মুহাম্মদ আবু সিদ্দিক ওসমানী :

বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি, সদর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান তসলিম ইকবাল চৌধুরী, সচিব ছৈয়দ আলম সহ ৩ জন অন্তর্বতীকালীন জামিন প্রদান করেছেন। বান্দরবান পার্বত্য জেলার জেলা ও দায়রা জজ মোহাম্মদ ইসমাইল বৃহস্পতিবার ২৯ আগষ্ট এ জামিন প্রদান করেন। বিষয়টি বান্দরবান জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বেন্ঞ্চ সহকারী দেবাশীষ দেবনাথ সিবিএন-কে নিশ্চিত করেছেন। মামলার সংক্ষিপ্ত বিবরণ হলো, চলতি বছরের ২৯ জুলাই নাইক্ষ্যংছড়ি সদর ইউনিয়ন পরিষদ মার্কেটের ভাড়াটিয়া নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার ঘিলাতলী গ্রামের আবদুস সালামের পুত্র শামসুল আলম বাদী হয়ে আদালতে একটি ফৌজদারী মামলা দায়ের করেন। যার নম্বর সিআর : ১৩৪/২০১৯। মামলার ধার্য্য তারিখ গত বুধবার ২৮ আগস্ট চেয়ারম্যান তসলিম ইকবাল চৌধুরী সহ অন্যান্য আসামীরা আদালতে আত্মসমর্পণ করে জামিন প্রার্থনা করলে সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মোঃ হাসান উভয়পক্ষের যুক্তিতর্ক শেষে আসামীদের জামিন নামঞ্জুর করে জেল হাজতে প্রেরণের নির্দেন দেন। তারা হলেন-নাইক্ষ্যংছড়ি ইউপি চেয়ারম্যান তসলিম ইকবাল চৌধুরী, ইউপি সচিব ছৈয়দ আলম ও ইউছুপ খাঁন। নিম্ন আদালতের এ আদেশের বিরুদ্ধে বান্দরবান জেলা ও দায়রা জজ মোহাম্মদ ইসমাইল এর আদালতে বৃহস্পতিবার ২৯ আগস্ট ১০৪/২০১৯ ফৌজদারি মিচ মামলা ও একইসাথে অন্তর্বতীকালীন জামিন আবেদন করেন। আদালত অন্তর্বতীকালীন জামিনের আবেদন শুনানি শেষে আগামী ১১ সেপ্টেম্বর মূল ফৌজদারি মিচ মামলা শুনানি হওয়া পর্যন্ত আসামীত্রয়কে অন্তর্বতীকালীন জামিন প্রদান করেন। এদিকে, নাইক্ষ্যংছড়ি সদর ইউনিয়ন পরিষদের একাধিক ইউপি সদস্য জানান-ইউনিয়ন পরিষদ সরকারি সম্পদ। কিন্তু পরিষদ থেকে দোকান ভাড়া নিয়ে দীর্ঘদিন যাবত শর্ত ভঙ্গ করে আসছিল মামলার বাদী। একাধিকবার দোকানের ভাড়াটিয়াকে সরকারি সম্পদ সুরক্ষার শর্তানুযায়ী চালানোর জন্য বলা হয়। দোকান ভাড়াটিয়া তা না করে একটি মহলের ইন্দনে নানা রকম ষড়যন্ত্র করছিল বলে তারা অভিযোগ করেছেন।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •