অনলাইন ডেস্ক : রকেট হামলার সতর্কতামূলক সাইরেন শুনে নির্বাচনী প্রচারণা মঞ্চ ছেড়ে নিরাপদ স্থানে আশ্রয় নিতে বাধ্য হন ইসরাইলের প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহু। তারপরই অবরুদ্ধ গাজা উপত্যকায় বিমান হামলা চালিয়েছে ইসরাইল।

জানা যায়, মঙ্গলবার রাতে বন্দরনগরী আশদোদে একটি নির্বাচনী প্রচারের সময় এই ঘটনা ঘটেছে।

হামাসের অস্ত্র উৎপাদন কারখানা ও একটি নৌ স্থাপনাসহ অন্তত ১৫টি লক্ষ্যবস্তুতে হামলা চালিয়েছে বলে নিশ্চিত করেছে ইসরায়েলী বিমানবাহিনী। তবে হামলায় হতাহতের কোন খবর এখন পর্যন্ত পাওয়া যায়নি। সূত্র. টাইমস অব ইসরায়েল।

এর আগে মঙ্গলবার রাতে ইসরায়েলের বন্দরনগরী আশদোদে ১৭ সেপ্টেম্বর অনুষ্ঠেয় সাধারণ নির্বাচনের প্রচারের জন্য আয়োজিত একটি সমাবেশে ভাষণ দিতে এসেছিলে প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহু।ক্ষমতাসীন লিকুদ পার্টি ওই সমাবেশের আয়োজন করে।ভাষণে নেতানিয়াহু নির্বাচনে ফের জয় পেলে অধিকৃত পশ্চিম তীরের একটি অংশ ইসরাইলের অন্তর্ভুক্ত করে নেওয়ার একটি পরিকল্পনা ঘোষণা করেন। এ ঘোষণার কিছুক্ষণ বাদেই রকেট হামলা হয়।

রকেট হামলার সাইরেন বেজে ওঠার সঙ্গে সঙ্গে নেতানিয়াহুর দেহরক্ষীরা নিরাপত্তা ব্যূহ তৈরি করে তাকে দ্রুত মঞ্চ থেকে সরিয়ে নেন।

মঞ্চ থেকে নামার সময় সমাবেশে উপস্থিত লোকজনের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, ‘আপনারা নীরবে চলে যান।’ এর কয়েক মিনিট পর মঞ্চে ফিরে নেতানিয়াহু ফের ভাষণ শুরু করেন।

অবরুদ্ধ গাজা উপত্যকা থেকে রকেট হামলার পর থেকে দক্ষিণাঞ্চলের শহরটিতে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে।এদিকে আশদোদ ও পার্শ্ববর্তী আশকেলনে ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিরক্ষাব্যবস্থা আয়রন ডোম দিয়ে দুটি রকেট গুলি করে ধ্বংস করেছে ইসরায়েলি প্রতিরক্ষা বাহিনী। আশ্রয়কেন্দ্রে যেতে ব্যর্থ হয়ে রক্তচাপ বেড়ে যায় ৪৬ বছর বয়সী এক নারীর। এরপর নিকটবর্তী একটি স্বাস্থকেন্দ্রে চিকিৎসা নেন তিনি।

নেতানিয়াহুর মঞ্চ ছাড়ার ঘটনাটি সরাসরি ভিডিওতে প্রচার করা হয়। প্রধানমন্ত্রী মঞ্চ ছাড়তে বাধ্য হচ্ছেন, দেখার পর তার রাজনৈতিক বিরোধীরা দক্ষিণ ইসরাইলে সীমান্তের বিপরীত পাশ থেকে রকেট হামলা ঠেকাতে নেতানিয়াহু যথেষ্ট পদক্ষেপ নেননি বলে সমালোচনা শুরু করেন।- টিবিটি

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •