সংবাদদাতা:
মহেশখালী উপজেলার কালারমারছড়া পুলিশ ক্যাম্পের টু আইসি এএসআই জাহাঙ্গীরের ধারাবাহিক অভিযানে কোনঠাসা হয়ে পড়েছে স্থানীয় কালারমারছড়া এলাকার সন্ত্রাসীরা। ইতোমধ্যে তার নেতৃত্বে পরিচালিত অভিযানে গ্রেফতার হয়েছে একাধিক দাগি সন্ত্রাসী। এ অবস্থায় নোনাছড়ি ভিত্তিক সন্ত্রাসীদের একটি সিন্ডিকেট তাকে বেকায়দায় ফেলতে মোটা টাকার মিশন নিয়ে মাঠে নেমেছে। -তথ্য স্থানীয় একাধিক সূত্রের। ফলে রবিবার বিকালে নোনাছড়ি বাজার কমিটির নাম ভাঙ্গিয়ে নাটকীয় একটি মানববন্ধন করেছেন সন্ত্রাসীদের চাপের মুখে স্থানিয় এলাকাবাসী।
স্থানীয় সূত্রগুলো জানাচ্ছে – এলাকার আইনশৃঙ্খলা ঘোলাটে করার জন্য মহলবিশেষ এ অপতৎপরতা শুরু করেছে। প্রসঙ্গতঃ এএসআই জাহাঙ্গীর একজন সাহসি পুলিশ কর্মকর্তা হিসেবে পুলিশ বিভাগে তার বেশ সুখ্যাতি রয়েছে। ইতোমধ্যে দু’বার শ্রেষ্ট পুলিশ কর্মকর্তা নির্বাচিত হয়। তবে সুশিল সমাজের লোকজনের প্রত্যাশা এএস আই জাহাঙ্গীর কালারমারছড়া পুলিশ ফাঁড়ীতে বহাল থাকলে এলাকা শীতল থাকবে। আর সন্ত্রাসীদের ঘুম হারাম হয়ে যাবে এ চৌকষ পুলিশ কর্মকর্তার সন্ত্রাসী বিরুদ্ধে অভিযানের কারনে।
কালারমারছড়ার চেয়ারম্যান তারেক বিন ওসমান শরীফ জানিয়েছেন, পুলিশের বিরুদ্ধে সন্ত্রাসীদের মানববন্ধন এখন রেওয়াজে পরিণত হয়েছে। কিছুদিন আগে কয়েকজন দাগী সন্ত্রাসী তৎকালিন আইসি এসআই শাহজাহান গ্রেপ্তার করলে নোনাছড়ি এলাকার বাহিনী প্রধানের নেতৃত্বে মানবন্ধন করে সন্ত্রাসীরা। গতকালের মানববন্ধনও একই সুত্রে গাঁতা। যাকে মহেশখালী থানার পুলিশ হন্য হয়ে খুজছে সে বদাইয়াকে মানববন্ধনে দেখে এলাকাবাসি অবাক হয়েছে। সন্ত্রাসিরা ইতোমধ্যে প্রশাসনের প্রতি চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দিয়েছে। এলাকার মানুষ নোনাছড়ি ও আঁধারঘোনার এই সন্ত্রাসীদের পুলিশি অভিযান আরো জোরদার দেখতে চায়।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •