ইমাম খাইর, সিবিএনঃ

ওজনে কারচুপি, অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে বেকারিপণ্য সংরক্ষণ ও প্যাকেটজাতকরণ, লেবেলবিহীন খাদ্য উপকরণ ব্যবহার ইত্যাদি কারণে কক্সবাজার শহরে আলীর জাহালে অবস্থিত স্বাদ বেকারি কারখানাকে ৪০ হাজার টাকা অর্থদন্ড প্রদান করা হয়েছে।
এছাড়া কক্সবাজার শহরের বিজিবি ক্যাম্প সংলগ্ন শাহগদী বেকারিতে অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে খাদ্য উৎপাদন এবং প্যাকেটজাত খাদ্যে লেবেল ব্যবহার না করা এবং সঠিক নিয়মে লেবেল ব্যবহার না করার জন্য ২০ হাজার টাকা অর্থদন্ড প্রদান করা হয়।
মঙ্গলবার (২২ অক্টোবর) অভিযান চালানো হয়।
মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করেন জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট জয়নাল আবেদীন।
এসময় উপস্থিত ছিলেন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ইমরান জাহিদ খান এবং নির্বাহী মাজিস্ট্রেট আরাফাত হোসেন।
প্রসিকিউশন প্রদান করেন জেলা স্যানিটারি ইন্সপেক্টর তরুন বড়ুয়া।
জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট জয়নাল আবেদীন জানান, স্বাদ বেকারি কারখানায় গিয়ে দেখা যায়, বেকারিটি তাদের প্লাস্টিক বোয়ামের গায়ে ওজন ৭৫০ গ্রাম লিখে বিস্কুট বিক্রি করছে। কিন্তু যখন বোয়াম থেকে বিস্কুট বের করে ওজন মাপা হয় তখন দেখা যায় মাত্র ৫৭৫ গ্রাম সমপরিমান বিস্কুট আছে। বোয়ামে প্রায় ১০০গ্রাম সমপরিমাণ কাগজ গুঁজে দেয়া আছে। এ ধরনের ওজনে কারচুপির ফলে সেবা গ্রহীতা/ক্রেতা আর্থিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে।তাছাড়া অস্বাস্থ্যকর পরিবেশে বেকারিপণ্য সংরক্ষণ ও প্যাকেটজাতকরণ, লেবেলবিহীন খাদ্য উপকরণ ব্যবহার করতে দেখা যায়।
একই অভিযোগে শাহগদী বেকারিকেও ২০ হাজার টাকা অর্থদন্ড প্রদান করা হয়। ভেজাল বিরোধী অভিযান অব্যাহত থাকবে বলে জানান নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট জয়নাল আবেদীন।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •