সংবাদদাতা:
একটি মিথ্যা ও সাজানো মামলায় কক্সবাজার সদরের ইসলামপুর ইউনিয়ন যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক আবছার কামাল শাহীনকে গ্রেফতার করা হয়েছে।
অবিলম্বে তার নিঃশর্ত মুক্তি ও ষড়যন্ত্রমূলক মামলা প্রত্যাহার করতে হবে। অন্যথায় পরবর্তি পরিস্থিতির জন্য প্রশাসন ও মামলার বাদি পক্ষকে দায়ী থাকতে হবে।
শুক্রবার (১৮ অক্টোবর) বিকালে ইসলামপুরের নতুন অফিস বাজার এলাকায় বিক্ষোভ ও মানববন্ধনে বক্তারা কথাগুলো বলেছেন।
ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি ওসমান আলী মোর্শেদের সভাপতিত্বে প্রতিবাদ সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন- সদর উপজেলা যুবলীগ সাধারণ সম্পাদক রাজিবুল হক চৌধুরী রিকো।
তিনি বলেন, ইসলামপুরে আওয়ামী লীগের নাম ব্যবহারকারী হাইব্রিড ও সিন্ডিকেটের বিরুদ্ধে অবস্থান নেওয়ায় আবছার কামাল শাহীন মিথ্যা মামলায় জেলে। এ ঘটনা দলের মধ্যে বিভাজন সৃষ্টি করবে।
প্রশাসনের কিছু কর্মকর্তার সিন্ডিকেটের টাকার বিনিময়ে তদন্তহীন এই আচরণের নিন্দা জানান যুবলীগ নেতা রিকো।
তিনি দ্রুত সুষ্ঠু তদন্ত সাপেক্ষে আবছার কামাল শাহীনসহ নিরপরাধ ব্যক্তিদের মামলা থেকে বাদ দেওয়ার আহবান জানান। সেই সঙ্গে দলের শীর্ষস্থানীয় নেতৃবৃন্দের হস্তক্ষেপ কামনা করেন সদর যুবলীগের সভাপতি।
প্রতিবাদ সভায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন- সদর যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক জামিল উদ্দিন শাম, নাছির উদ্দিন জয়, অর্থ সম্পাদক দিদারুল ইসলাম, ঈদগাঁও যুবলীগ সভাপতি এনাম রনি, সাধারণ সম্পাদক রাশেদ উদ্দিন রাশেল।
বক্তব্য রাখেন- ইসলামপুর ছাত্রলীগ সভাপতি জাকারিয়া হিরু, সাধারন সম্পাদক নাছির উদ্দিন পিন্টু, ভারুয়াখালী যুবলীগের আহবায়ক ওসমান সরওয়ার আলী, যুগ্মআহবায়ক মো. শাহীন প্রমুখ।
দলের তৃনমুলের নেতাকর্মীরা বিক্ষোভ মিছিল সহকারে কর্মসূচিতে অংশ নেন।
উল্লেখ্য, গত ১৬ অক্টোবর সদর মডেল থানায় মামলাটি দায়ের করেন ইসলামপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শাহজাহান চৌধুরীর পিতা, ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি মমতাজ আহমদ। মামলায় ৮ জন আসামীর মধ্যে আবছার কামাল শাহীন ৫ নং এজাহারনামীয় আসামী। ওই মামলায় আবছারকে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •