীর বাসায় পুলিশ অভিযান চালিয়েছে। তবে পুলিশ আসার আগেই শিমূল পালিয়ে যায়।

ক্যাসিনো মোস্তফা আটকের পরে জেলা জুড়ে গা ঢাকা দিলেও কক্সবাজার থেকে আবারও টাকা হাতিয়ে নিতে সক্রিয় টেকনাফের অনলাইন ক্যাসিনোর প্রধান ইসতিয়াক আহমেদ শিমুল ও বড়বাজার স্বর্ণ ব্যবসায়ী রিশি দে।

ইসতিয়াক আহমেদ শিমুল টেকনাফের সাবরাং এর বাসিন্দা হলেও বর্তমানে শহরের সাহিত্যিকা পল্লী এলাকায় বসবাস করে। আর স্বর্ন ব্যবসায়ী রিশি দে থাকে শহরের ঘোনার পাড়া ও রুমালিয়ারছড়া এলাকায় দুটি বাসা ভাড়া নিয়ে অনলাইনে ব্যবসা করেন।

জানা গেছে, বাংলাদেশ দলের ভারত সিরিজকে সামনে রেখে এই দুই অনলাইন ক্যাসিনো ব্যাবসায়ী দুই কোটি টাকার কয়েন জোগাড় করে রেখেছে। কক্সবাজারের প্রতিটি উপজেলায় নতুন করে এজেন্ট বা ডিলার সংগ্রহ করছে এই দুই জুয়া ব্যবসায়ী। এরইমধ্যে ফারুক নামের এক ব্যক্তিকে রামু অনলাইন ক্যাসিনো বা জুয়ার নিয়ন্ত্রন দেয়া হয়েছে।

কক্সবাজারের অনলাইন কিং মোস্তফা মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা জেলা গোয়েন্দা পুলিশ কর্মকর্তা মাসুম খান জানান, এজাহারে অভিযুক্তদের বাইরেও আরো অনেকের নাম পাওয়া যাচ্ছে যারা এই অনলাইন জুয়ার সাথে জড়িত। তাদের ব্যাপারে অনুন্ধান করা হচ্ছে।
জানা গেছে, জেলা পুলিশ ইতোমধ্যে অনুসন্ধান করে ১৫০ জনেরও বেশি অনলাইন ক্যাসিনো জুয়াড়ি সনাক্ত করেছে। তাদেরকে গ্রেপ্তার করলে অনলাইন ক্যাসিনো মোটামুটি নিয়ন্ত্রণে চলে আসবে।

ছবির সংশোধনী : অসতর্কভাবে রিশি দে’র ছবির স্থলে অন্য আরেকজনের ছবি আসায় আমরা আন্তরিকভাবে দু:খ প্রকাশ করছি । এ বিষয়ে কাউকে বিভ্রান্ত না হওয়ার আহবান করছি। বর্তমানে ডান পাশের ছবিটিই রিশি দে’র ছবি – সম্পাদক  সিবিএন

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •