পর্যটনবান্ধব দেশের তালিকায় পাঁচ ধাপ এগিয়েছে বাংলাদেশ

ডেস্ক নিউজ:
বাংলাদেশের ল্যান্ডস্কেপ (ছবি: উইকিমিডিয়া কমন্স)বিশ্ব অর্থনৈতিক ফোরামের ২০১৯ সালের ট্রাভেল অ্যান্ড ট্যুরিজম কম্পিটিটিভ রিপোর্টে ভ্রমণ ও পর্যটনে সেরা দেশগুলোর তালিকা প্রকাশিত হলো। এতে পাঁচ ধাপ এগিয়ে ১২০ নম্বরে আছে বাংলাদেশ। এবারই প্রথম এই র‌্যাংকিংয়ে এত বড় সাফল্য পেলো দক্ষিণ এশিয়ার দেশটি।

বিমান পরিবহন অবকাঠামো, নিরাপত্তা, সংস্কৃতি, বাসস্থান, টাকার মান ও স্থিতিশীল ভ্রমণের সুযোগসহ ৯০টি মানদণ্ড বিবেচনা করে ১৪০ দেশের র‌্যাংকিং করা হয়েছে।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, আঞ্চলিক বিশ্লেষণে এশিয়া-প্যাসিফিকে নিরাপত্তা ও সুরক্ষায় সবচেয়ে বেশি উন্নতি করেছে বাংলাদেশ। নিরাপত্তা ও সুরক্ষা বৃদ্ধির ফলে ভ্রমণের জন্য বাংলাদেশ বেশ সুবিধাজনক বলে উল্লেখ করা হয়েছে প্রতিবেদনে।

প্রাকৃতিক সম্পদ ও সাংস্কৃতিক ঐতিহ্যের সুবাদে বাংলাদেশে বিদেশি পর্যটকদের সংখ্যা দ্রুত বৃদ্ধি পাবে বলে আশা করা হয়েছে বিশ্ব অর্থনৈতিক ফোরামের প্রতিবেদনে। ফলে এখানকার পর্যটন শিল্পে উল্লেখযোগ্য উন্নতির আভাস রয়েছে।

তবে ট্রাভেল অ্যান্ড ট্যুরিজম কম্পিটিটিভ রিপোর্ট অনুযায়ী– অনুন্নত পর্যটন সেবা অবকাঠামো, বায়ুদূষণ ও জলাবদ্ধতা বাংলাদেশের সামগ্রিক আকর্ষণকে ম্রিয়মাণ করে রাখে। এসব কারণে দেশের প্রাকৃতিক পর্যটন হুমকির মুখে পড়ে। বন্যপ্রাণীর অভয়ারণ্য বৃদ্ধি ও ক্রমবর্ধমান বনভূমি হ্রাস করার মাধ্যমে বাংলাদেশের প্রাকৃতিক সম্পদ পর্যটনের বিকাশে সুফল বয়ে আনতে পারে।

তালিকায় সার্কভুক্ত দেশগুলোর মধ্যে ভারত (৩৪), শ্রীলঙ্কা (৭৭), নেপাল (১০২) ওপরের দিকে। বাংলাদেশের নিচে আছে পাকিস্তান (১২১)।

এবারের বিশ্ব অর্থনৈতিক ফোরামের আলোচনার টেবিলে পর্যটনের চারটি দিক গুরুত্ব পেয়েছে। এগুলো হলো প্রাকৃতিক ও সাংস্কৃতিক সম্পদ, বিমান পরিবহন পরিকাঠামো, জাতীয় ভ্রমণ ও পর্যটন নীতি এবং উপযুক্ত পরিবেশ (নিরাপত্তা থেকে শুরু করে শ্রমবাজারের স্বাস্থ্যবিধি)।

র‌্যাংকিংয়ে শীর্ষে আছে ইউরোপের দেশ স্পেন। দুই থেকে দশে স্থান পেয়েছে যথাক্রমে ফ্রান্স, জার্মানি, জাপান, যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, অস্ট্রেলিয়া, ইতালি, কানাডা ও সুইজারল্যান্ড।

সর্বশেষ সংবাদ

আনোয়ারায় আগুন লেগে ১৯ বসত বাড়ি পুড়ে ছাই , ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ ২৫ লক্ষাধিক

কক্সবাজারের নিউজ ভান্ডার সিবিএন ১২ বছরে পদার্পণে শুভেচ্ছা

কুতুবদিয়ায় ছুরি মেরে এসএসসি পরীক্ষার্থীর টাকা ও মোবাইল ছিনতাই

আজ জেলা আওয়ামী লীগের বিশেষ বর্ধিত সভা

কউকের সহযোগিতায় প্রধানমন্ত্রী স্বর্ণপদক পাওয়া দুই কৃতি শিক্ষার্থীকে সংবর্ধনা

সিবিএনকে সাবেক এমপি লুৎফুর রহমান কাজলের শুভেচ্ছা

সরকারী সফর শেষে হাজারো মানুষের ভালবাসায় সিক্ত মেয়র মুজিবুর রহমান

দেশ এখন সিঙ্গাপুরের চেয়েও অর্থনৈতিকভাবে শক্তিশালী: প্রধানমন্ত্রী

টেকনাফে জাতীয় স্কাউট ক্যাম্প উদ্বোধন করলেন শিক্ষামন্ত্রী ডাঃ দীপু মনি

শিক্ষা মন্ত্রী ডা. দীপু মনি কক্সবাজারে

দুদক কমিশনার মোজাম্মেল হক খান কক্সবাজারে

চকরিয়ায় সংরক্ষিত বনাঞ্চল অভিযানে ১৫টি বাড়ি উচ্ছেদ

পরিকল্পনামন্ত্রীর জন্য কিছু কচুরিপানা নিয়ে আসছিলাম : সংসদে রওশন এরশাদ

নাইক্ষ্যংছড়িতে আদালতের নির্দেশে ২লাখ ৮০ হাজার টাকার মাদকদ্রব্য ধ্বংস

কক্সবাজার শহরের গ্রীণ কটেজে বিয়ার রাখার দায়ে একজনের ৫ বছর কারাদন্ড

অমৌসুমে প্রচুর ইলিশ, দায়সারাভাবে রাজস্ব আদায়

‘দুর্বার চেতনা’ ভাস্কর্যের মাধ্যমে প্রজন্ম প্রকৃত ইতিহাস শিক্ষালাভ করবে : কউক চেয়ারম্যান

চকরিয়ায় অধিকাংশ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে নেই শহীদ মিনার

নাইক্ষ্যংছড়িতে ২লাখ ৮০ হাজার টাকার মাদকদ্রব্য ধ্বংস

মানবপাচার প্রতিরোধে নোঙরের কার্যক্রম বিচারিক কার্যক্রমে সহায়ক ভূমিকা রাখবে : জেলা জজ মোহাম্মদ ইসমাঈল