এম আমান উল্লাহ আমান, টেকনাফ:
টেকনাফে মৎস্যজীবি, মাছ ব্যবসায়ি ও নৌকা মালিকদের নিয়ে ’পদ্ধতিগত মৎস্য ও সমুদ্র সম্পদ আহরণ এবং সংরক্ষণ’ বিষয়ক এক এডভোকেসি কর্মশালার অনুষ্টিত হয়েছে।

৩১ অক্টোবর বৃহস্পতিবার সকাল ১১.৩০ মিনিটে উপজেলা মিলনায়তনে টেকনাফ উপজেলা সিনিয়র মৎস্য কর্মকতা মো: দেলোয়ার হোসেন এর সভাপতিত্বে ইউএনএইচসিআর এর আর্থিক সহায়তায় সেন্টার ফর ন্যাচারাল রিসোর্স স্টাডিস (সিএনআরএস) ইমপ্রোভড ন্যাচারাল এনভায়রনমেন্ট এন্ড পিচফুল কোএকজিসটেন্স ফর রিফিউজিস এন্ড হোস্ট কমিউনিটিস প্রকল্পের মাধ্যমে এ কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়।

উক্ত কর্মশালার উদ্বোধক ও প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন টেকনাফ উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো রবিউল হাসান।

সিএনআরএস লাইভলীহুড অফিসার শাহ কামাল হোসেন এর সঞ্চালনায় কর্মশালা অনুষ্ঠানে টেকনাফ উপজেলা মৎস ফিল্ড অফিসার শহিদুল আলম , সিএনআরএস উপজেলা কোঅর্ডিনেটর প্রিয়াল মুৎসুদ্দীও টেকনাফ উপজেলা আওয়ামীলীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি জহির হোসেন(এম এ) বক্তব্য রাখেন।

অনুষ্টানের প্রধান অতিথি উপজেলা নির্বাহী অফিসার বলেন, এমন একটি গুরুত্বপূর্ণ উপযোগী কর্মশালা আয়োজনের জন্য সিএনআরএস কে ধন্যবাদ জানান। এবং আরও বলেন সমুদ্র সম্পদ আল্লাহ প্রদত্ত এক অফুরন্ত সম্পদ যদি আমরা তা সংরক্ষণ করতে পারি তাহলে দিনকে দিন তা বেড়েই যাবে এবং জাতীয় অর্থনীতিতে বর্তমানে যে অবদান রাখছে তা আরো উন্নীত অবদান রাখবে। প্রাকৃতিক সম্পদ যেমন তেল উত্তোলন করতে করতে এক সময় শেষ হবে কিন্তু সমুদ্র সম্পদ যদি আমরা দায়িত্বশীল ভাবে ’আহরণ ও সংক্ষণ করতে পারি তাহলে তা কোন দিন শেষ হবে না। নিষিদ্ধ কারেন্ট জাল এবং মাছ ধরার সরঞ্জাম ব্যবহার থেকে বিরত থাকার জন্য সকল মৎস্যজীবিদের উৎসাহিত করেন। মাছ ব্যবসায়ী সমিতির উদ্যোগে এবং এনজিওর সহযোগীতায় একটি কোল্ডস্টোরেজ স্থাপনের পরামর্শ দেন।

এতে অন্যান্য বক্তারা মৎস্য ও সমুদ্র সম্মদ আহরণ বিষয়ে বিস্তারিত আলোজনা করা হয়। মৎস্য ও সমুদ্র সম্পদ সংরক্ষণে মৎস্যজীবি তথা মাছের সাথে জড়িত সকল মানুষদের দয়িত্ববান হবার পরামর্শ দেয়া হয়। তাছাড়া কি ভাবে এই প্রাকৃতিক সম্পদ সংরক্ষণ করে সকল মনুষ উপকৃত হতে পারে সে বিষযেও আলোচনা করা হয়। মা ইলিশ রক্ষায় বন্ধ মৌসুম বাইশ দিন, সকল প্রকার মৎস্য আহরণ নিষিদ্ধ পঁয়ষট্টি দিন (২০ শে মে হতে ২৩ শে জুলাই) জাটকা আহরণ নিষিদ্ধ ৮ মাস (নভেম্বর হতে জুন) একল নিময় করা হয়েছে মৎস্য সম্পদরে উপর নির্ভরশীল মানুষের উপকারের জন্য এবং সমুদ্র উপকূলীয় মানুষের অর্থনৈতিব উন্নয়নে মৎস্য ও সমুদ্র সম্পদ সংরক্ষণ অতিব জরুরী।
মৎস্যজীবিরা মাছ ধরা বন্ধের সময় তাদের পরিবারের জীবনজীবিকার সমস্যার কথা তুলে ধরে এবং সেই সময় মৎস্যজীবিদের সহায়তা প্রদানের দাবী তুলে।

উপজেলা কোঅর্ডিনেটর প্রিয়াল মুৎসুদ্দী তার উপস্থাপনায় সেন্টার ফর ন্যাচারাল রিসোর্স স্টাডিস (সিএনআরএস) ইমপ্রুভড ন্যাচারাল এনভায়রনমেন্ট এন্ড পিচফুল কোএকজিসটেন্স ফর রিফিউজিস এন্ড হোস্ট কমিউনিটিস প্রকল্পের মাধ্যমে টেকনাফ উপজেলা স্থানীয় জনগনদের জীবন মান উন্নয়নের জন্য বিভিন্ন উন্নয়ন মূলক কাজ তুলে ধরেন। সিএনআরএস ৫০ জন দরিদ্র মৎস্যজীবিকে আয়মূলক উপকরণ হিসেবে ৫০টি ঝাকি জাল, ২০ টি পুকুরে মাছ চাষের উপকরণ (পোনা, খাদ্য) ও কারিগরি সহায়তা প্রদান করেছে বলে উল্লেখ করেন। এছাড়া সিএন আরএস এর এই প্রকল্পের উদ্যোগে টেকনাফ উপজেলায় প্রথম বারের মত একটি মাছর নার্সারী স্থাপন করেন বলে উল্লেখ করে।

এদিকে মা ইলিশ রক্ষায় বন্ধ মৌসুম ২২ দিন ব্যাপী সরকারী নির্দেশনা অনুযায়ী মাছ আহরণ বন্ধ রাখায় টেকনাফ উপজেলা মৎসজীবি ও নৌকা মালিকদের ধন্যবাদ জানান অনুষ্টানের সভাপতি টেকনাফ উপজেলা সিনিয়র মৎস্য কর্মকতা মো: দেলোয়ার হোসেন।

দিনব্যাপী কর্মশালায় মৎসজীবি সমিতির কক্সবাজার জেলা সভাপতি আবু হারেছ কাউন্সিলর ও টেকনাফ উপজেলা সভাপতি আব্দুস সালাম বক্তব্য প্রদান করেন এবং স্থানীয় প্রায় সাত চল্লিশ জন মৎস্যজীবি, মাছ ব্যবসায়ি ও নৌকা মালিক উক্ত কর্মশালায় অংশ গ্রহণ করেন।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •