বাংলাদেশে অধিকাংশ তরুণদের হৃদরোগ হওয়ার কারণ জানালেন ডা. দেবী শেঠি

লাইফস্টাইল ডেস্ক:

বাংলাদেশ এবং ভারতের মানুষের মধ্যে হৃদরোগে আক্রান্ত হওয়ার হার দিনদিন বাড়ছেই। স্বাস্থ্যবিষয়ক বিভিন্ন জরিপ এমনটাই জানাচ্ছে।এ বিষয়ে অভিজ্ঞতার আলোকে নিজের মত জানালেন, ভারতের প্রখ্যাত হৃদরোগ বিশেষজ্ঞ দেবী প্রসাদ শেঠি।তিনি জানালেন ঠিক কি কারণে এই উপমহাদেশে বিশেষ করে বাংলাদেশে মানুষের তরুণ বয়সে হৃদরোগ হয়।তিনি বলেছেন, বাংলাদেশ এবং ভারতের মানুষের মধ্যে হৃদরোগ হওয়ার প্রধান কারণ জিনগত।গত ১৫ জুন চট্টগ্রামে ৯০০ কোটি টাকা ব্যয়ে নির্মিত ইম্পেরিয়াল হাসপাতাল উদ্বোধনে অংশ নেন দেবী শেঠি। অনুষ্ঠানে তিনি প্রধান অতিথি হিসাবে বক্তব্য দেন। সেই বক্তব্য দেয়ার সময়ই এ তথ্য দেন দেবী শেঠি।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠান শেষে সাংবাদিকদের সঙ্গে মতবিনিময়কালে তিনি বলেন, ‘ইউরোপে মানুষের বয়স ষাট পেরিয়ে গেলে অর্থাৎ অবসরকালীন সময়ে হৃদরোগ হয়। এ সময় তারা কাজ করেন না আর ভোজনপ্রিয় হয়ে ওঠেন। কিন্তু ভারত ও বাংলাদেশে মানুষদের তরুণ বয়সেই হৃদরোগে আক্রান্ত হতে দেখা যাচ্ছে। এর প্রধান কারণ জিনগত। এখানকার মানুষের জীবনধারা, খাদ্যাভাস, ধূমপান, ডায়াবেটিস হৃদরোগের জন্য দায়ী।’ভারত ও বাংলাদেশে হৃদরোগীর পরিমান বৃদ্ধির বিষয়ে দেবী শেঠি বলেন, ‘এ অঞ্চলের মানুষ রোগ হওয়ার পর চিকিৎসকের কাছে যায়। এর আগে যায় না।শরীরের চেকআপ করায় না।তাদের মতে, সুস্থ থাকার সময় কেন ডাক্তারের কাছে যাবেন!

কিন্তু এমন ধারণা একেবারেই ঠিক নয় জানিয়ে এই বিশেষজ্ঞ বলেন, ‘সুস্থ থাকার সময়ও চিকিৎসকের কাছে যেতে হবে। সবকিছু পরীক্ষা–নিরীক্ষা করে দেখতে হবে কতটা সুস্থ রয়েছি আমি।’ব্যাঙ্গালুরুর নারায়ণা ইনস্টিটিউট অব কার্ডিয়াক সায়েন্সের এই প্রতিষ্ঠাতা জানান, ভারত ও বাংলাদেশে হৃদরোগের চিকিৎসা ধরণ অনেকটা একইরকম।দুই দেশের সংস্কৃতি, পরিবেশ ও খাদ্যাভ্যাস একই রকম বলেই চিকিৎসা পদ্ধতি একইরকম বলে মনে করেন তিনি।চিকিৎসা ব্যবস্থা এক হলেও বাংলাদেশ থেকে কিছু হৃদরোগী ভারতে কেন যান সে প্রসঙ্গে দেবী শেঠি মনে করেন, ‘হৃদরোগের চিকিৎসায় ভারতে অনেকগুলো একই মানের হাসপাতাল রয়েছে। তাই মানুষ বিকল্প বেছে নিতে পারছে। বাংলাদেশে হয়তো এখনও সেভাবে বেশি বিকল্প তৈরি হয়নি।’

সেই প্রেক্ষিতে বাংলাদেশে ইমপেরিয়াল হসপিটাল সঠিক ও উন্নত স্বাস্থ্যসেবার নতুন সংযোজন বলে মন্তব্য করেন ডা. দেবী শেঠি।তিনি বলেন, ‘ভালো চিকিৎসার জন্য ভারত, থাইল্যান্ড, সিঙ্গাপুর ও মালয়েশিয়াসহ বিভিন্ন দেশে যাওয়া বাংলাদেশি মানুষের সংখ্যা প্রতি বছর বাড়ছে। এই হাসপাতাল প্রতিষ্ঠার ফলে দেশের রোগীদের বিদেশে যাওয়ার প্রবণতা অনেকাংশে হ্রাস পাবে।’ তিনি আরও যোগ করেন, ‘ইমপেরিয়াল হাসপাতালে নারায়ণ হাসপাতালের বিশেষজ্ঞ দল কাজ করবে। মাঝেমধ্যে আমিও আসব। আশা করি, এখানকার মানুষ আধুনিক চিকিৎসা পাবে। বিদেশমুখী কমবে।

সর্বশেষ সংবাদ

হ্নীলায় পিইসিই পরিক্ষা কেন্দ্র পরির্দশন করলেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার

পিঁয়াজ ও চালসহ দ্রব্যমূল্যের বৃদ্ধিতে জনগণের নাভিশ্বাস চলছে: লুৎফুর রহমান কাজল

কালারমারছড়ায় আত্মসমর্পণ অনুষ্ঠানস্থল পরির্দশন করলেন প্রতিনিধি দল

পেঁয়াজের দাম কেজিতে কমেছে ৭০ টাকা

গাজীপুর থেকে অপহৃত পিএসসি পরীক্ষার্থী কক্সবাজার সৈকতে উদ্ধার

চট্টগ্রামে ভবনে বিস্ফোরণ নিয়ে ‘ধূম্রজাল’

এবার চালের বাজারে অস্থিরতা

কক্সবাজারে ব্যাপক হারে কমে যাচ্ছে আবাদি জমির পরিমাণ

জাঁকজমক পূর্নভাবে কক্সবাজার জেলার ডেন্টাল সার্জনদের পুনর্মিলনী ও জেলা কমিটি গঠন

রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনে বাংলাদেশের অবস্থান নিয়ে মিয়ানমারের মিথ্যাচার

র‌্যাবের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সারোয়ারকে হাইকোর্টে তলব

বাইশারীতে সাজাপ্রাপ্ত পলাতক আসামী গ্রেফতার

পেকুয়ায় আওয়ামী লীগ নেতাকে কুপিয়ে জখম

সাবেক এমপি লুৎফুর রহমান কাজলের জন্মদিন আজ

লামায় ভূমি সংক্রান্ত জটিলতা, নিরসন প্রক্রিয়া এবং আইন বিষয়ক প্রশিক্ষণ

কাশ্মীর সীমান্তে বিস্ফোরণে ভারতীয় সেনা নিহত, আহত ২

খেতে না দেয়ার অভিযোগ এরশাদপুত্র এরিকের

বিএনপিতে উপেক্ষিত তারেক রহমান!

ভেঙে গেল এলডিপি

রিফাত হত্যা : ১৪ আসামির বিরুদ্ধে চার্জ গঠন ৮ ডিসেম্বর