প্রেস বিজ্ঞপ্তি

উপমহাদেশের ঐতিহ্যবাহী রাজনৈতিক দল বাংলাদেশ নেজামে ইসলাম পার্টির কেন্দ্রীয় প্রতিনিধি সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে।

প্রতিনিধি সম্মেলনে পার্টির গঠনতন্ত্রে পরিবর্তন সহ একাধিক গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। নতুন গঠনতন্ত্র অনুযায়ী সভাপতি পরিবর্তে আমীর হবেন দলের প্রধান। এছাড়াও গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত গ্রহণের জন্য ১০ সদস্য বিশিষ্ট মজলিসে শুরা গঠন করা হয়েছে।

সম্মেলনে পার্টির আমীর নির্বাচিত হয়েছেন প্রবীণ রাজনীতিবিদ অধ্যক্ষ মাওলানা সরওয়ার কামাল আজিজী। মহাসচিব নির্বাচিত হয়েছেন মাওলানা মুসা বিন ইজহার।

এছাড়াও সিনিয়র নায়েবে আমীর নির্বাচিত হয়েছেন পার্টির সদ্য সাবেক মহাসচিব মাওলানা আব্দুল মাজেদ আতহারী।

কমিটির অন্যান্য সদস্যরা হলেন, নায়েবে আমীর মুফতী মুহাম্মদ আলী, আব্দুর রহমান চৌধুরী, মাওলানা আব্দুল খালেক নেজামী। সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব মাওলানা মুস্তাফিজুর রহমান মাহমুদী, যুগ্ম মহাসচিব হাফেজ সালামতউল্লাহ, মঞ্জুরুল কাদের চৌধুরী। সহকারী মহাসচিব মাওলানা ইলিয়াস খান ও কামরুল ইসলাম ভূঁইয়া। অর্থ সচিব সৈয়দ এ কে এম কামরুল বারী, সহকারী অর্থ সচিব মাওলানা আনওয়ারুল কবির।

এছাড়াও দেশের অন্যতম সিনিয়র আলেম মাওলানা শাহ মুহিব্বুল্লাহ বাবুনগরীর নেতৃত্বে একটি উপদেষ্টা পরিষদ গঠন করা হয়েছে। এই কমিটির অন্যান্য সদস্যরা হলেন, মাওলানা আব্দুল মালেক হালিম, মাওলানা ফজুলুর রহমান, মুফতি আবুল হাসান শাইলবাড়ী, মাওলানা সুহাইব নোমানী।

৫ সেপ্টেম্বর ( বৃহস্পতিবার) সকাল ১০টায় রাজধানীর ফটো জার্নালিস্ট এসোসিয়েশন মিলনায়তনে এ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়।

এতে সভাপতিত্ব করেন পার্টির সদ্য সাবেক ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মাওলানা ফজলুর রহমান। স্বাগত বক্তব্য রাখেন, সদ্য সাবেক মহাসচিব মাওলানা আব্দুল মাজেদ আতহারী।

প্রতিনিধি সম্মেলনে বক্তারা বলেন, ভারত কাশ্মীরে ভয়াবহ আগ্রাসন চালাচ্ছে। সংবিাধানে ৭০ বছর ধরে বিদ্যমান ৩৭০ ধারা বাতিল করে ভারত কাশ্মীরী জনগণের সাথে বিশ্বাসঘাতকতা করেছে। আজকে পুরো কাশ্মীরকে অবরুদ্ধ করে, ১৪৪ ধারা জারি ও অতিরিক্ত সেনা মোতায়েন করে কাশ্মীরের নিরহ মুসলমানদের উপর নির্মম জুলুম-নির্যাতন ও হত্যাযজ্ঞ চালিয়ে যাচ্ছে। কাশ্মির নামক ভূখণ্ড আজ মজলুমের রক্তে রঞ্জিত। এমতাবস্থায় আমরা নিরব থাকতে পারিনা। কাশ্মিরে মুসলমানদের ওপর নির্মম নির্যাতন- নিপীড়নের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানো বিশ্ব মুসলমানদের ঈমানী ও মানবিক দায়িত্ব। কাশ্মীরের স্বাধীনতাকামী মজলুম মুসলমানদের পাশে দাঁড়াতে না পারলে বিশ্ব সংস্থাগুলোকে বিবেকের আদালতে জবাব দিতে হবে।

সম্মেলনে আরো উপস্থিত ছিলেন, ঢাকা মহানগর সহ-সভাপতি মাওলানা আজিজুল হক শেখ সাদী, মাওলানা মাতলুবুর রহমান, চট্টগ্রাম মহানগর নেতা অধ্যাপক নজরুল ইসলাম চৌধুরী, সৌদি আরব শাখার মাওলানা মাহমুদুল হক, খুলনা জেলা সভাপতি মাওলানা মোজ্জাম্মেল, ফরিদপুর জেলা সভাপতি মাওলানা কামরুল ইসলাম, কক্সবাজার জেলার সাংগঠনিক সম্পাদক মাওলানা ফরিদুল হক, চট্টগ্রাম উত্তর জেলা প্রতিনিধি মাওলানা দিদারুল আলম, মাওলানা এরশাদ বিন জালাল, সাবেক ছাত্রনেতা মাওলানা নুরুল আমিন আল-মাদানী, ইসলামী ছাত্রসমাজের কেন্দ্রীয় সভাপতি আব্দুল্লাহ আল-মাসউদ খান, সহ-সভাপতি হাফেজ মুহাম্মদ আবুল মঞ্জুর, মহাসচিব আতুকুর রহমান সিদ্দিকী, ঢাকা মহানগর সভাপতি এহতেশামুল হক সাখী প্রমুখ।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •