সোয়েব সাঈদ, রামু:
রামুতে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৪ তম শাহাদাৎ বার্ষিকী উপলক্ষ্যে মেজবান, মুক্তিযুদ্ধের বিজয় মেলা ও বঙ্গবন্ধুর জন্ম শত বার্ষিকী উদ্যাপনে আওয়ামীলীগ ও অঙ্গসংগঠনের উদ্যোগে প্রস্তুতি সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। সভায় আলহাজ¦ সাইমুম সরওয়ার কমল এমপিকে চেয়ারম্যান এবং রামু উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান ও উপজেলা যুবলীগ সভাপতি রিয়াজ উল আলমকে মহাসচিব মনোনীত করে বঙ্গবন্ধুর মেজবান, মুক্তিযুদ্ধের বিজয় মেলা ও বঙ্গবন্ধুর জন্ম শত বার্ষিকী উদ্যাপনে ৩টি পৃথক কমিটি গঠন করা হয়। এসব কমিটিতে আওয়ামীলীগ ও অঙ্গসংগঠনের নেতাকর্মী, জনপ্রতিনিধি, শিক্ষক, সাংবাদিকদের অর্ন্তভূক্ত করে বিভিন্ন উপ-কমিটি গঠন করা হয়েছে।

বুধবার (৪ সেপ্টেম্বর) সন্ধ্যা সাতটায় রামু খিজারী সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় মিলনায়তনে আয়োজিত এ সভায় সভাপতিত্ব করেন, প্রবীন আওয়ামী লীগ নেতা গোলাম কবির মেম্বার। সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে, কক্সবাজার-৩ (সদর-রামু) আসনের সংসদ সদস্য আলহাজ¦ সাইমুম সরওয়ার কমল বলেছেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙ্গালী। বঙ্গবন্ধু কেবল বাঙ্গালী জাতির নয়, তিনি ছিলেন বিশ্বনেতা। বঙ্গবন্ধুর জন্যেই বিশ্বের বুকে বাংলাদেশের জন্ম হয়েছে। জাতির পিতা দেশের জন্য নিজেকে উৎসর্গ করেছিলেন। আজকের প্রজন্মকে তাঁর আর্দশ ধারণ করে আগামী দিনের অগ্রযাত্রায় এগিয়ে যেতে হবে। তিনি বেঁচে থাকলে বাংলাদেশ আজ বিশ্বের উন্নয়নশীল দেশের একটিতে পরিনত হতো। আজ তিনি না থাকলেও তাঁর সুযোগ্য কন্যা জননেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বাংলাদেশকে উন্নয়নশীল দেশে রূপ দিয়ে জাতির পিতার স্বপ্ন বাস্তবায়ন করে যাচ্ছেন। তিনি আরো বলেন, শাহাদাৎ বার্ষিকী মেজবানে আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক, সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রী ওবাইদুল কাদের প্রধান অতিথি, প্রচার সম্পাদক, তথ্য মন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ ও সাংগঠনিক সম্পাদক পানি সম্পদ উপ-মন্ত্রী এনামুল হক শামীম বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন।

সভায় রামু উপজেলা আওয়ামীলীগ ও অঙ্গসংগঠনের উদ্যোগে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৪ তম শাহাদাৎ বার্ষিকীর কর্মসূচির আলোকে আগামী ২৬ সেপ্টেম্বর রামু খিজারী সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় স্টেডিয়ামে প্রতি বছরের ধারাবাহিকতায় এবারও বৃহৎ আকারে মেজবান আয়োজন করার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। সভায় জানানো হয়, বঙ্গবন্ধুর ফাতেহা উপলক্ষ্যে আয়োজিত এ মেজবানকে কেন্দ্র করে কোথাও কোন চাঁদাবাজি করা হলে তা কঠোর হস্তে দমন করা হবে। তবে জাতির পিতাকে ভালোবেসে কোন মুজিবপ্রেমি চাইলে স্বেচ্ছায় এতে শরিক হতে পারবে।

রামু উপজেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক সাংবাদিক নীতিশ বড়–য়া সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত সভায় বক্তব্য রাখেন,আওয়ামী লীগ নেতা রামু উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের কমান্ডার মুক্তিযোদ্ধা নুরুল হক চেয়ারম্যান, খুনিয়াপালং এর সাবেক চেয়ারম্যান আব্দুল গণি সওদাগর, কবি কাজী মোহাম্মাদ আলী, রামু উপজেলা পরিষদের সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান আলী হোসেন, কক্সবাজার জেলা পরিষদ সদস্য নুরুল হক, ফতেখাঁরকুলের চেয়ারম্যান ফরিদুল আলম, চাকমারকুল ইউপি চেয়ারম্যান নুরুল ইসলাম সিকদার, খুনিয়াপালং ইউপি চেয়ারম্যান সাংবাদিক আবদুল মাবুদ, ঈদগড় ইউপি চেয়ারম্যান ফিরোজ আহমদ ভূট্টো, ফতেখাঁরকুল ইউনিয়নের সাবেক সিরাজুল ইসলাম ভুট্টো, দক্ষিণ মিঠাছড়ি ইউপি চেয়ারম্যান ইউনুচ ভূট্টো, রাজারকুল ইউপি চেয়ারম্যান মফিজুর রহমান, কচ্ছপিয়া ইউপি চেয়ারম্যান আবু ইসমাইল মো. নোমান, গর্জনিয়া ইউপি চেয়ারম্যান সৈয়দ নজরুল ইসলাম, কাউয়ারখোপ ইউপি চেয়ারম্যান মোস্তাক আহমদ, রশিদনগর ইউপি চেয়ারম্যান এমডি শাহ আলম, জোয়ারিয়ানালা ইউনিয়নের সাবেক ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান ফরিদ বখ্ত বাবুল, মাস্টার ছৈয়দ করিম, আওয়ামীলীগ নেতা হাজ¦ী নুরুল হক, সৈয়দ মোহাম্মদ আব্দুশ শুক্কুর, রশিদনগর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ সভাপতি বজল আহমদ বাবুল, রাজারকুল আওয়ামীলীগ নেতা জহির উল্লাহ সিকদার, গর্জনিয়া ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক আইয়ুব সিকদার, সহ সভাপতি মো. ইয়াহিয়া চৌধুরী, আওয়ামীলীগ নেতা হাবিব উল্লাহ চৌধুরী, রামু উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগ সভাপতি এডভোকেট মোজাফ্ফর আহমদ হেলালী, রামু উপজেলা যুবলীগের সহ সভাপতি ওসমান সরওয়ার মামুন, জেলা যুবলীগ নেতা পলক বড়–য়া আপ্পু, যুবলীগ নেতা সাহাদত হোসেন, নবিউল হক আরকান, উত্তম মহাজন, জেলা তাঁতীলীগের সহ-সভাপতি আনসারুল হক ভুট্টো, জেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগ নেতা ও সাংসদ কমলের একান্ত সচিব মিজানুর রহমান,রামু উপজেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগের সহ সাধারণ সম্পাদক ও সাংসদ কমলের ব্যক্তিগত সহকারি আবু বক্কর ছিদ্দিক, মক্কা স্বেচ্ছাসেবকলীগ নেতা আবদুস সালাম ও মোহাম্মদ ইব্রাহীম, প্রচার সম্পাদক আরিফ খান জয়, উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক আহবায়ক রাশেদ মো. আলী, জেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগ নেতা মিজানুল করিম, রামু উপজেলা তাঁতীলীগের সভাপতি নুরুল আলম জিকু, সাধারণ সম্পাদক মোস্তাক আহমদ, সহ সভাপতি আবদুস ছালাম রাজু, জাতীয় শ্রমিকলীগ রামু উপজেলার সভাপতি শফিকুল আলম কাজল, সাংগঠনিক সম্পাদক মোহাম্মদ আমিন, বঙ্গবন্ধু সৈনিকলীগ রামু উপজেলার সভাপতি মিজানুল হক রাজা, সাধারণ সম্পাদক রাশেদুল ইসলাম বাবু, রামু উপজেলা ওলামালীগ সভাপতি মৌলানা নুরুল আজিম, সাধারণ সম্পাদক মৌলানা জামাল উদ্দিন আনসারী, গর্জনিয়া ইউনিয়ন যুবলীগ সভাপতি হাফেজ আহমদ, খুনিয়ালং ইউনিয়ন যুবলীগ সভাপতি আবদুল্লাহ বিদ্যুৎ, সাংগঠনিক সম্পাদক মিজানুর রহমান, কচ্ছপিয়া ইউনিয়ন যুবলীগের আহবায়ক নজরুল ইসলাম, যুগ্ম আহবায়ক এম. সেলিম, দক্ষিণ মিঠাছড়ি যুবলীগ সাধারণ সম্পাদক নুরুল করিম পুতু, যুবনেতা আসাদ উল্লাহ, খুনিয়াপালংয়ের আওয়ামীলীগ নেতা ও ইউপি সদস্য সৈয়দ আলম সুলতান, জোয়ারিয়ানালা ইউপি সদস্য আবদুচ্ছালাম আজাদ, কাউয়ারখোপ ইউপি সদস্য হাবিব উল্লাহ, ইউপি সদস্যা আনার কলি, কাউয়ারখোপ ইউনিয়ন যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক মো. নুরুল আজিম, ফতেখাঁরকুল ইউনিয়ন স্বেচ্ছসেবকলীগের সভাপতি আজিজুল হক আজিজ, কাউয়ারখোপ ইউনিয়ন স্বেচ্ছাসেবকলীগের সভাপতি নুরুল ইসলাম নাহিদ, সাধারণ সম্পাদক মনজুর আলম সোহেল, ছাত্রলীগ নেতা সাদ্দাম হোসেন, বঙ্গবন্ধু ছাত্র পরিষদের সভাপতি একরামুল হাসান ইয়াছিন প্রমূখ। সভায় উপজেলা আওয়ামীলীগ ও সহযোগি সংগঠনের নেতৃবৃন্দ, জনপ্রতিনিধিসহ সর্বস্তরের জনতা উপস্থিত ছিলেন।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •