গত ২৪/১০/২০১৯ খ্রিঃ প্রকাশিত কক্সবাজার নিউজে ‘আলীকদম সরকারী হাসপাতালে ভাঙচুর, যুবকের বিরুদ্ধে মামলা’ শিরোনামের সংবাদটি  যথাযথ নিয়ম অনুসরণ করে প্রকাশিত হয়েছে। সংবাদে আলীকদম থানার মামলা নং- ০২ তারিখ: ২৩/১০/২০১৯ এর এজাহারে বর্ণিত তথ্যাদি হুবহু সংবাদে প্রকাশ করা হয়েছে। সংবাদে থানার ওসির বক্তব্য, সরকারি হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের লিখিত পত্রের (স্মারক নং- ৯৯৫, তারিখ: ২১/১০/২০১৯) তথ্যাদির হুবহু উদ্বৃতি এবং ইউএইচএন্ডপিও’র বক্তব্য কোড করা হয়েছে। মামলার পর পুলিশের গ্রেফতারের ভয়ে যেকোন আসামী জামিনের জন্য গা ঢাকা দেন, তা প্রচলিত সত্য। সংবাদে দায়িত্বশীলতার সাথে সে তথ্যটুকু তুলে ধরা হয়েছে।

প্রতিবাদে সংযুক্ত ব্যক্তি নিজেকে ‘আলীকদম প্রেসক্লাব’ এর প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক উল্লেখ করে উদ্ভ্রান্ত যুবকের মিথ্যা তথ্য সন্নিবেশ করেছেন। আলীকদম প্রেসক্লাব ১৯৯৮ সালে প্রতিষ্ঠিত সাংবাদিকদের পেশাগত সংগঠন। ১৯৯৯ সাল থেকে আলীকদম প্রেসক্লাবের নিজস্ব কার্যালয় এবং গঠনতন্ত্র রয়েছে। গঠনতন্ত্র অনুসরণ করা ছাড়া কেউ এ সংগঠনের প্রাথমিক সদস্যপদ লাভ করতে পারে না। হাসপাতাল ভাংচুরের মামলায় অভিযুক্ত যুবক মূলতঃ মামলার দায় থেকে নিজেকে হালকা করতে আলীকদমে সাংবাদিকদের পেশাগত প্রতিষ্ঠান ‘আলীকদম প্রেসক্লাব’ এর পদবী ব্যবহার ফায়দা হাসিলের চেষ্টা করে দৃষ্টতার পরিচয় দিয়েছেন। প্রেসক্লাব কর্তৃপক্ষ এর তীব্র নিন্দা জানিয়েছেন।

মমতাজ উদ্দিন আহমদ

আলীকদম প্রতিনিধি

সভাপতি, আলীকদম প্রেসক্লাব।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •