প্রেস বিজ্ঞপ্তি :

জেলা প্রশাসক মো: কামাল হোসেন বলেছেন-নৈতিক শিক্ষার পাশাপাশি ধর্মীয় শিক্ষার গুরুত্ব অপরিসীম। তাই আমাদের ভবিষ্যত প্রজন্মকে নৈতিক শিক্ষার পাশাপাশি স্ব স্ব ধর্মীয় শিক্ষায় শিক্ষিত করে তুলতে হবে। তিনি বলেন-ধর্মের সঠিক শিক্ষাকে যদি কাজে লাগানো যায় তাহলে একজন পরিপূর্ণ মানুষ হওয়া যায়। জেলা প্রশাসক রবিবার সকালে জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের শহীদ এ.টি.এম জাফর আলম সম্মেলন কক্ষে ভগবান শ্রীকৃষ্ণের শুভ জন্মাষ্টমী উপলক্ষে হিন্দু ধর্মীয় কল্যাণ ট্রাস্টের উদ্যোগে আয়োজিত আলোচনা সভা ও পুরস্কার বিতরণী অনুস্টানে প্রধান অতিথির বক্তব্য উপরোক্ত কথা বলেন। হিন্দু ধর্মীয় কল্যাণ ট্রাস্টের ট্রাস্টি অধ্যাপক প্রিয়তোষ শর্মা চন্দনের সভাপতিত্বে এবং জেলা প্রশাসন ও মন্দির ভিত্তিক শিশু ও গণশিক্ষা কার্যক্রমের সার্বিক সহযোগিতায় অনুস্টিত উক্ত অনুস্টানে বিশেষ অতিথি ছিলেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা ও আইসিটি) আমিন আল পারভেজ, জেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি এডভোকেট রনজিত দাশ ও বৌদ্ধ ধর্মীয় কল্যাণ ট্রাস্টের ট্রাস্টি এডভোকেট দীপংকর বড়ুয়া পিন্টু। মন্দির ভিত্তিক শিশু ও গণশিক্ষা কার্যক্রমের সহকারী প্রকল্প পরিচালক শ্রীরাম সরকারের পরিচালনায় অনুস্টিত এই অনুস্টানে আরো উপস্হিত ছিলেন জেলা হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের সভাপতিমন্ডলীর সদস্য উদয় শংকর পাল মিঠু, জেলা সৎসঙ্গ আশ্রম পরিচালনা পরিষদের সাধারণ সম্পাদক ডাঃ চন্দন কান্তি দাশ, রামু কেন্দ্রীয় কালীবাড়ি পরিচালনা কমিটির সভাপতি রতন মল্লিক, জেলা পূজা উদযাপন পরিষদের কর্মকর্তা সাংবাদিক বলরাম দাশ অনুপম, বাগীশিক জেলা সংসদের সাধারণ সম্পাদক নারায়ন দাশ প্রমুখ। অনুস্টানের শুরুতে পবিত্র গীতাপাঠ করেন অংকুর দাশ। অনুষ্ঠানের সার্বিক সহযোগিতায় ছিলেন আশীষ দত্ত, মৃদুল মল্লিক, পরিমল কান্তি দে প্রমুখ।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •