অনলাইন ডেস্ক : পরীক্ষায় নকল আটকাতে স্কুল কর্তৃপক্ষই কত পন্থাই না অবলম্বন করেন। এমন ভাবে পরীক্ষার্থীদের বসানো হয় যাতে একে অপরের সঙ্গে কথা বলতে বা খাতা দেখাতে না পারে তারা। বা পরীক্ষা হলে বেশি করে শিক্ষককে রাখা হয়। আরও উন্নত চিন্তাভাবনা থেকে, এমন ভাবে পরীক্ষা হলের আলোর ব্যবস্থা করা হয়, যাতে একজন পরীক্ষার্থী নিজের ছাড়া অন্য কারও খাতা দেখতে পাবেন না। কিন্তু মেক্সিকোর একটি স্কুলে শিক্ষকরা যেপদ্ধতি অবলম্বন করলেন তা আগে কখনও শোনা যাননি। ওই স্কুলের শিক্ষকদের এহেন ব্যবস্থায় ক্ষুব্ধ অভিভাবকরাও।

সম্প্রতি সোশ্যাল মিডিয়ায় একটি ছবি প্রকাশ পেয়েছে। সেখানে দেখা যাচ্ছে, একটি ক্লাস রুমে কয়েকজন পড়ুয়া বসেপরীক্ষা দিচ্ছে। আর তাদের মাথায় পরানো কাগজের বাক্স।সেই বাক্সেরসামনে দু’টো ফুটো করা রয়েছে দেখার জন্য। আসলে পরীক্ষায় নকল আটকাতে এই অভিনব পন্থা নিয়েছেন স্কুল কর্তৃপক্ষ।

এই ছবি সেন্ট্রাল মেক্সিকোর একটি রাজ্যের।পরীক্ষা হলের এই ছবি, এক পড়ুয়ার অভিভাবকসোশ্যাল মিডিয়ায় আপলোড করে দেন। তারপরই শুরু হয়েছে বিতর্ক। এভাবে নকল আটকাতে প়ড়ুয়াদের বাক্স পরিয়ে পরীক্ষায় বসানো অনৈতিক বলে দাবি করেছেন তাঁরা। সেই সঙ্গে দাবি তুলেছেন, স্কুলের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষককে তাঁর পদ থেকে সরানো হোক।

বিতর্ক শুরু হওয়ার পর মুখ খুলেছে স্কুল কর্তৃপক্ষ। তাদের দাবি, এটি একটি প্রগতিশীল চিন্তাভাবনা। এই পদ্ধতিতে ছাত্রদের সাইকোমোটর ডেভলপমেন্ট হবে। এবং এই পদ্ধতি অবলম্বনের আগে পড়ুয়াদের সঙ্গে কথা বলে তাদের মতামত নিয়েই করা হয়েছে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •