সংবাদদাতা:
মাতারবাড়ির পুরান বাজারে হামলায় কলেজ ছাত্রীসহ আহত ৪ জন। পুলিশ তাৎক্ষনিক চিরুনী অভিযান চালিয়ে হামলাকারীদের ৩ জনকে গ্রেপ্তার করেছে।
প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, ২৬ সেপ্টেম্বর দুপুর ১টায় মহেশখালীর চিহ্নিত সন্ত্রাসী ও ক্রসফায়ারের আসামী জিয়া বাহিনীর প্রধান জিয়ার নেতৃত্বে তার দলের লালিত সন্ত্রাসী আব্দুল মালেক, মামুন, সাইফুল, রোকন উদ্দিন, জিল্লুর রহমান, আবু ছালেক, নুরুন্নাহার ও সোহেলের নেতৃত্বে একদল সন্ত্রাসী অস্ত্রসস্ত্র সজ্জিত হয়ে একই এলাকার আব্দুল হালিমের বাড়িতে হামলা চালায়। এসময় হামলাকারীরা ঘর ভাংচুর এবং বাড়ির আসবাবপত্র, টাকা পয়সা ও স্বর্ণালংকার লুট করে নিয়ে যায়। এসময় বাধা দিতে গেলে আব্দুল হালিম, কলেজ পড়ুয়া ছাত্রী আইরন ফারজানা, মায়েশা খানম ও আলমগীর কে পিটিয়ে গুরুতর আহত করেছে। আহত আব্দুল হালিমের অবস্থা আশংঙ্কাজনক হওয়ায় মহেশখালী হাসপাতালের চিকিৎসক কক্সবাজার সদর হাসপাতালে রেফার করেছে।

খবর তাৎক্ষণিক মাতারবাড়ি পুলিশ ফাঁড়ির আইসি আনিস ও এসআই জাহাঙ্গীরের নেতৃত্বে অভিযান চালিয়ে ৩ সন্ত্রাসীকে গ্রেপ্তার করেছে। গ্রেপ্তারকৃতরা হলেন-সন্ত্রাসী আব্দুল মালেক, সাইফূল ইসলাম ও অপর আরেকজন।

এলাকাবাসি জানান, উপরোল্লিখিত চিহ্নিত সন্ত্রাসী জিয়া বাহিনীর প্রধান জিয়াসহ অপরাপর তার সহযোগী সন্ত্রাসীদের অত্যাচারে পুরো মাতারবাড়ি বাসি অতিষ্ঠ হয়ে পড়েছে। ওই সন্ত্রাসীরা আব্দুল হালিমের কাছ থেকে ১০ লক্ষ টাকা চাদাঁ দাবী করেছে তা দিতে অপরাগতা প্রকাশ করায় তাদের উপর এই বর্বর কায়দায় হামলা চালিয়েছে। সন্ত্রাসীরা চাদাঁবাজী, চিংড়ীঘের দখল, অন্যের সহায় সম্পত্তি জোরপূবক দখল, ইয়াবা, হিরোইন ও অস্ত্রের ব্যবসা করে থাকে। শেষ খবর পাওয়া পযর্ন্ত ওই সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে মামলার প্রক্রিয়া চলছে।

এ ব্যাপারে মহেশখালী থানার ওসি প্রভাষ চন্দ্র ধর জানান, সন্ত্রাসীদেরকে দ্রুতগতিতে গ্রেপ্তার করে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে। কারো ছাড় দেওয়া হবে না।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •