এ কে এম ইকবাল ফারুক, চকরিয়া:

বিভিন্ন অভিযোগে কক্সবাজারের চকরিয়া পৌর সদরে ভ্রাম্যমান আদালত অভিযান চালিয়ে এক লাখ ৬৫ হাজার টাকা জরিমানা আদায় করেছে। চকরিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও ভ্রাম্যমান আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট নূরুদ্দীন মুহাম্মদ শিবলী নোমান বৃহস্পতিবার (৩ অক্টোবর) দুপুর সাড়ে ১২টা থেকে বিকাল ৩টা পর্যন্ত এ অভিযান পরিচালনা করেন। এ সময় জেলা প্রশাসনের বেঁধে দেয়া নির্ধারিত মূল্যের চেয়ে অতিরিক্ত দামে পেয়াজ বিক্রি করায় চার মুদির দোকান ব্যবসায়ীকে ১ লাখ, অপরিচ্ছন্ন পরিবেশে নোংরা ও বাঁসি খাবার পরিবেশনের মাধ্যমে রেস্টুরেন্ট পরিচালনার দায়ে এক হোটেল মালিককে ৪০ হাজার ও পৌর সদরে ফুটপাত ও সড়কের উপর পথচারীদের চলাচলের প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করে ফলের ব্যবসা চালিয়ে যাওয়ায় পাঁচজন ব্যবসায়ীকে ২৫ হাজার টাকা জরিমানাসহ সর্বমোট ১ লাখ ৬৫ হাজার টাকা জরিমানা আদায় করা হয়। ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ আইনেই ভ্রাম্যমান আদালতের এ অভিযান চালানো হয়।

চকরিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও ভ্রাম্যমান আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট নূরুদ্দীন মুহাম্মদ শিবলী নোমান বলেন, জেলা প্রশাসন কর্তৃক বেঁধে দেয়া নির্ধারিত মূল্যের চেয়ে অতিরিক্ত দামে পেয়াজ বিক্রির অভিযোগ পেয়ে বৃহস্পতিবার দুপুরে বাজার মনিটরিং টিমের মাধ্যমে ক্রেতা সেজে পৌর সদরের বিভিন্ন মুদির দোকান থেকে পেয়াজ ক্রয় করা হয়। এসময় দোকানদাররা ক্রেতাদের কাছ থেকে জেলা প্রশাসনের নির্ধারিত মূল্যের চেয়ে অতিরিক্ত মূল্য হাতিয়ে নেয়ায় তাৎক্ষনিক ওইসব দোকান গুলোতে ভ্রাম্যমান আদালতের অভিযান চালানো হয়। অভিযান চলাকালে পেয়াজের অতিরিক্ত মূল্য হাতিয়ে নেয়ার অভিযোগ হাতেনাতে প্রমান হওয়ায় ব্যবসায়ী মুজিবুল হক মনুর মালিকানাধীন মেসার্স হক ব্রাদার্সের কাছ থেকে ২০ হাজার টাকা, মো. হোছনের দোকান থেকে ৩০ হাজার টাকা, আরিফুল ইসলামের দোকান থেকে ৩০ হাজার টাকা ও জসিম উদ্দিনের দোকান থেকে ২০ হাজার টাকা জরিমানা আদায় করা হয়।

ইউএনও শিবলী নোমান আরও বলেন, এছাড়া অপরিচ্ছন্ন পরিবেশে নোংরা ও বাঁসি খাবার পরিবেশনের মাধ্যমে রেস্টুরেন্ট পরিচালনার দায়ে চকরিয়া পৌর বাস টার্মিনালে আলী আহামদের মালিকানাধীন ইনসাফ হোটেলের কাছ থেকে ৪০ হাজার টাকা ও পৌর সদরে ফুটপাত ও সড়কের উপর পথচারীদের চলাচলের প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করে ফলের ব্যবসা চালিয়ে যাওয়ায় মো. রিয়াজ, হাসান, জাহেদ, মনছুর আলম ও মো. হোছনসহ পাঁচজন ফলের দোকান ব্যবসায়ী প্রত্যেককে পাঁচ হাজার টাকা করে ২৫ হাজার টাকা জরিমানা আদায় করা হয়। ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ আইনে এ অভিযান চালানো হয় বলেও জানান তিনি।

এ সময় চকরিয়া উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা কৃষিবিদ নাজমুল হোসেন, উপজেলা স্যানিটারি ইন্সপেক্টর জয়নাল আবেদীন, পৌরসভার স্যানিটারি ইন্সপেক্টর হায়দার আলী, চকরিয়া থানার উপপরিদর্শক (এসআই) জাকির হোসেন, চকরিয়া উপজেলা প্রশাসনের আইসিটি টেকনিশিয়ান এরশাদুল হকসহ থানা পুলিশ, উপজেলা ও পৌর প্রশাসনের লোকজন উপস্থিত ছিলেন।

  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •  
  •  
  •