কক্সবাজারের পেকুয়া উপজেলা কমিউনিটি পুলিশের কমিটি গঠিত হয়েছে। জেলা আ’লীগের সাবেক মুক্তিযোদ্ধা বিষয়ক সম্পাদক বর্তমান জেলা কমিটির উপদেষ্ঠা সাবেক চেয়ারম্যান এডভোকেট কামাল হোসেনকে সভাপতি ও মগনামা ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচিত চেয়ারম্যান তরুণ আ’লীগ নেতা শরাফত উল্লাহ চৌধুরী ওয়াসিমকে সাধারণ সম্পাদক মনোনীত করা হয়েছে।
পেকুয়া থানা প্রশাসনের উদ্দেগে সদ্য অনুষ্ঠিত ওপেন হাউস ডে সভায় তাদের আশংকি কমিটি ঘোষণা করা হয়। কমিটি ঘোষণার পরপরই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে অভিনন্দন বার্তা দিয়ে স্বাগত জানান বিভিন্ন পেশার মানুষ।
এদিকে কমিটি ঘোষণা হওয়ার পর থেকে তৃণমূল আ’লীগে উৎসাহ আর উদ্দিপনা দেখা দিয়েছে। পেকুয়া সদর ইউনিয়ন আ’লীগের সভাপতি এম আজম খান, যুগ্ন সম্পাদক ফোরকান, সাংগঠনিক সম্পাদক হেলাল উদ্দিন, টইটং ইউনিয়ন আ’লীগের সভাপতি সরওয়ার আলম, সাধারণ সম্পাদক ইউপি চেয়ারম্যান জাহেদুল ইসলাম, মগনামা ইউনিয়ন আ’লীগের সহসভাপতি নাজেম উদ্দিন, সাধারণ সম্পাদক রশিদ আহমদ, উজানটিয়া ইউনিয়ন আ’লীগের সভাপতি তোফাজ্জল করিম, সাধারণ সম্পাদক এম.শাহাজামাল, বারবাকিয়ার সভাপতি আবুল শামা শামীম, সাধারণ সম্পাদক কামাল হোসেন, শিলখালী ইউনিয়ন আ’লীগের সভাপতি ওয়াহিদুর রহমান ওয়ারেছি, সাধারণ সম্পাদক বেলাল উদ্দিন, রাজাখালী ইউনিয়ন আ’লীগের সভাপতি প্রবীণ আ’লীগ নেতা নুরুল ইসলাম বিএসসি ও সাধারণ সম্পাদক আবুল কাশেম, উপজেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক মোঃ বারেক, জাতীয় শ্রমিকলীগের সভাপতি নুরুল আবছার, সম্পাদক এসএম শাহাদত হোসেন, উপজেলা সেচ্ছাসেবকলীগের সভাপতি ইউপি সদস্য ওসমাণ গণি, সম্পাদক নেজাম উদ্দিন, উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি এম.কপিল উদ্দিন বাহাদুর এক বিবৃতিতে জানান, কক্সবাজার জেলা তথা পেকুয়া উপজেলার জনপ্রিয় ব্যক্তি এডভোকেট কামাল হোসেন। তিনি স্বর্ণপদকপ্রাপ্ত সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান। অতিতে জেলা আ’লীগের বিভিন্ন পদে আসীন ছাড়াও বর্তমানে জেলা আ’লীগের উপদেষ্টা হিসাবে দায়িত্ব পালন করছেন। এছাড়াও পেকুয়া উপজেলায় দীর্ঘদিন ধরে কমিউনিটি পুলিশিং কার্যক্রমে জড়িত। কোন ধরণের বিতর্ক নাই কামাল সাহেবের জন্য। তাকে সভাপতি করা সময়ের সেরা সিদ্ধান্ত। যারাই এ কমিটি অনুমোদন করেছেন তারাও সঠিক সিদ্ধান্ত নেওয়ায় আন্তরিকভাবে আমরা সন্তোশ প্রকাশ করছি। এছাড়াও সাধারণ সম্পাদক পদে বর্তমান সময়ের জনপ্রিয় চেয়ারম্যান মগনামা সমগ্র ইউনিয়নের উন্নয়নের রুপকার বিশিষ্ট শিক্ষানুরাগী শরাফত উল্লাহ চৌধুরী ওয়াসিমকে মনোনীত করায় অভিনন্দন ও শুভেচ্ছা জানাচ্ছি। তিনি জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নৌকার মনোনীত প্রার্থী আলহাজ্ব জাফর আলমের পক্ষে অবিরাম কাজ করে তৃণমূল আ’লীগের মন জয় করেছে। এছাড়াও বিগত উপজেলা পরিষদ নির্বাচনেও নৌকার পক্ষে তার জোরালো ভুমিকা রাখেন। যার কারণে চকরিয়া-পেকুয়ার মাননীয় সাংসদ আলহাজ্ব জাফর আলমও অনেক খুশি। এমনকি প্রত্যেকটি আ’লীগ দলীয় ও জাতীয় কর্মসূচিতে তার অগ্রণী ভুমিকা তৃণমূল আ’লীগের সব পর্যায়ের নেতাকর্মীরা সন্তুষ্ট। আ’লীগের যে কোন কর্মসূচিতে আমরা যখন তাকে চেয়েছি সব সময় পেয়েছি। প্রবীণ আর নবীণের সমন্বয়ে জিমিয়ে পড়া পুলিশিং কার্যক্রম বেগবান ও গতিশীল হবে বলে আমরা আশাবাদ ব্যক্ত করছি। কিন্তু কিছু কু-চক্রিমহল তার জনপ্রিয়তায় ঈর্ষান্বিত হয়ে দীর্ঘদিন ধরে অপপ্রচার চালিয়ে যাচ্ছে। গতকাল একটি পত্রিকা ও অনলাইনেও বেশ কিছু মিথ্যা তথ্য দিয়ে সংবাদ প্রকাশ করা হয়েছে। এমনকি অনেকের বক্তব্য উত্থাপন করা হয়েছে যারা কোন ধরণের বক্তব্য দেননি। যার কারণে আমরা মর্মাহত। আমাদের আশা ও বিশ্বাস কু-চক্রিমহলের সব বাধাকে উপক্ষো করে কমিউনিটি পুলিশকে এগিয়ে নিয়ে যাবে এবং উপজেলা আ’লীগ ও ইউনিয়ন আ’লীগের সুঃখ দুঃখের ভাগিদার হিসাবে থাকবে। তার বিরুদ্ধে মিথ্যা অপপ্রচারে বিভ্রান্ত নাহওয়ার অনুরোধ জানাচ্ছি।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •