যুগান্তর : চরম নাটকীয়তার পর অবশেষে ক্রিকেট সংকটের অবসান ঘটল। আন্দোলনরত ক্রিকেটারদের সঙ্গে সমঝোতায় এসেছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। ক্রিকেটাররা যে ১৩টি দাবি পেশ করেছিলেন তার মধ্য থেকে ১০টি দাবি মেনে নিয়েছে ক্রিকেট বোর্ড।

বুধবার রাতে ক্রিকেটারদের দাবি-দাওয়া নিয়ে সাকিব-তামিমদের সঙ্গে মিরপুরে বৈঠকে বসেন বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপনসহ বিসিবির অন্যান্য পরিচালকরা। ক্রিকেটাররা প্রাথমিক ১১টি দাবি করেন। তাদের সেই দাবির ১০টি মেনে নেয় বিসিবি।

দাবি মেনে নেয়ার পর বুধবার রাত ১১টায় ধর্মঘট প্রত্যাহার করে ক্রিকেটে ফেরার ঘোষণা দেন সাকিবরা। ক্রিকেটারদের সঙ্গে সমঝোতার ফলে আগামী মাসে ভারত সফরের অনিশ্চয়তা কেটে গেল।

শুক্রবার থেকে মিরপুরে শুরু হবে ক্রিকেটারদের ক্যাম্প। ভারত সফরে তিনটি টি-টোয়োন্টি আর দুটি টেস্ট ম্যাচ খেলবে বাংলাদেশ দল।

সোমবার মিরপুরে হঠাৎ করেই ১১দফা দাবিতে আন্দোলনে নামেন ক্রিকেটাররা। এরপরই নড়েচড়ে বসে ক্রিকেট বোর্ড। মঙ্গলবার বোর্ড পরিচালকদের সঙ্গে সভাশেষে লম্বা সময় ধরে সংবাদ সম্মেলন করে হতাশা এবং ক্ষোভ প্রকাশ করেন পাপন।

বুধবার দুপুরে গণভবনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে দেখা করেন বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন ও বিসিবি পরিচালক নাঈমুর রহমান দুর্জয়। তারা গণভবন থেকে বেরিয়ে ক্রিকেটারদের সব দাবি মেনে নেয়ার ঘোষণা দেন।

এদিন সন্ধ্যায় ক্রিকেটাররা গুলশানে একটি হোটেলে সাংবাদিক সম্মেলন করে আরও দুটি দাবি সংযোজন করেন। রাতে ক্রিকেট বোর্ডের আমন্ত্রণে ক্রিকেটাররা যোগ দেন বিসিবি সভাপতির সঙ্গে সমঝোতা বৈঠকে। সেখানে বিসিবির বেশ কয়েকজন পরিচালক উপস্থিত ছিলেন। ক্রিকেটাদের সব দাবি মেনে নেন পাপন।

তবে তিনটি দাবি মেনে নেয়নি ক্রিকেট বোর্ড। বাংলাদেশ ক্রিকেটার্স ওয়েলফেয়ার অ্যাসোসিয়েশনের (কোয়াব) কোনো কার্যক্রম না থাকায় বর্তমান কমিটিকে অবিলম্বে পদত্যাগ করার দাবি জানান সাকিবরা। ক্রিকেটারদের এই সংগঠনের সঙ্গে বিসিবির কোনো সম্পৃক্ততা না থাকায় তা মেনে নেননি পাপন।

এছাড়া ক্রিকেটের ব্যবস্থাপনায় স্বচ্ছতা ও ক্রিকেট থেকে আয়ের লভ্যাংশ প্রদান এবং নারী ক্রিকেটারদের ন্যায্য হিস্যা নিয়ে সবশেষ যে দুটি দাবি করেছেন টাইগাররা তা এখনই মেনে নিতে পারছে না বিসিবি।

সবশেষ সংযোজন এই দুই দাবি নিয়ে ক্রিকেটারদের সঙ্গে পরবর্তীতে বসার আশ্বাস দেন নাজমুল হাসান।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •