মুহাম্মদ আবু সিদ্দিক ওসমানী :

কিছু অসাধু জনপ্রতিনিধি রোহিঙ্গা শরনার্থীদের জালিয়তি করে পাসপোর্ট তৈরীতে এবং এদেশের জাতীয় পরিচয় পত্র পেতে ও ভোটার হতে বিভিন্নভাবে সহযোগিতা করছে। তাদের বিষয়ে তদন্ত চলছে, তদন্তে যাদের নাম আসবে তাদেরকে কঠোর আইনের আওতায় আনা হবে। চট্টগ্রাম রেন্ঞ্জের ডিআইজি’র সম্মেলন কক্ষে তাঁর সভাপতিত্বে রেঞ্জের ১১ টি জেলার পুলিশের মাসিক অপরাধ পর্যালোচনা সভায় সভাপতির বক্তব্যে ডিআইজি খন্দকার গোলাম ফারুক (বিপিএম-বার, পিপিএম) একথা বলেন। বিষয়টি সভায় অংশ নেয়া কক্সবাজারের পুলিশ সুপার এ.বি.এম মাসুদ হোসেন বিপিএম সিবিএন-কে নিশ্চিত করেছেন। রোহিঙ্গা শরনার্থীরা টেকনাফ-কক্সবাজার সড়কে বসানো চেকপোস্টের কারণে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে ফাঁকি দিয়ে সহজে সড়কপথে আসতে পারেনা। তারা পাহাড়িপথ, নদীপথ ইত্যাদি হয়ে গোপনে বিভিন্ন জায়গায় চলে যাচ্ছে। ডিআইজি খন্দকার গোলাম ফারুক (বিপিএম-বার, পিপিএম) বলেন-রোহিঙ্গারা সহজে তাদের ক্যাম্প থেকে বের হতে পারছে বলেই, তারা সহজে অপরাধকর্মে জড়িয়ে পড়ছে। তাই রোহিঙ্গা শরনার্থীদের ক্যাম্পে নিয়ন্ত্রণে সরকারের উচ্চ পর্যায়ে বিভিন্ন প্রস্তাব প্রেরণ করা হয়েছে। সে প্রস্তাব গুলো বিবেচনা করে বাস্তবায়নের জন্য সম্ভ্যাবতা যাচাই করা হচ্ছে। প্রস্তাব গুলোর মধ্যে রয়েছে-ক্যাম্প সীমানায় কাঁটা তারের নির্মাণ, সার্চ লাইট স্থাপন, রাস্তা নির্মাণ, আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর জনবল বৃদ্ধি ইত্যাদি। সভায় ডিআইজি খন্দকার গোলাম ফারুক (বিপিএম বার পিপিএম) রোহিঙ্গা শরনার্থীদের বিষয়ে সতর্ক থাকার জন্য পুলিশ সুপারদের গুরুত্বপূর্ণ নির্দেশনা দেন। বৃহস্পতিবার ১৯ সেপ্টেম্বর অনুষ্ঠিত সভায় অন্যান্যের মধ্যে রেঞ্জের অতিরিক্ত ডিআইজি (অপরেশনস এন্ড ক্রাইম) আবুল ফয়েজ, কক্সবাজারের পুলিশ সুপার এ.বি.এম মাসুদ হোসেন বিপিএম, চট্টগ্রামের পুলিশ সুপার নুরে আলম মিনা বিপিএম সহ রেঞ্জের উর্ধ্বতন পুলিশ কর্মকর্তাগণ, বিভাগের অন্যান্য পুলিশ সুপারগণ উপস্থিত ছিলেন। সভায় কক্সবাজার জেলা পুলিশকে ৫ টি ক্যাটগরীতে সার্বিক সাফল্যের জন্য পুরস্কৃত করা হয়। ক্যাটাগরী গুলো হচ্ছে-(১) অস্ত্র উদ্ধার (২) মাদক উদ্ধার (৩) ওয়ারেন্ট তামিল (৪) শ্রেষ্ঠ ডিবি ইউনিট ও (৫) শ্রেষ্ঠ এসআই। কক্সবাজারের পুলিশ সুপার এ.বি.এম মাসুদ হোসেনের সাথে জেলা পুলিশের পুরস্কার প্রাপ্তরা আনুষ্ঠানিকভাবে ডিআইজি খন্দকার গোলাম ফারুক (বিপিএম-বার, পিপিএম) এর কাছে পুরস্কার ও সনদ গ্রহন করেন।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •