নিজস্ব প্রতিবেদক:
সদর উপজেলার ভারুয়াখালী ঘোনার পাড়ায় পরকিয়ার জের ধরে কুখ্যাত ডাকাত কফিলের বিরুদ্ধে নিজ স্ত্রীকে মুখে বিষ ঢেলে দিয়ে হত্যার অভিযোগ উঠেছে। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ে সদর হাসপাতালে মৃত্যু বরণ করে হতভাগা শাকেরুন (৩০)। তার মৃত্যুতে পরিবারে শোকের ছায়া নেমে এসেছে।
শাকেরুনের বোন আরেফা আক্তার বলেন, বিয়ের পর থেকে তার বোন শাকেরুনকে নির্যাতন করে আসছে স্বামী মোজাফফর সেক্রেটারির পুত্র আবু জাহেদ মোঃ কফিল উদ্দিন। একই সাথে কফিলের আপন সহোদর কুখ্যাত ডাকাত শাহীন, হেলাল উদ্দিন বাবুল ও মহিউদ্দিন শাকেরুনকে নানাভাবে নির্যাতন করত। সম্প্রতি ডাকাত কফিলের সাথে স্থানীয় গ্রাম পুলিশ মতিয়া বেগমের পরকিয়ার সম্পর্ক চলে আসছিল। এরপর থেকে শাকেরুনের জীবনে নেমে আসে অন্ধকারের ছায়া। প্রতিদিন তার উপর স্বামী কফিল নির্যাতনের স্ট্রীম রোলার চালায়। গত তিনদিন ধরে শাকেরুনকে কফিল ও তার ভাইয়েরা মারধর করে আসছিল। একপর্যায়ে বুধবার সকালে বেধম প্রহারে শাকেরুনের শারীরিক অবস্থা বেগতিক হলে জোর করে মুখে বিষ ঢেলে দেয়া হয়। এতে সে ছটফট করতে থাকলে কফিলের সৎ মা রেজিয়া বেগম তাকে সকাল ১১টার দিকে কক্সবাজার সদর হাসপাতালে ভর্তি করান। হাসপাতালে মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ে বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন অভাগী শাকেরুন।
জানা যায়, ভারুখালীতে কফিল ও তার ভাইদের ভাই ভাই গ্রুপ নামে কুখ্যাত ডাকাত বাহিনী রয়েছে। এই বাহিনী দীর্ঘদিন ধরে ডাকাতিসহ নানা অপকর্মের সাথে জড়িত। তাদের বিরুদ্ধে রয়েছে একাধিক মামলা। সম্প্রতি কফিলের নাম ক্রস ফায়ারের তালিকায়ও রয়েছে। এছাড়া তাদের বিরুদ্ধে মাদকের সাথে সংশ্লিষ্ঠ থাকারও অভিযোগ রয়েছে। ভারুখালী ইউনিয়নের চেয়ারম্যান শফিকুর রহমান সিকদার ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেন।
এ বিষয়ে কক্সবাজার সদর মডেল থানার ওসি (তদন্ত) মোঃ খায়রুজ্জামান বলেন, বিষয়টি এখনো অজানা। কেউ অভিযোগ করলে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •