সোয়েব সাঈদ, রামু:
রামুতে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব জাতীয় অনুর্ধ্ব-১৭ গোল্ডকাপ ফুটবল টুর্নামেন্টে অংশ নেয়নি কাউয়ারখোপ ইউনিয়ন পরিষদ। প্রথম পর্বের শেষ ম্যাচে সোমবার (৯ সেপ্টেম্বর) সকালে ফতেখাঁরকুল ইউনিয়নের মুখোমুখি হওয়ার কথা ছিলো কাউয়ারখোপ ইউনিয়ন ফুটবল দলের। কিন্তু মাঠে প্রচুর দর্শক সমাগম হলেও খেলতে আসেনি কাউয়ারখোপ ইউনিয়ন ফুটবল একাদশ। ফলে রেফারি ফতেখাঁরকুল ইউনিয়ন ফুটবল একাদশকে বিজয়ী ঘোষনা করে।

এদিকে দেশের সবচেয়ে গুরুত্বপুর্ণ এ খেলায় অংশ না নেয়ায় হতবাক হয়েছেন খেলা দেখতে আসা শত শত দর্শক। যদিও দর্শকদের চাহিদা দেখে আয়োজকরা তাৎক্ষনিক স্থানীয় একটি দলকে ফতেখাঁরকুল ইউনিয়নের বিপক্ষে মাঠে নামান। দর্শকরা খেলা উপভোগ করলে কাংখিত দলের প্রতিদ্বন্ধিতা না দেখে হতাশ হন।

এদিকে রামুতে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব জাতীয় অনুর্ধ্ব-১৭ গোল্ডকাপ ফুটবল টুর্নামেন্ট পরিচালনা কমিটির সভাপতি, রামু উপজেলা নির্বাহী অফিসার প্রণয় চাকমা এ ঘটনায় তীব্র ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন। তিনি জানিয়েছেন, এ টূর্ণামেন্ট দেশের স্বার্থে, কারো ব্যক্তিগত নয়। এখানে অংশ না নিয়ে কাউয়ারখোপ ইউনিয়ন পরিষদ চরম দৃষ্টতা দেখিয়েছে। এজন্য কাউয়ারখোপ ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যানকে শোকজ করা হবে।

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে কাউয়ারখোপ ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মোস্তাক আহমদ জানান, তিনি টূর্ণামেন্টে অংশ নিতে আন্তরিক ছিলেন। কিন্তু কাউয়ারখোপ হাকিম –রকিমা উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষক-শিক্ষার্থী ও খেলোয়াড়দের পর্যাপ্ত সহযোগিতা পাননি। এ কারনে তাঁর ইউনিয়ন এ টূর্ণামেন্টে অংশ নিতে পারেনি।

উল্লেখ্য এ টূর্ণামেন্টে প্রথম পর্বের খেলায় জয়ী হয়েছে সদর ফতেখাঁরকুল, খুনিয়াপালং, রশিদনগ, কচ্ছপিয়া ও গর্জনিয়া ইউনিয়ন ফুটবল একাদশ।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •