চট্টগ্রামে পচে যাচ্ছে মিয়ানমারের পেঁয়াজ, লোকসানে আমদানিকারকরা

ডেস্ক নিউজ:

চট্টগ্রামে ট্রাকে তোলা হচ্ছে পেঁয়াজচট্টগ্রামের খাতুনগঞ্জের হাজী আমিরুজ্জামান অ্যান্ড সন্স আড়তে রবিবার (৬ অক্টোবর) ৪০০ বস্তা পেঁয়াজ পাঠান আমদানিকারক মোহাম্মদ আব্দুল জব্বার। আড়তদার জানান, এর মধ্যে ১০০ বস্তার মতো পুরোপুরি পচে গেছে। ২০০ বস্তা আংশিক নষ্ট হয়েছে। বাকি ১০০ বস্তা কিছুটা ভালো থাকালেও প্রতিকেজি ২০ থেকে ২৫ টাকা দামে বিক্রি করতে হচ্ছে। মঙ্গলবার (৮ অক্টোবর) দুপুরে ওই আড়তে গিয়ে দেখা যায়, ৫০ বস্তারও বেশি পচা পেঁয়াজ মাটিতে পড়ে আছে।

জানা গেছে, মিয়ানমার থেকে বাংলাদেশে আসতে বেশি সময় লাগায় গরমে পেঁয়াজ পচে যাচ্ছে। যেগুলো ভালো থাকছে সেগুলোরও মান পড়ে যাওয়ায় কম দামে বিক্রি করতে হচ্ছে। ফলে আমদানিকারকরা লোকসানের মুখে পড়ছেন।

হাজী আমিরুজ্জামান অ্যান্ড সন্স আড়তের পরিচালক মো. জাকারিয়া বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘মিয়ানমার থেকে টেকনাফ হয়ে পাঠানো পেঁয়াজ বেশি দিন আড়তে রাখা যাচ্ছে না। দ্রুত পচে যাচ্ছে।’
শুধু হাজী আমিরুজ্জামান অ্যান্ড সন্স আড়ত নয়, পাইকারি বাজার খাতুনগঞ্জের একাধিক আড়তে একই চিত্র দেখা গেছে। মঙ্গলবার (৮ অক্টোবর) অধিকাংশ আড়তের সামনে নষ্ট পেঁয়াজের বস্তা পড়ে থাকতে দেখা যায়।

আড়তদাররা জানিয়েছেন, আমদানিকারকদের পাঠানো পেঁয়াজ আড়তদাররা কমিশনে বিক্রি করেন বলে আড়তদাররা কোনও ক্ষতির সম্মুখীন হন না।
খাতুনগঞ্জ ট্রেডিংয়ের কর্ণধার আবুল বশর বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘মিয়ানমার থেকে পেঁয়াজগুলো খাতুনগঞ্জে আসতে ৭ থেকে ১০ দিন সময় লেগে যাচ্ছে। এ কারণে গরমে পেঁয়াজের মান নষ্ট হচ্ছে। পরে আড়তে রাখলে দ্রুত পচে যাচ্ছে।’ গত দুই-তিন দিনে প্রায় এক কোটি টাকার পেঁয়াজ নষ্ট হয়েছে বলে জানান তিনি।

আবুল বশর আরও বলেন, ‘প্রতিটি আড়তে প্রতিদিন গড়ে ১০০ থেকে ১৫০ বস্তা করে পেঁয়াজ নষ্ট হয়ে যাচ্ছে। খাতুনগঞ্জে ১৫ থেকে ২০টি পেঁয়াজের আড়ত আছে। সেই হিসাবে গত তিন দিনে ৫ থেকে ৬ টন পেঁয়াজ নষ্ট হয়ে গেছে।’ মান নষ্ট হওয়ায় এসব পেঁয়াজ কম দামে বিক্রি করতে হচ্ছে বলেও তিনি জানান।
সরেজমিনে দেখা যায়, মিয়ানমারের পেঁয়াজ যেখানে বিক্রি হচ্ছে ৫৫ থেকে ৬০ টাকা কেজি দরে; সেখানে ভারতের পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে ৭০ থেকে ৭৫ টাকা দরে।

আমদানিকারক মো. আব্দুল জব্বার বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘এসব পেঁয়াজ লোহার বোটে করে মিয়ানমার থেকে টেকনাফে আনা হয়। টেকনাফ আনতে লাগে ৩ থেকে ৪ দিন। সেখানে খালাসের জন্য দুই থেকে তিন দিন অপেক্ষায় থাকে। ফলে মিয়ানমার থেকে পেঁয়াজের একটি চালান চট্টগ্রাম আসতে গড়ে ৭ থেকে ১০ দিন সময় লাগছে। এই সময়ে কোল্ড স্টোরেজের বাইরে থাকায় পেঁয়াজগুলো নষ্ট হয়ে যাচ্ছে।’

সর্বশেষ সংবাদ

উখিয়া ফোর মার্ডার, ২৫ দিনেও কার্যত কোন অগ্রগতি নেই

ক্যাসিনো থেকে মাসে ১০ লাখ টাকা নিতেন মেনন,সম্রাটের তথ্য

হিমছড়ি মেরিন ড্রাইভের পাশে আরো একজনের অজ্ঞাত লাশ

মেননের পার্টি ভাঙছে?

শীর্ষ বার্মাইয়া ডাকাত হাকিমের নেতৃত্বে দুই স্কুল ছাত্রী অপহরণ ও ডাকাতির অভিযোগ

ঢাকা উত্তর সিটির কাউন্সিলর রাজীব গ্রেফতার

‘ভিত্তিফলক’ ভাঙলেই কী একজন সালাহউদ্দিন আহমদকে মুছে ফেলা যায়!

‘পাকিস্তান-ভারত পরমাণু যুদ্ধ ২০২৫ সালে’

এই প্রথম মহাকাশে হাঁটলেন শুধু দুই নারী নভোচারী

রাক্ষুসে মাছ স্নেকহেড: দেখামাত্রই হত্যার নির্দেশ

টেকনাফে আটকের পর ‘বন্দুকযুদ্ধে’ মাদক ব্যবসায়ী নিহত

উখিয়ার প্রয়াত চিত্রশিল্পী ফরিদ চৌধুরীর একক চিত্র প্রদর্শনী

বাড়িতে ঢুকে গৃহবধূকে জবাই করে হত্যা

কচ্ছপিয়ায় মোটর সাইকেলের ধাক্কায় আহত বৃদ্ধ মারা গেছে

ভুয়া বিল ভাউচারে স্কুলের ১১ লাখ টাকা আত্মসাত, প্রধান শিক্ষক ও করণিক কারাগারে

নুরুলের হ্যাট্রিকেও পূরণ হলো না কলা অনুষদের ফাইনালের স্বপ্ন

বীর মুক্তিযোদ্ধা বজলুর রহমানের ৫ম মৃত্যুবার্ষিকীতে স্মরণ করলেন সৈনিকলীগ নেতা মিজান

কক্সবাজার সিটি কলেজ আন্তঃ অনুষদ ফুটবল : ফাইনালে সমাজবিজ্ঞান ও বাণিজ্য অনুষদ

২ জন দক্ষ কম্পিউটার অপারেটর আবশ্যক

পুলিশ ও জনতার সেতুবন্ধনে অপরাধ প্রবণতা নির্মূল সম্ভব