মুহাম্মদ মনজুর আলম,চকরিয়া:
চকরিয়ার বিভিন্ন সামাজিক সংগঠন ও শিক্ষার্থীদের অংশগ্রহণে ‘ বৈশ্বিক জলবায়ু ধর্মঘট’ উপলক্ষ্যে মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করা হয়েছে। মানববন্ধন কর্মসূচির মূল স্লোগান ছিল “একটাই বিশ্ব, একটাই বাংলাদেশ: বাঁচাও পৃথিবী, বাঁচাও বাংলাদেশ,বাঁচাও প্রজন্ম।
২৭ সেপ্টেম্বর শুক্রবার, সকাল সাড়ে দশটার সময় নাগরিক কমিটি (সনাক)- উদ্যোগে চকরিয়া নিউ মার্কেট প্রাঙ্গণে সনাক’র ইয়েস ফ্রেন্ডস গ্রুপ , চকরিয়ার যায়যায়দিন ফ্রেন্ডস ফোরাম , কালেরকন্ঠ শুভসংঘ, ডিএন্ডজি ক্লাব, অন্বেষন ব্লাড ডোনার সোসাইটি, চকরিয়া ব্লাড ডোনার সোসাইটিসহ বিভিন্ন সামাজিক সংগঠন ও শিক্ষার্থীদের অংশগ্রহণে সংগঠনগুলোর স্ব-স্ব ব্যনার, বিভিন্ন দাবীসহ প্ল্যাকার্ড হাতে নিয়ে এ মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করা হয় ।

সনাক সভাপতি অধ্যাপক একেএম শাহাবুদ্দিনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত মানববন্ধন কর্মসূচিতে বক্তব্য রাখেন সাবেক সনাক সভাপতি ও ডুলাহাজারা ডিগ্রি কলেজের অধ্যক্ষ আলহাজ্ব ফরিদ উদ্দিন চৌধুরী, সনাক সহ-সভাপতি বুলবুল জান্নাত শাহীন, চকরিয়া সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক জিএএম এনামুল হক, সনাক সদস্য সন্তোষ কুমার সুশীল, যায়যায়দিন ফ্রেন্ডস ফোরাম চকরিয়া উপজেলা শাখা সভাপতি আরাফাত হোছাইন , কালেরকন্ঠ শুভসংঘের প্রধান উপদেষ্টা ছোটন কান্তি নাথ, টিআইবির এরিয়া ম্যানেজার এ.জি.এম. জাহাঙ্গীর আলম। মানববন্ধন কর্মসূচিতে সাংবাদিক, সনাক, স্বজন, ইয়েস নেতৃবৃন্দ, বিভিন্ন সংগঠনের প্রতিনিধি, শিক্ষার্থী ও বিভিন্ন শ্রেণি পেশার মানুষ স্বতঃফূর্ত অংশগ্রহণ করেন।

মানববন্ধন কর্মসূচীতে বক্তারা দাবি করে বলেন, উন্নত বিশ্বকে জলবায়ু পরিবর্তনের সমস্যা সমাধানে অগ্রণী ভূমিকা পালন করতে হবে। এ ছাড়াও জলবায়ু সমস্যাকে বৈশ্বিক মনে করে হাত গুটিয়ে বসে থাকলে সমাধান হবেনা, শিল্পোন্নত দেশের পক্ষ থেকে চাহিদা মাফিক অতিরিক্ত অর্থছাড় নিশ্চিতকরণ ও প্রতিশ্রুত ওয়াদা পূরণসহ প্রতিটি দেশের পক্ষ থেকে ঝঁুকি মোকাবেলায় স্ব-স্ব উদ্যোগ নিয়ে এগিয়ে আসতে হবে। বাংলাদেশের পক্ষ থেকে জলবায়ু পরিবর্তনের ফলে সাম্ভাব্য ক্ষতি কমিয়ে আনার জন্য পরিবেশ রক্ষায় জোরালো উদ্যোগের দাবী জানাতে হবে । বিশেষ করে শিল্প কারখানা ও বিদ্যুৎ উৎপাদনে জীবাশ্ম জালানি ব্যাবহার কমিয়ে নবায়ন যোগ্য জালানির সর্বোচ্চ ব্যবহারের দ্রুত উদ্যোগ গ্রহণ, ২৫ ভাগ বনভূমি সংরক্ষণ, পাহাড়, পুকুর, খাল-বিল, নদী ও জলাশয় সংরক্ষণ, পর্যাপ্ত শিল্প বর্জ্য শোধানাগার স্থাপন, বৃক্ষ রোপনসহ বিভিন্ন উদ্যোগ নেয়ারও দাবী জানানো হয়। একই সাথে জলবায়ু অর্থায়নে সকল প্রকল্প গ্রহনের সময় ক্ষতিগ্রস্ত জনগনের মতামত গ্রহণ, অর্থ ব্যয়ে দুর্নীতি ও অপচয় রোধে স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতা প্রতিষ্ঠার জন্য জোরালো সরকারী পদক্ষেপের দাবীও করা হয় ।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •