“ডিজিটাল আইল্যাণ্ড”

সবুজের এক অপরূপ লীলাভূমি
পাহাড়-গিরি,সমতল যার চরণচূমি।
মিশেছে দেখো আকাশ, সাগর
সুদূর নীলিমায় একাকার।
প্রকৃতির সকল সম্মিলন এখানে
ম্যানগ্রোভ পাহাড়িয়া রূপের সমাহার,
বিচিত্র মানুষের পেশায়
চিরায়ত সৃজন অপূর্ব মহিমার।
দেখা হয়নি ইংল্যাণ্ড,রাশিয়া কিংবা কাশ্মীর
তবুও মনে হয় যে রূপে দেখেছি
হয়তো অতোটা নয় সুজলা
যেমনটা আমার চোখে তুমি!
কোথায় আছে এমন পরশ!
এমন বিচিত্র রূপের সমাহার?এখনো দেখেনি যারা তোমায়
নিছক অদেখা সুনিপুণতা রূপসী বাংলার।
যুগে যুগে এই সবুজের বুকে
সদা হাসে জীবন জয়ের খেলা,
ভাবছো যা অত্ত সোজা নয়
অভিযোজন বিজয়ে স্বাদ মেলা।
শিখবে যদি এসো বেঁচে থাকা
জীবন জয়ের মানে,
প্রতিকূলতা ডিঙ্গানো প্রকৃতি
রাজসাক্ষী প্রতিটি সোপানে।
ধান,পানের বরজ, ঢেউ তরঙ্গের খেলা
এ যেন বেঁচে থাকার অমোঘ ভেলা।
জেলে,কামার-কুমোর, লবণের মাঠ,মাছের ঘের
নানান পেশার মানুষের সোহাগী
আদুরে ভালোবাসায় সুখী সমৃদ্ধ বাংলা
এ যেন অতীত সোনালী ইতিহাসের জের।
সকল ধনে ধন্য তুমি বিপুলা সমাহার
প্রকৃতি আর প্রযুক্তির ছোঁয়ায়
ডিজিটাল আইল্যাণ্ড উন্নয়নের রোল মডেল,
তুমিও যে বাংলার সমৃদ্ধির অন্যতম অংশীদার।

 

” জাতির জনক”

শোকাবহ ১৫ ই আগস্ট
বাঙ্গালী জাতির কালো দিন,
আজীবনের ঋণী মোরা
যে ঋণ শোধ হবেনা কোনদিন!
যোগ্য নেতার নেতৃত্বে জাতি
শক্ত হাতে ধরেছিল হাল,
এমন দিশারীর অভাবে জাতি
আজ বড়ই বেসামাল।
জাতি আজ নগ্ন,
বেড়েছে হায়েনার দল!
নর-পিশাচের হিংস্র থাবায়
মা-বোনের ইজ্জত আজ দুর্বল।বেঁচে থাকলে জাতির জনক
বোধহয় আরো শুদ্ধ হতো জাতি,
হীন কাজের উঁসকানিতে
হতোনা এমন করুণ পরিণতি।যুগে যুগে তাই কোটি বাঙ্গালী
খুঁজে ফিরে তোমায়,
তোমার তরে গান র’চে যায়
সালাম জানায় তোমায়।

শামীমা আখতার ( শামীম), প্রধান শিক্ষক( লাল মো: সিকদার পাড়া স: প্রা:বি:। কুতুবজোম, মহেশখালী,কক্সবাজার)।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •