নিজস্ব প্রতিবেদক:

কক্সবাজার সদর উপজেলার ঈদগাঁও ইউনিয়নের কালির ছড়ায় সীমান বিরোধের জের ধরে ছকিনা খাতুন (৫৫) নামে এক বৃদ্ধাকে রড দিয়ে পিটিয়েছে ভাসুরের ছেলেরা। ভাসুরের পুত্রদের নিষ্ঠুর পিটুনিতে গুরুত্ব আহত হয়েছেন তিনি। তাকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় কক্সবাজার সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। শুক্রবার সকাল ৮টায় এই ঘটনা ঘটে। হামলার শিকার বৃদ্ধা ওই এলাকার নূরুল আলমের স্ত্রী।

হামলার শিকার বৃদ্ধার চাকরিজীবি পুত্র মোস্তাক আহমদ জানান, বসত ভিটার সীমানা নিয়ে তার জেঠাতো ভাইয়ের সাথে তাদের বিরোধ চলে আসছে। এর জের ধরে শুক্রবার সকালে দুপক্ষের মধ্যে কথা কাটাকাটি হয়। এক পর্যায়ে ঝগড়া বৃহৎ আকার ধারণ করে। এতে ভীত হয়ে মোস্তাক আহামদের মা ঝগড়া বড় না হওয়ার জন্য নিজের ছেলেদের বাড়ির ভেতর ঢুকিয়ে দরজায় তালা লাগিয়ে দেয়। এই সুযোগে শফিকুল হকের পুত্র এরফানুল হক ও ফয়সাল মিলে ক্ষিপ্ত হয়ে বৃদ্ধা ছকিনা খাতুনকে লোহার রড দিয়ে মাথাসহ পুরো শরীরে উপর্যুপরি পেটাতে থাকে। একটানা অনেকক্ষণ পেটানোতে মাথা ও শরীরের বিভিন্ন অংশে মারাত্মক জখম হয়ে রক্তক্ষরণ হয় তার। এই খবর পেয়ে পার্শ্ববর্তী লোকজন এগিয়ে আসলে হামলাকারীরা পালিয়ে যায়। পরে গুরুতর আহত বৃদ্ধা ছকিনা বেগমকে উদ্ধার করে কক্সবাজার সদর নিয়ে গিয়ে ভর্তি করা হয়। তার মাথা ও শরীরের বিভিন্ন অংশে সেলাই দিয়ে দেয়া হয়েছে। তার এখনো আশঙ্কাজনক বলে কর্তব্যরত চিকিৎসকেরা জানিয়েছেন। এই ঘটনায় ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন পুলিশ। মামলার প্রক্রিয়া চলছে।

মোস্তাক আহমদ আরো জানান, হামলাকারীরা পাঁচভাই প্রবাসী। প্রবাস থেকে ছুটিতে এমন নির্মম হামলা করেছে তারা। হামলার পর থেকে গোপনে আবারো বিদেশ পালিয়ে যেকে চেষ্টা করছে তারা। তাদের বিদেশ যাওয়া ঠেকাতে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন ভুক্তভোগী পরিবার।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •