অনলাইন ডেস্ক:

লিবারেল ডেমোক্রেটিক পার্টির (এলডিপি) সভাপতি ডক্টর কর্নেল অলি আহমদ বীর বিক্রম (অব.) বলেছেন,

‘দেশ এক ধরনের দোজখে পরিণত হয়েছে। এখন প্রয়োজন সরকারের বিরুদ্ধে শান্তিপূর্ণ প্রতিবাদ। যথা সময়ে দলে দলে ঐক্যবদ্ধভাবে ঘর থেকে বেরুতে হবে। যথা সময়ে দলে দলে ঘর থেকে বেরিয়ে সকলকে আইনমান্য করে প্রতিবাদ করতে হবে। ঘরে বসে থাকলে আর কখনো দেশে শান্তি ফিরে আসবে না। আসুন ঐক্যবদ্ধ হই, দেশকে রক্ষা করি। এতে করে সরকারের বিদায় ঘণ্টার ধ্বনি শোনা যাবে। আমি বলতে চাই, যথা সময়ে আইন মান্য করে দলে দলে ঐক্যবদ্ধভাবে ঘর থেকে বেরিয়ে এই সরকারের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করার জন্য প্রস্তুতি নিন। ইনশাল্লাহ আমরাই সফল হবো।’

শনিবার বিকালে লিবারেল ডেমোক্রেটিক পার্টির (এলডিপি) ১৩তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর আলোচনা সভায় দলের নেতা-কর্মীসহ জনগণের প্রতি তিনি এই আহ্বান জানান।
শুদ্ধি অভিযানের সমালোচনা করে অলি বলেন, ‘বর্তমান সরকার মাদক, ক্যাসিনো, টেন্ডারবাজী, চাঁদাবাজী এবং অবৈধ অস্ত্রবাজদের বিরুদ্ধে যে ব্যবস্থা গ্রহণ করেছে তা শুধু বড় বড় দুর্নীতিবাজদের রক্ষা করার জন্য, জনগণের দৃষ্টি অন্যদিকে সরানো জন্য। যেসব মন্ত্রী-এমপি ও তাদের পরিবার বস্তায় বস্তায় টাকা নিয়েছে, মার্সিডিজ গাড়ি নিয়েছে তাদের নাম সুস্পষ্টভাবে পত্রিকায় প্রকাশিত হয়েছে। অদ্যবধি তারা ধরা-ছোয়ার বাইরে।’ বর্তমানে নির্বাচন কমিশন “বেকার ও বৃদ্ধ পুর্ণবাসন কেন্দ্র” এবং দুর্নীতি দমন কমিশন “সরকারি দলের পূর্ণবাসন কেন্দ্র” হিসেবে কাজ করছে বলে অভিযোগ করে অলি আহমদ নিরপেক্ষ ব্যক্তিদের নিয়ে এই দুইটি সংস্থাকে ঢেলে সাজানোর দাবিও জানান।

রমনার ইঞ্জিনিয়ার্স ইন্সটিটিউশন মিলনায়তনে এলডিপির মহাসচিব রেদোয়ান আহমেদের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় আরও বক্তব্য দেন, জামায়াতের হামিদুর রহমান আযাদ, কল্যাণ পার্টির সৈয়দ মুহাম্মদ ইবরাহিম, জাগপার রাশেদ প্রধান, জাতীয় দলের সৈয়দ এহসানুল হুদা, এলডিপির কামাল উদ্দিন মোস্তফা, নুরুল আলম, ইসমাইল হোসেন বেঙ্গল, নিয়ামুল রশীদ, কারিমা খাতুন, ইবরাহিম মিয়া প্রমুখ।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •