বার্তা পরিবেশক :

কুতুবদিয়া উপজেলার বড়ঘোপ ইউনিয়ন পরিষদের উপ-নির্বাচনে নব নির্বাচিত চেয়ারম্যান ও উপজেলা জাতীয় পার্টির সভাপতি আ ন ম শহীদ উদ্দিন ছোটনের উপর একটি মামলায় গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেছে আদালত। তা সত্বেও তিনি প্রকাশ্যে ঘুরে বেড়াচ্ছেন।  গতকাল মঙ্গলবার সকালে দলীয় নেতাকর্মীদের সাথে নিয়ে শোডাউন করে কক্সবাজার জেলা প্রশাসক কার্যালয়ে শপথ নিয়েছেন তিনি। আদালত থেকে গ্রেফতারী পরোয়ানার বিষয়ে ওসিকে ব্যবস্থা নিতে বলা হলেও কুতুবদিয়া থানার ওসি এ পর্যন্ত কোন ব্যবস্থা গ্রহন করেননি বলে অভিযোগ উঠেছে।  নব নির্বাচিত চেয়ারম্যান হিসেবে কুতুবদিয়া আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে আগামী ৬ সেপ্টম্বর সংবর্ধনা নিবেন তিনি। ইতি মধ্যে সংবর্ধনার জন্য সকল আয়োজন শেষ করা হয়েছে।

সংবর্ধান অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি থাকবেন কুতুবদিয়া উপজেলা চেয়ারম্যান ও জেলা আওয়ামীলীগ নেতা ফরিদুল ইসলাম চৌধুরী।

এলাকার সচেতন মহল মনে করছেন, আদালত থেকে গ্রেফতারী পারোয়ানাভুক্ত আসামী কিভাবে ঘুরে বেড়ায় ? সেটি দেখে বিস্মিত দ্বীপবাসী।

কুতুবদিয়ার ব্যবসায়ী নেজাম উদ্দিন অভিযোগ করে বলেন, ২০১৮ সালে দলিল জালিয়াতি, জমি দখল সংক্রান্ত একটি মামলায় আসামী করা হয় আ ন ম শহীদ উদ্দিন ছোটনকে। এর পর তিনি দীর্ঘদিন পলাতক ছিলেন বলেও জানান তিনি।

সদ্য সমাপ্ত কুতুবদিয়া বড়ঘোপ ইউনিয়ন পরিষদ উপ নির্বাচনে তিনি প্রতিপক্ষের লোকজনদের বিভিন্ন ভাবে হুমকি দিয়েছিলেন বলেও অভিযোগ করে অপর প্রার্থী। তৌহিদুল ইসলাম খোকন নামে ওই প্রার্থী অভিযোগ করেন, নির্বাচনে তার পক্ষের লোকজনকে তিনি নানা ভাবে হয়রানী করেছেন। এবং মামলা হামলার হুমকিও দিয়েছিলেন তিনি।

তিনি মন্তব্য করেন, একটি মামলায় আদালত থেকে গ্রেফতারি পরোয়ানা ভুক্ত আসামী কিভাবে প্রকাশ্যে ঘুরে বেড়ায়, তা নিয়ে তিনি সংশয় প্রকাশ করেছেন। এ ব্যাপারে তিনি আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর দৃষ্টি আকর্ষন করেছেন।

আ ন ম শহীদ উদ্দিন ছোটনের গ্রেফতারী পরোয়ানার বিষয়ে জানতে চাইলে কুতুবদিয়া থানার ওসি মোহাম্মদ ফেরদৌস জানান, ওয়ারেন্ট এর কপি তিনি পেয়েছেন, তবে অপরাধী যে হোক না কেন আইনের আওতায় আনা হবে। এলাকায় প্রকাশ্যে ঘুরাফেরার বিষয়ে তিনি কিছুই জানেন না বলেও জানান।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •