বিদেশ ডেস্ক:

বিতর্কিত ইসলামি বক্তা ডা. জাকির নায়েকের করা মানহানি মামলায় মালয়েশিয়ার পেনাং প্রদেশের উপমুখ্যমন্ত্রী পি, রামাসামি এবং বাগান দালামের প্রতিনিধি সাতিন মুনিয়ান্দিকে জিজ্ঞাসাবাদ করেছে পুলিশ। রামাসামিকে প্রায় চার ঘণ্টা জিজ্ঞাসাবাদ করা হয় আর সাতিসকে করা হয় তিন ঘণ্টা।

সম্প্রতি মালয়েশিয়ার সংখ্যালঘু হিন্দুদের নিয়ে বর্ণবাদী মন্তব্যের জেরে ওই দেশ থেকে জাকির নায়েকের আশ্রয় বাতিলের প্রসঙ্গটি আলোচনায় আসে। এ ঘটনায় পুলিশি তদন্ত চলছে। এরইমধ্যে দুইবার পুলিশি জেরার মুখেও পড়তে হয়েছে তাকে। একই ঘটনায় মানহানির অভিযোগ এনে গত ১৬ আগস্ট দেশটির এক মন্ত্রীসহ পাঁচ জনের বিরুদ্ধে পাল্টা মামলা করেন জাকির। তার দাবি, ওই পাঁচ জন তার বক্তব্যের খণ্ডিত অংশ উপস্থাপন করে তার ভুল ব্যাখ্যা করেছেন।

জাকির নায়েকের মামলায় অভিযুক্তরা হলেন কেন্দ্রীয় সরকারের জনসম্পদমন্ত্রী কুলাসেগারান, সাবেক রাষ্ট্রদূত ডেনিস ইগনাশিয়াস, পেনাং রাজ্যের উপ-মুখ্যমন্ত্রী পি রামাসামি, বাগান দালামের প্রতিনিধি সাতিস মুনিয়ান্দি এবং ক্লাংয়ের আইন প্রণেতা চার্লস সান্তিয়াগো।

সাতিস বলেন, পুলিশ তাকে জানিয়েছে পেনাল কোডের ৫০০ ও ৫০৪ ধারায় তাদের বিরুদ্ধে তদন্ত কার্যক্রম পরিচালিত হচ্ছে। তিনি বলেন, মালয়েশিয়াকিনিতে প্রকাশিত বিবৃতির সূত্র ধরে জাকির নায়েক তার বিরুদ্ধে মামলা করেছেন।

সাতিস বলেন, আমি বিবৃতিতে যা বলেছি এখনও সেই অবস্থানেই রয়েছি। তবে পুলিশকে সর্বাত্মক সহায়তা করবো আমরা।

অন্যদিকে রামাসামি বলেন, তার বিরুদ্ধে দুটি মামরা হয়েছে। একটি ফ্রি মালয়েশিয়া টুডেতে প্রকাশিত বিবৃতির জন্য ও আরেকটি ইন্ডিয়া টুডেকে দেওয়া সাক্ষাতকারের জন্য। তিনিও বলেনম জাকির নায়েকের মালয়েশীয়দের আনুগত্য নিয়ে প্রশ্ন করার অধিকার নেই। তিনি বলেন, সে একজন পলাতক আসামি। এখানে এসে বর্ণবাদী বক্তব্য দেবে সেটা আমরা মেনে নিতে পারি না।

পুলিশকে সর্বাত্মক সহযোগিতা করেছেন বলে দাবি করেন এই উপমুখ্যমন্ত্রীও।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •