সংবাদ বিজ্ঞপ্তি:
হিজরি নববর্ষ ও ১০ই মুহাররাম পবিত্র আশুরা উপলক্ষে সেমিনার করেছে রামু রাজারকুল আজিজুল উলূম মাদ্রাসা ও এতিমখানা। মাদ্রাসার ইসলামি সাহিত্য ও গবেষণা বিভাগের ব্যবস্থাপনায় আয়োজিত এ সেমিনারে প্রধান আলোচক ছিলেন বিশিষ্ট ইসলামি চিন্তাবিদ ও মাদ্রাসার স্বনামধন্য পরিচালক আলহাজ্ব হযরত মাওলানা মুহাম্মদ মুহসিন শরীফ।
সেমিনারে সভাপতিত্ব করেন মাদ্রাসার বিশিষ্ট মুহাদ্দিস ও প্রবীণ সিনিয়র শিক্ষক মাওলানা আব্দুল খালেক কৌছর।
ছাত্র হাফেজ আতাউল্লাহ’র সঞ্চালনায় এ সেমিনারে স্বাগত বক্তব্য প্রদান করেন মাদ্রাসার ইসলামী সাহিত্য ও গবেষণা বিভাগের তত্ত্বাবধায়ক মাওলানা মুফতি দেলোয়ার হোসাইন । শুরুতে ক্বেরাত পরিবেশন করেন হাফেজ মুহাম্মদ নুরুল আবছার এবং যৌথ কন্ঠে একটি ইসলামী সংগীত পরিবেশন করেন, ছাত্র হাফেজ মুহাম্মদ বেলাল হোছাইন, জুবায়ের ও বোরহান উদ্দিন রব্বানী।
প্রধান আলোচক মাওলানা মুহসিন শরীফ তাঁর বক্তব্যে বলেন, হিজরী বর্ষপঞ্জির প্রথম মাস মুহাররম হচ্ছে ইসলামের অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ মাস। এই মাসকে আল্লাহ পাক নিজের মাস বলে অভিহিত করছেন। তিনি নবীজীর (স) একটি হাদিসের উদ্ধৃতি দিয়ে বলেন, রমজানের পরে এই মাসের রোজার গুরুত্ব সবচেয়ে বেশি; বিশেষ করে দশই মুহাররাম তথা আশুরার দিনের রোযার দ্বারা আল্লাহ পাক এক বছরের পূর্বের গোনাহ মাফ করে দেন। তাই তিনি মাদ্রাসার ছাত্র-শিক্ষক সবাইকে এই দিনে রোজা রাখার প্রতি তাগিদ দেন। তিনি সেমিনারে নববর্ষ ও আশুরার তাৎপর্যের উপর ছাত্রদের বিভিন্ন বিষয়ে সুন্দর উপস্থাপনার জন্যে ছাত্র ও দায়িত্বশীল শিক্ষকের প্রশংসা করেন এবং ভবিষ্যতে আরো ভালো করার জন্য প্রচেষ্টা চালিয়ে যাওয়ার প্রতি উপদেশ দেন।
সেমিনারে শিক্ষার্থীদের উপস্থাপনার মধ্যে ছিল বাংলা, ইংরেজি ও আরবী ভাষায় বক্তব্য, কবিতা আবৃত্তি, বিভিন্ন ভাষায় কথোপকথন, হামদ, নাত ও ক্বিরাত ইত্যাদি। অংশগ্রহণকারী শিক্ষার্থীদের মধ্যে ছিলেন মুহাম্মদ মুহিবুল্লাহ, আব্দুল্লাহ, রহিমুল্লাহ, খুবাইব ,ফাইসাল, মামুন, নূরুল আবছার, ওমর ফারুক, হাসসান ও হাবিবুল ওয়াহিদ প্রমূখ।
শেষে সভাপতির বিশেষ নসীহত ও দোয়ার মধ্য দিয়ে অনুষ্ঠান সম্পন হয়।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •