নিজস্ব প্রতিবেদক:
শুধু শ্রেণী কক্ষের চার দেয়ালে পাঠ্য বইয়ে সীমাবদ্ধ পড়ালেখায় প্রকৃত জ্ঞান অর্জন হয়না। বুঝা যায়না সঠিক মেধাবী। স্কুল আঙ্গিণার বাইরের কোন প্রতিযোগিতায় শিক্ষার্থীর মেধা ও মননের বিকাশ ঘটে। স্বপ্ন দেখায় ছোট বয়সেই বড় হওয়ার।
আর সেই স্বপ্নের পথে খুদে শিক্ষার্থীদের এগিয়ে নিতে পঞ্চম বারের মতো অনুষ্ঠিত হলো কক্সবাজার আইডিয়াল ট্রাস্ট পিএসসি মেধাবৃত্তি পরীক্ষা-২০১৯। কক্সবাজার সদর উপজেলাসহ (পৌরসভা বাদে) পার্শ্ববর্তী ৩ উপজেলার ২০ টি ইউনিয়নের দেড়শো শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের প্রায় ১২০০ পিএসসি (পিইসি) পরীক্ষার্থী তাদের মেধা যাচাইয়ের পরীক্ষায় অংশ গ্রহণ করেছে। পরীক্ষা ছিল বাংলা, ইংরেজি ও গণিত এই তিন বিষয়ে পূর্ণমান ৫০ নাম্বারের।
শুক্রবার (২৫ অক্টোবর) কক্সবাজার সদর উপজেলার বাংলাবাজার ছুরতিয়া আলিম মাদরাসা, হযরত আয়েশা ছিদ্দিকা (রা.) বালিকা দাখিল মাদরাসা ও আইডিয়াল ইন্সটিটিউট- এই তিনকেন্দ্রে একযোগে পরীক্ষা নেয়া হয়। আগামী ৫ ডিসেম্বর ফলাফল প্রকাশ হবে।
অংশগ্রহণকারীদের ট্যালেন্টপুলে ১ম স্থান ৫ হাজার টাকা, ২য় স্থান ৩ হাজার টাকা, ৩য় স্থান ২ হাজার টাকা, ১ম গ্রেড (৪র্থ-১০তম) ১৫০০ টাকা, ২য় গ্রেড (১১তম-২০তম) ১২০০ টাকা প্রাইজমানি দেয়া হয়। ইউনিয়ন ভিত্তিক ১ম স্থান ১ হাজার, ২য় স্থান ৮০০ টাকা এবং ৩য় স্থান অধিকারী শিক্ষার্থীকে ৫০০ টাকার প্রাইজমানি দেয় আইডিয়াল ট্রাস্ট।
এছাড়া অংশগ্রহণকারী প্রতিষ্ঠানসমূহ থেকে প্রতি পাঁচজনে একজন এবং প্রতি দশজনে তিনজন হারে বিশেষ বৃত্তি প্রদান করে থাকে আয়োজকরা। উত্তীর্ণ সবাইকে সনদও প্রদান করা হয়।
গ্রামীন পর্যায়ে শিক্ষার আলো ছড়িয়ে দিতে জেলার ইতিহাসে ধারাবাহিকভাবে পঞ্চম বারের মতো ব্যতিক্রমী এ পরীক্ষা আয়োজন করে আইডিয়াল ট্রাস্ট। ২০১৫ সালে প্রথম এই বৃত্তি পরীক্ষার প্রবর্তন করে আইডিয়াল ট্রাস্ট। সুষ্ঠু পরীক্ষা স¤পন্ন করতে রয়েছে বিশিষ্টজনদের সমন্বয়ে শক্তিশালী উপদেষ্টা ও পরিচালনা পরিষদ।
এদিকে, আইডিয়াল ট্রাস্ট পিএসসি (পিইসি) মেধাবৃত্তি-২০১৯ এর আহবায়ক ও কক্সবাজার সরকারী কলেজের সাবেক অধ্যক্ষ প্রফেসর এমএ বারীর সার্বিক দিকনির্দেশনায় শুক্রবার অনুষ্ঠিত বৃত্তি পরীক্ষাকেন্দ্র পরিদর্শন করেছেন- বিজিবি নাইক্ষ্যংছড়ির সহকারী পরিচালক জামাল হোছাইন, ঝিলংজা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান টিপু সোলতান, কক্সবাজার নিউজ ডটকম (সিবিএন) এর বার্তা সম্পাদক ইমাম খাইর, সাংবাদিক শাহীন মাহমুদ রাসেল, শাহী কামরান। এছাড়া জেলার বরেণ্য শিক্ষাবিদ ও বিশিষ্টজন পরীক্ষাকেন্দ্র পরিদর্শন করেন। পরীক্ষার আয়োজন, পরীক্ষার্থীদের স্বতঃস্ফূর্ত অংশগ্রহণ, অভিভাবকদের আন্তরিকতাপূর্ণ সহযোগিতায় আইডিয়ালের এই আয়োজনকে প্রাণবন্ত করে তুলে।
সার্বিক তত্ত্বাবধান করেন আইডিয়াল ট্রাস্টের চেয়ারম্যান অধ্যক্ষ মিজানুর রহমান, পরিচালক ও বৃত্তি পরীক্ষা-২০১৯ এর যুগ্ম-সদস্য সচিব এম দেলোয়ার হোসেন। বৃত্তি পরীক্ষা সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন করতে পরিচালক ও শিক্ষকবৃন্দ সার্বিক সহযোগিতা করেন। আগত অতিথিদের গার্ড অব অনারের মাধ্যমে বরণ করে নেয় স্কুলের স্কাউট টীম। সুশৃঙ্খল ও মনোরম পরিবেশে জেলার সর্ববৃহৎ এই বৃত্তি পরীক্ষা সম্পন্ন করতে পেরে সংশ্লিষ্টদের প্রতি কৃজ্ঞতা প্রকাশ করেছেন আইডিয়াল ট্রাস্টের চেয়ারম্যান শিক্ষাবিদ অধ্যক্ষ মিজানুর রহমান। সৎ, দক্ষ, মেধাবী, চরিত্রবান, দেশপ্রেমিক সুনাগরিক তৈরী করতে আইডিয়াল ট্রাস্ট নিরলস কাজ চালিয়ে যাচ্ছে। নিয়মিত পাঠ্যক্রমের পাশাপাশি সহ-পাঠক্রমিক কার্যক্রম ও ক্রীড়া, সাংস্কৃতিক ও বিতর্ক প্রতিযোগিতাসহ বিভিন্ন সামাজিক কর্মকা-ও তারা করে থাকে। এ কারণে আইডিয়াল একটি সেরা প্রতিষ্ঠান হিসেবে সর্বমহলে পরিচিত ও গ্রহণযোগ্য। এ ধারা অব্যাহত রাখতে সবার সহযোগিতা ও দোয়া কামনা করেছেন অধ্যক্ষ মিজানুর রহমান।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •