আব্দুস সালাম, টেকনাফ:

পুলিশের সঙ্গে কাজ করি মাদক-জঙ্গী-সন্ত্রাসমুক্ত দেশ গড়ি এ প্রতিপাদ্য বিষয়কে সামনে নিয়ে সারা দেশের ন্যায় কক্সবাজারের টেকনাফে কমিউনিটি পুলিশিং দিবস মডেল থানার আয়োজনে অনুষ্ঠিত হয়েছে। শনিবার সকাল ১০টায় থানা থেকে র‌্যালিটি শুরু হয়ে বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ সড়ক প্রদক্ষিণ করে থানা প্রাঙ্গনে এসে মিলিত হয়। র‌্যালিত্তোর আলোচনা সভায় কোরআন তিলোয়াত করেন হাফেজ আবু বক্কর।

টেকনাফ মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) প্রদীপ কুমার দাশের সভাপতিত্বে ও টেকনাফ সরকারী কলেজের অধ্যাপক সন্তোষ কুমার শীলের সঞ্চালনায় এতে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন, উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান নুরুল আলম। বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন, পৌরসভার মেয়র হাজী মোঃ ইসলাম, উপজেলা কমিউনিটি পুলিশিংয়ের সভাপতি আলহাজ্ব নুরুল হুদা, মুুফতি কেফায়েত উল্লাহ, মডেল থানার অপারেশন পরিদর্শক রাকিবুল ইসলাম খান, পৌর কমিউনিটি পুলিশিং ফোরামের সভাপতি মোহাম্মদ আলম বাহাদুর, সাধারণ স¤পাদক নুরুল হোসাইন, হ্নীলা ইউনিয়ন কমিউনিটি পুলিশিং ফোরামের সভাপতি নজরুল ইসলাম, হোয়াইক্যং ইউনিয়নের সাধারণ স¤পাদক আলমগীর চৌধুরী, সাবরাং ইউনিয়নের সভাপতি মীর আহাম্মদ, সদর ইউনিয়নের সাধারণ স¤পাদক মাহবুবুল আলম, বাহারছড়া ইউনিয়নের সভাপতি আজিজ উল্লাহ প্রমুখ।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে নুরুল আলম চেয়ারম্যান বলেন- মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা মাদকের বিরুদ্ধে জিরো টলারেন্স ঘোষণা করায় সারাদেশের ন্যায় টেকনাফও অভিযান অব্যাহত রয়েছে। অবৈধপথে টাকা আয় করে কেউ শান্তিতে থাকতে পারেনি, পারবেও না। আত্মসমর্পনের মাধ্যমে মাদক ব্যবসায়ী ও সন্ত্রাসীদের ভালোর পথে ফিরিয়ে আসার সুযোগ রয়েছে । বিগত সময়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ও পুলিশের আইজিপির হাতে টেকনাফে অসংখ্য মাদক ব্যবসায়ী আতœসমর্পনের মাধ্যমে স্বাভাবিক জীবনে ফিরে আসতে সরকারের সহযোগিতা চেয়েছেন। স্বেচ্ছাসেবী হিসেবে কমিউনিটি পুলিশিংয়ের সদস্যদের কাজ করতে হবে। কমিউনিটি পুলিশিং কমিটিতে কোন অপরাধীর স্থান যাতে না হয়, সেদিকে সকলকে সজাগ থাকতে হবে।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে নুরুল হুদা বলেন, টেকনাফে যোগদান করার পর ওসি প্রদীপ যেভাবে মাদক নির্ম‚ল করবেন বলে আশ্বস্ত করেছিলেন, তার প্রমাণ আপনারা সকলে পেয়েছেন। তিনি মাদক নির্ম‚লে প্রশংসিত হওয়ায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছ থেকে সম্মাননা, চট্টগ্রাম রেঞ্জের সেরা ওসি এবং জেলার শ্রেষ্ঠ ওসি হিসেবে পুরুষ্কারে ভূষিত হয়েছেন। ভালো কাজ করতে গেলে অনেক বাধা বিপত্তি আসতে পারে, সেগুলোকে মোকাবেলা করে সামনের দিকে এগিয়ে যেতে হবে।

সভাপতির সমাপনী বক্তব্যে ওসি প্রদীপ কুমার দাশ বলেন, কমিউনিটি পুলিশিং ফোরামের কাজ হচ্ছে পুলিশকে সহায়তা করা এবং এলাকায় যে সমস্ত অপরাধী রয়েছে তাদেরকে চিহ্নিত করে দেওয়া। দেশ আপনাদের, এই এলাকাও আপনাদের । আপনারা যদি টেকনাফকে ভালো না বাসেন, া আপনাদের ছেলে মেয়েদের প্রতি অন্যায় অবিচার করবেন। টেকনাফকে ভালবাসা মানে আপনাদের ছেলে মেয়েদের ভালবাসা। এখনো পর্যন্ত যারা ইয়াবা ব্যবসা করছেন, তাদের তথ্য দিয়ে আমাদেরকে সাহায্য করুন। ইয়াবা ব্যবসায়ীদেরকে যারা জমি বিক্রি করেছে, ইয়াবা ব্যবসায়ীদের মতো তাদেরকেও আইনের আওতায় আনা হবে। জায়গা বিক্রি করা মানে অবৈধ টাকাকে জায়েজ করা। প্রশাসনের কঠোর অবস্থানের ফলে টেকনাফের আইনশৃংখলা আগের চেয়ে অনেক ভাল হয়ে গেছে।

এদিকে সন্ধ্যায় কমিউনিটি পুলিশিংয়ের সদস্যদের নিয়ে থানা প্রাঙ্গণে সাংস্কৃতিক সন্ধ্যা ও প্রীতিভোজের আয়োজন করা হয় ।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •