প্রতিটি অবৈধ অনুপ্রবেশকারীকে তাড়ানো হবে: অমিত শাহ

বিদেশ ডেস্ক:

আসামের চূড়ান্ত নাগরিক তালিকায় নাম না থাকা ১৯ লক্ষাধিক মানুষের প্রত্যেককে দেশছাড়া করার হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেছেন ভারতের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। রবিবার আসামের গুয়াহাটিতে এক অনুষ্ঠানে তিনি এমন হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেন। তার ভাষায়, ‘প্রতিটি অবৈধ অনুপ্রবেশকারীকে তাড়িয়ে দেওয়া হবে।’

অমিত শাহ বলেন, ‘জাতীয় নাগরিকপঞ্জি নিয়ে অনেকে অনেক রকম প্রশ্ন তুলেছেন। আমি স্পষ্টভাবে বলতে চাই, ভারত সরকার, একজন অবৈধ অনুপ্রবেশকারীকেও এদেশে থাকতে দেবে না। এটা আমাদের প্রতিশ্রুতি।’

কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী হওয়ার পর এই প্রথমবারের মতো আসাম সফরে গেলেন অমিত শাহ। ১৯৫৮ সালের বিশেষ ক্ষমতা আইনে আসামকে সবচেয়ে উপদ্রুত অঞ্চল হিসেবে ঘোষণা করেছে রাজ্য সরকার।

২০১৯ সালের ৩১ আগস্ট প্রকাশিত আসামের চূড়ান্ত নাগরিক তালিকা (এনআরসি) থেকে বাদ পড়েছেন রাজ্যের ১৯ লাখ ৬ হাজার ৬৫৭ জন মানুষ। তবে এ তালিকা নিয়ে খুশি নয় ভারতের ক্ষমতাসীন দল বিজেপি। আসামের রাজ্য সরকারেও ক্ষমতায় রয়েছে দলটি। বিজেপি ও তার মিত্রদের প্রত্যাশা ছিল, এ তালিকাকে হাতিয়ার করে আরও অধিক সংখ্যক মুসলিমের নাগরিকত্ব বাতিল করে তাদের রাষ্ট্রহীন মানুষে পরিণত করা হবে। ফলে তালিকায় আরও বেশি সংখ্যক মুসলিমের নাম বাদ না পড়ায় ক্ষোভ বিরাজ করছে বিজেপি ও তার মিত্রদের মধ্যে।

চূড়ান্ত তালিকা প্রকাশের পর আসামের অর্থমন্ত্রী ও বিজেপি নেতা হিমন্ত বিশ্ব শর্মা বলেছেন, এনআরসি নিয়ে বিজেপি সন্তুষ্ট নয়। আরও বেশি সংখ্যক অবৈধ অভিবাসীর (মুসলিম) নাম তালিকা থেকে বাদ পড়ার কথা। রাজ্য থেকে সব বিদেশিকে তাড়িয়ে দিতে বিজেপি কাজ করে যাবে।

২০১৮ বিধানসভা নির্বাচন এবং ২০১৯ লোকসভা নির্বাচনে বিজেপির ইশতেহারে অন্যতম ইস্যু ছিল নাগরিক তালিকা চূড়ান্ত করা। এ বছরের গোড়ার দিকে কথিত অনুপ্রবেশকারীদের (বাংলাভাষী মুসলিম) ‘উইপোকা’ হিসেবে আখ্যায়িত করেন বিজেপি নেতা ও ভারতের বর্তমান স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। তিনি বলেন, অনুপ্রবেশকারীরা বাংলার মাটিতে উইপোকার মতো। বিজেপি সরকার তাদের এক এক করে তুলে বঙ্গোপসাগরে ছুড়ে ফেলবে।

অমিত শাহ তার বক্তব্যে অবৈধ মুসলিম অভিবাসী বলতে তাদের বাংলাদেশি হিসেবে ইঙ্গিত করেন। এর আগে ২০১৮ সালের সেপ্টেম্বরেও মুসলমান অভিবাসীদের উইপোকা হিসেবে আখ্যায়িত করেছিলেন অমিত শাহ। সে সময় দলীয় এক সমাবেশে তিনি বলেন, ভারতে থাকা ‘অবৈধ বাংলাদেশিদের’ শনাক্ত করে তাদের এক এক করে তাড়িয়ে দেওয়া হবে। একই বছরের আগস্টে কলকাতায় বিজেপির এক সমাবেশে তিনি বলেন, বাংলাদেশি অনুপ্রবেশকারীদের তাড়াতেই ভারতে নাগরিক তালিকা প্রণয়ন করা হচ্ছে। এটি হচ্ছে বেছে বেছে বাংলাদেশি অনুপ্রবেশকারীদের তাড়িয়ে দেওয়ার প্রক্রিয়া। পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিরোধিতায় এটি বন্ধ হবে না। সূত্র: এনডিটিভি।

সর্বশেষ সংবাদ

লামা সরকারি হাসপাতালে অনিয়ম-দুর্নীতি, পরিবেশের বেহাল দশা

সৌদিতে সেনা পাঠাচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র, লক্ষ্য ইরান

শিশু ও মাতৃমৃত্যু হ্রাসে ‘বলিষ্ঠ অগ্রগতি’ বাংলাদেশের

রাঙামাটিতে ক্যাসিনোতে অভিযান: হাইপ্রোফাইল জুয়াড়িদের জরিমানা

রাঙামাটিতে অটোরিক্সা উল্টে নিহত ১, আহত ৩

পাওনা টাকার জন্য খুন করা হয় এনজিওকর্মী মাজহারকে

কক্সবাজারে আ. লীগের প্রতিনিধি সম্মেলন আজ

রামুর মাষ্টার মোহাম্মদ ফারুক আর নেই

রামু থানার অভিযানে ১২ হাজার পিস ইয়াবাসহ আটক ৪

এড. নজরুল ইসলাম আর নেই , জেলা আইনজীবী সমিতির শোক

বর্ণাঢ্য আয়োজনে কক্সবাজারে ২দিনব্যাপি সিসিমপুর মেলা শুরু

বিএনপি নেতা দুদুকে আইনের আওতায় আনার দাবিতে উখিয়া ছাত্রলীগের বিক্ষোভ

নিরাপদ সড়ক ও মানব ঝুঁকি

হাজীপাড়া ফুটবল টুর্নামেন্টে অপরাজিত চ্যাম্পিয়ন উত্তর ডিককুল ক্রিড়া সংস্থা

মাদক ও নৈতিক অবক্ষয়ের ছোবল রোধে সুস্থ সংস্কৃতি চর্চার বিকল্প নেই

উখিয়ায় এনজিওকর্মী হত্যাকান্ডের নেপথ্যে পরকীয়া!

কক্সবাজার-রামুর উন্নয়নে সবাইকে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে- এমপি কমল

সাকসেস ইন লাইফ

বহর নিয়ে এমপি কমলকে বরণ করলেন ঝিংলজার আ.লীগ নেতা আমিন

এনজিও কর্মী মাজহার হত্যার আসামী আলাউদ্দিন আটক