চকরিয়া প্রতিনিধি

চকরিয়া উপজেলার কোনাখালী ইউনিয়নের ৫নং ওয়ার্ড সিকদারপাড়াস্থ ইউনিয়ন স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স প্রাঙ্গনে নারী শিল্পী নিয়ে এসে অবৈধভাবে নাছ-গানের আসর বসায়। এসময় স্থানীয়দের অভিযোগের প্রেক্ষিতে ধর্মপ্রাণ মুসল্লীদের সহায়তায় মাতামুহুরী পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের উপপরিদর্শক হাবিবুর রহমানের নেতৃত্বে একদল পুলিশ অভিযান চালিয়ে অশ্লীল নাছ-গানের আসর গুড়িয়ে দিয়েছে।

স্থানীয়রা জানিয়েছেন, স্থানীয় মৃত জাকের আহমদের পুত্র যুবনেতা ইকবাল বাহার সম্প্রতি একটি মামলায় আদালত কর্তৃক জামিন প্রাপ্ত হয়ে জেল থেকে বের হওয়ার তার নেতৃত্বে গত ২১ অক্টোবর রাতে সিকদারপাড়াস্থ ইউনিয়ন স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স প্রাঙ্গনে অনুমোদন বিহীন অশ্লীল নাছ-গানের আয়োজন করে। বিষয়টি স্থানীয় জনসাধারণ ও মুসল্লীরা মেনে নিতে পারেনি। পরে স্থানীয়দের অভিযোগের প্রেক্ষিতে ধর্মপ্রাণ মুসল্লীরা ও মাতামুহুরী পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের একদল পুলিশ ঘটনাস্থলে অভিযান চালিয়ে আয়োজনকারীদের ধাওয়া করে ও নাছ-গানের আসর গুড়িয়ে দিয়েছে।

মাতামুহুরী পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের উপপরিদর্শক হাবিবুর রহমান জানিয়েছেন, স্থানীয় মুসল্লী জনতার অভিযোগের প্রেক্ষিতে ঘটনাস্থলে গিয়ে অনুমোদন বিহীন অশ্লীল নাছ-গাছের গুড়িয়ে দেওয়া হয়েছে। একটি স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে অনুমোদন বিহীন নাছ-গানের আসর চলতে পারেনা। এদিকে স্থানীয় মৃত মনজুর আলমের পুত্র ছাত্রলীগ নেতা ফজলুল কায়েস সিকদার গংয়ের সাথে জমি-জমা নিয়ে পূর্ব বিরোধ থাকায় এবং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সভাপতি কফিল উদ্দিন ও সাধারণ সম্পাদক বখতিয়ার উদ্দিনকে কেন পুলিশ পাঠিয়েছে বলে অভিযুক্তরা তাদের নাম ধরে বিভিন্নভাবে গালি-গালাজ করে। পরে স্থানীয় কোনাখালী ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান দিদারুল হক সিকদার জানিয়েছেন, তিনি অবৈধ অশ্লীল নাছ-গান বন্ধে পুলিশ পাঠিয়েছেন। এ ধরণের অবৈধ কার্যকলাপে তার ইউনিয়নে চলতে পারবেনা।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •