প্রেস বিজ্ঞপ্তি :

সন্ত্রাস জঙ্গিবাদ মানবিকতা ও ভ্রাতৃত্ব বোধ নিয়ে পাকিস্তানের ইসলাবাদে ৪ দিনব্যাপী আন্তর্জাতিক ইসলামিক কনফারেন্স অনুষ্ঠিত হয়েছে। পাকিস্তানের শরীয়া একাডেমির সার্বিক তত্বাবধানে ইসলামী বিশ্বের প্রায় ১৪ টি রাষ্ট্রের ৩৭ জন স্কলার নিয়ে এ কনফারেন্স অনুষ্ঠিত হয়। ৮ অক্টোবর হতে ১১ অক্টোবর পর্যন্ত এই সম্মেলনের বিষয় বস্তু ছিলো ‘আন্তর্জাতিক ইসলামিক মানবিক আইন’। এই বিষয়ে নানা বক্তব্যে স্পষ্ট প্রমাণ হয় যে, ইসলাম শান্তি মানবতা ও মানবিক ধর্মের নাম। যার মডেল হযরত মুহাম্মদ (দ:) জীবন দর্শন ও খোলাফয়ে রাশেদা। সারা বিশ্বব্যাপী অন্যায় অনাচার, রক্তপাত বিনা বিচার, মানব হত্যা, রাষ্ট্র দখল চলছে। এই বিষয়ে সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদ গোটা বিশ্বে একটি জাগরণ সৃষ্টি করাই এই সম্মেলনের মূল লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য। এতে বৃহত্তর এশিয়া মহাদেশের স্কলারগণ উপস্থিত ছিলেন। সার্বিক সহযোগিতায় ছিলেন পাকিস্তান শরীয়া বোর্ডের চেয়ারম্যান ড. মোস্তাক আহমেদ। সম্মেলন শেষে প্রত্যেক স্কলারকে সম্মানাসহ সনদ প্রদান করেন।

উক্ত সম্মেলনে অংশগ্রহণ করে বাংলাদেশ সরকার কিভাবে সন্ত্রাস আর জঙ্গিবাদ দমন করেছেন তার উপর বিশেষ বক্তব্য প্রদান করে সরকারের সফলতা আর প্রশংসা করেন কক্সবাজার জেলার ইমাম সমিতির সভাপতি কাজী আলহাজ্ব মাওলানা সিরাজুল ইসলাম সিদ্দিকী। তিনি গতকাল ১৪ অক্টোবর দুপুরে ইসলামিক ফাউন্ডেশন কক্সবাজার জেলা কার্যালয়ে এক সৌজন্য সাক্ষাতে পাকিস্তানের অনুষ্ঠিতব্য সম্মেলন নিয়ে উপরোক্ত কথা বলেন। এসময় ইসলামিক ফাউন্ডেশনের উপপরিচালক ফাহমিদা বেগম, সহকারি পরিচালক সরওয়ার আকবর, জেলা আওয়ামীলীগ নেতা খুরশেদ আলমসহ সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তা কর্মচারিরা উপস্থিত ছিলেন। এদিকে বৃহত্তর এশিয়া মহাদেশের উক্ত ইসলামী সম্মেলনে অংশগ্রহণের সুযোগ করে দেয়ার জন্য তিনি ইসলামিক ফাউন্ডেশন কক্সবাজার জেলা কার্যালয়ের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছেন।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •