প্রেস বিজ্ঞপ্তি :

কক্সবাজার সদর থানা পুলিশ অভিযান চালিয়ে বিভিন্ন মামলায় অভিযুক্ত ১৩ জনকে আটক করেছে। গত ৩০ আগষ্ট  সকাল হতে ৩১ আগষ্ট  সকাল পর্যন্ত অফিসার ইনচার্জ  মোঃ ফরিদ উদ্দিন খন্দকার (পিপিএম) এর নেতৃতে পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত)  মোঃ খায়রুজ্জামান পুলিশ পরিদর্শক (অপারেশনস্ এ্যান্ড কমিউনিটি পুলিশিং), মোঃ ইয়াছিন পুলিশ পরিদর্শক (ইন্টিলিজেন্স) মোহাম্মদ আরিফ ইকবাল, এসআইআবুল কালাম-২ এসআই দেলোয়ার হোসেন,এসআই রাজিব চন্দ্র পোদ্দার,এসআই প্রদীপ চন্দ্র দে, এএসআই হারুন,এএসআই ইমাম হোসেন,এএসআই কাজী আবুল বাশার, এএসআই মিজান, এএসআই লিটন সঙ্গীয় ফোর্স এবং ঈদগাঁও তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ মোহাম্মদ আসাদুজ্জামান খান সহ কক্সবাজার সদর মডেল থানা এলাকায় বিশেষ অভিযান পরিচালনা করে ১৩ জন আসামীকে গ্রেফতার করেন কক্সবাজার সদর মডেল থানা পুলিশ।

গ্রেফতারকৃত আসামীরা হলেনঃ-

১। জাফর আলম, পিতা- মতৃ মোহাম্মদ কালু, মাতা- মৃত ফেরাজা বেগম, সাং- তেতৈয়া সওদাগর পাড়া, খুরুশকুল, থানা ও জেলা-কক্সবাজার।

২। মোঃ এনাম, পিতা- মৃত আবুল বশর, মাতা- হোসনে আরা বেগম, সাং- মুরাদাবাদ, রৌশন হাট, থানা- চন্দনাইশ, জেলা- চট্টগ্রাম।

৩। মোঃ হেমায়েত শেখ, পিতা- মোজাহের শেখ, সাং- বামন ডাঙ্গা, বর্তমানে- বাজারঘাটা, থানা ও জেলা-কক্সবাজার। ৪। আঃ রহমান, পিতা- মোঃ নুর, সাং- দক্ষিণ নয়াপাড়া, বাংলাবাজার, থানা ও জেলা-কক্সবাজার।

৫। মুশফিক শাহরিয়ার, পিতা- মহিউদ্দিন, সাং- দক্ষিণ বাহারছড়া, থানা ও জেলা-কক্সবাজার।

৬। নুর হাসনাত, পিতা- আক্তার হোসেন, সাং- পানবাজার রোড, নুর আহম্মদ ম্যানশন, থানা ও জেলা-কক্সবাজার।

৭। আব্দুর রাজ্জাক, পিতা- মৃত মোনাফ সওদাগর, সাং- রাজ্জাকের বাড়ী নামা গেন্ডা, থানা- সাভার, জেলা- ঢাকা।

৮। মোঃ আমিন, পিতা- নুরুল কবির, সাং-বৈদ্যঘোনা, থানা ও জেলা-কক্সবাজার।

৯। মোঃ নেজাম উদ্দিন, পিতা- মৃত জাফর আলম, সাং- কাঠালিয়া মুড়া, পিএমখালী, থানা ও জেলা-কক্সবাজার।

১০। জাহিদুর রহমান, পিতা- মফিজুর রহমান, সাং- লালদিঘীর পাড়, কক্সবাজার।

,জেলা-কক্সবাজার।

ওয়ারেন্ট সংক্রান্তে গ্রেফতারকৃত আসামীঃ-

১। ইউনুচ, পিতা- আজিজুর রহমান, সাং- কালিরছড়া, থানা ও জেলা-কক্সবাজার।

২। আঃ মান্নান, পিতা- মৃত সুলতান আহমদ, সাং- মধ্য গজালিয়া, থানা ও জেলা-কক্সবাজার।

৩। মোঃ ইসহাক, পিতা- মোস্তাফিজুর রহমান, সাং- ঈদগাঁও, কাঁচা বাজার শুটকির দোকান, থানা ও জেলা-কক্সবাজার।

কক্সবাজার সদর মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ  মোঃ ফরিদ উদ্দিন খন্দকার (পিপিএম) তথ্যের সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন বিভিন্ন মামলায় গ্রেফতারের পর আদালতের মাধ্যমে তাহাদেরকে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। এলাকার আম জনতা ও পর্যটকদের সার্বিক নিরাপত্তার নিশ্চিতের লক্ষ্যে মামলায় অভিযুক্ত ও চিহিৃত অপরাধীদের বিরুদ্ধে পুলিশি অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •