বলরাম দাশ অনুপম:

ধর্ম যার যার উৎসব সবার। বাংলাদেশ সা¤প্রদায়িক স¤প্রীতির রোল মডেল। এদেশে কেউ সংখ্যালঘু নয়। নিজেদের সংখ্যালঘু ভাবার মনমানসিকতার পরিবর্তন ঘটাতে হবে। মানুষে মানুষে ভাতৃত্ববোধ সৃষ্টি করতে হবে। সামাজিক বন্ধন সুদৃঢ় করতে হবে। কক্সবাজার পৌর পূজা উদ্যাপন পরিষদের উদ্যোগে শুভ মহালয়া উপলক্ষে বস্ত্র বিতরণ ও শারদীয় দুর্গোৎসবের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বক্তারা উপরোক্ত কথা বলেন।

শনিবার সকালে শহরের লালদিঘীর পাড়স্থ ব্রাহ্ম মন্দির প্রাঙ্গনে পৌর পূজা উদ্যাপন পরিষদের সভাপতি বেন্টু দাশের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত উক্ত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন সহকারী পুলিশ সুপার (ট্রাফিক) বাবুল চন্দ্র বণিক। অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করেন জেলা পূজা উদ্যাপন পরিষদের সভাপতি এডভোকেট রনজিত দাশ। প্রধান বক্তা ছিলেন জেলা পূজা উদ্যাপন পরিষদের সাধারণ সম্পাদক বাবুল শর্মা।

শাওন চক্রবর্তী জনির সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত উক্ত অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্যে রাখেন-কক্সবাজার পৌরসভার প্যানেল মেয়র হেলাল উদ্দিন কবির, পৌর আওয়ামীলীগের সভাপতি নজিবুল ইসলাম, কক্সবাজার সদর মডেল থানার ওসি (তদন্ত) মোঃ খায়রুজ্জামান, বৌদ্ধ ধর্মীয় কল্যাণ ট্রাস্টের ট্রাস্টি এডভোকেট দীপংকর বড়–য়া পিন্টু, জেলা পূজা উদ্যাপন পরিষদের সহ-সভাপতি রতন দাশ, সহ-সভাপতি উদয় শংকর পাল মিঠু।

এতে ধর্মীয় আলোচনা করেন রাধা গোবিন্দ দাস ব্রহ্মচারী। অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন জেলা পূজা উদ্যাপন পরিষদের সহ-সভাপতি বিপুল সেন, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সাংবাদিক দীপক শর্মা দীপু, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক স্বরূপম পাল পাঞ্জু, কর্মকর্তা সাংবাদিক বলরাম দাশ অনুপম, পৌর পূজা উদ্যাপন পরিষদের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক মিঠুন কান্তি দে, মহালয়া উদ্যাপন পরিষদের আহবায়ক শিবু দাশ, যুগ্ম আহবায়ক বিকাশ কান্তি ধর, সদস্য সচিব রাজু পাল, শুভ দাশ প্রমুখ।

আলোচনা সভার শতাধিক লোকের মাঝে বস্ত্র ও প্রসাদ বিতরণ করা হয়। এরআগে মহালয়া উপলক্ষে একটি বণার্ঢ্য র‌্যালি শহরের বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে ব্রাহ্ম মন্দিরে গিয়ে শেষ হয়।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •