আবু সিদ্দিক উসমানী / মোঃ জয়নাল আবেদীন টুক্কু :
বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি, সদর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও সচিবসহ ৩ জন জামিন নিতে যান। আদালত জামিন নামঞ্জুর করে বুধবার (২৮ আগস্ট) দুপুরে বান্দরবান সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট (আমলী) আদালত-৩ তাঁদের কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

আদালত সূত্রে জানা গেছে, চলতি বছরের ২৯ জুলাই নাইক্ষ্যংছড়ি সদর ইউনিয়ন পরিষদ মার্কেটের ভাড়াটিয়া শামসুল আলম বাদী হয়ে আদালতে একটি ফৌজদারী মামলা করেন। মামলার ধার্য্য তারিখে চেয়ারম্যানসহ অন্যান্য আসামীরা আদালতে উপস্থিত হয়ে জামিন প্রার্থনা করলে আদালতের বিচারক মোঃ হাসান উভয়পক্ষের যুক্তিতর্ক শেষে আসামীদের জামিন নামঞ্জুর করেন। তারা হলেন- ইউপি চেয়ারম্যান তসলিম ইকবাল চৌধুরী, ইউপি সচিব ছৈয়দ আলম ও ইউছুপ খাঁন।

তাদের জামিন নামঞ্জুরের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন আসামী পক্ষের আইনজীবি উবাথোয়াই মার্মা। এদিকে আসামীপক্ষের আইনজীবিগণ জানান- মিথ্যা ও ষড়যন্ত্রমূলক করা মামলাটি জামিনের জন্য উচ্চ আদালতে আবেদন করা হবে।
অন্যদিকে নাইক্ষ্যংছড়ি সদর ইউনিয়ন পরিষদের একাধিক ইউপি সদস্য জানান- ইউনিয়ন পরিষদ সরকারি সম্পদ। কিন্তু পরিষদ থেকে দোকান ভাড়া নিয়ে দীর্ঘদিন যাবত শর্ত ভঙ্গ করে আসছিল মামলার বাদী। একাধিকবার দোকান ভাড়াটিয়াকে সরকারি সম্পদ শর্তানুযায়ী চালানোর জন্য বলা হয়। দোকান ভাড়াটিয়া তা না করে একটি মহলের ইন্দনে নানা রকম ষড়যন্ত্র করছিল।

এদিকে বাদী কর্তৃক দায়েরকৃত উদ্দেশ্য প্রনোদিত মামলা থেকে চেয়ারম্যানের মুক্তির দাবি জানিয়েছেন বিভিন্ন মহল। বৃহস্পতিবার তাৎক্ষনিক বিবৃতি জানিয়েছেন নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলা আওয়ামীলীগ, অংগ ও সহযোগী সংগঠন, ইউনিয়ন পরিষদের সকল নারী ও পুরুষ মেম্বার, নাইক্ষ্যংছড়ি প্রেসক্লাবসহ বিভিন্ন সংগঠনের নেতারা। তাদের দাবী সামনে নাইক্ষ্যংছড়ি ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচনে তসলিম ইকবালের জনপ্রিয়তা কমাতে এই সড়যন্ত্র।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •