চকরিয়া প্রতিনিধি :

চকরিয়া উপজেলার ফাসিয়াখালী ইউনিয়নে স্বামীর অগোচরে পরকিয়া প্রেমিকের সাথে অবৈধ মেলা-মেশা অবস্থায় জনতার হাতে আটক হয়েছে ২সন্তানের জননী প্রেমিক জুটি। এসময় তাদেরকে স্থানীয়রা উত্তম মধ্যম দিয়ে স্থানীয় ইউপি সদস্যের জিম্মায় ছেড়ে দেওয়া হয়েছে। উপজেলার ফাসিয়াখালী ইউনিয়নের ৭নং ওয়ার্ডের পশ্চিম সিকদারপাড়ায় ঘটেছে এ ঘটনা।

স্থানীয় প্রত্যক্ষদর্শী ও ঘটনার স্বাক্ষী একই এলাকার কবির আহমদের পুত্র আবদুল মালেক, জয়নাল আবদীনের স্ত্রী আসমা খাতুন, ইছহাক আহমদের পুত্র মো: ফোরকান, আহমদ আলীর পুত্র ছমির উদ্দিন, রেজাউল করিমের স্ত্রী রুজিনা আক্তার ও আবুল হোসেনের স্ত্রী হালিমা খাতুনসহ স্থানীয় শতশত লোকজন জানিয়েছেন, চকরিয়া পৌরসভা ৮নং ওয়ার্ডের চিরিংগা কোচপাড়া গ্রামের বাসিন্দা আহমদের পুত্র টমটম চালক মিরাজ উদ্দিন প্রকাশ পুতিয়া সম্প্রতি সময় থেকে ওই এলাকায় বসবাস করছেন। একইভাবে ওই এলাকার সিএনজি চালক কফিল উদ্দিন জীবিকা নির্বাহের তাগিদে চট্টগ্রামে অবস্থান করছেন। এরই মধ্যে তার (কফিল উদ্দিন) স্ত্রী ২ সন্তানের জননী রুমি আক্তার বাড়িতে একা থাকায় মিরাজের সাথে পরকিয়া প্রেমে জড়িয়ে পড়েন। দীর্ঘদিন ধরে আসা-যাওয়া করার এক পর্যায়ে বিষয়ে স্থানীয়রা বুঝতে পারেন। সর্বশেষ গত ২২ অক্টোবর রাত ১১টার দিকে উল্লেখিত স্বাক্ষীরাসহ স্থানীয় লোকজন পূর্ব থেকে ওৎ পেতে থেকে পরকিয়া প্রেমিক মিরাজ উদ্দিন প্রকাশ পুতিয়া স্বামীর অনুপস্থিতিতে ঘরে ঢুকে রুমির সাথে অবৈধ মেলা-মেশা অবস্থায় হাতে-নাতে স্থানীয়দের কাছে ধরা পড়ে যায়। এসময় স্থানীয়রা বাড়ির দরজা খোলে তাদের দুজনকে উলঙ্গ অবস্থায় পেয়ে উত্তম মধ্যম দেন। তবে অবিবাহিত বলে পরিচয় গোপন করা অভিযুক্ত পরকিয়া প্রেমিকও বিবাহিত। পরে ইউপি সদস্য মাহবুবুল আলমের জিম্মা ও গ্রাম পুলিশের জিম্মায় তাদের দু’জনকে মুচলেখা নিয়ে ছেড়ে দেন। বিষয়টি নিয়ে এলাকায় চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •